কবি জসীম উদ্দীন বাঙালীর মানসপটে বেঁচে থাকবে

প্রকাশ:| সোমবার, ১৩ মার্চ , ২০১৭ সময় ১০:০৮ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের উদ্যোগে কবি জসীম উদ্দীনের ৪১তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এক সাহিত্য আড্ডা, কবিতা পাঠ ও আলোচনা সভা সংগঠনের সভাপতি মুহাম্মদ আব্দুর রহিমের সভাপতিত্বে গত ১৩ মার্চ সন্ধ্যা ৭টায় নগরীর কদম মোবারক স্কুল মিলনায়তনে অনুষ্টিত হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. জিনবোধী ভিক্ষু। চট্টগ্রাম সাহিত্য পাঠচক্রের সাধারণ সম্পাদক আসিফ ইকবালের সঞ্চালনায় প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন মোরা পত্র লেখক সমাজের সভাপতি কবি সজল দাশ। মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কবি ও প্রকৌশলী সঞ্চয় কুমার দাশ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কবি ও ছড়াকার ইমরান ফারুকী, কবি ও রাজনীতিবিদ জসিম উদ্দিন, চন্দনাইশ সমিতি চট্টগ্রামের যুগ্ম সম্পাদক এড. নজরুল ইসলাম, পূর্বাশার আলোর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি কবি আতিকুর রহমান, সাবেক ছাত্রনেতা সুভাষ চৌধুরী টাংকু, সংগঠক রেয়াজ উদ্দিন চৌধুরী, ক্রীড়া সংগঠক আদিল কবির, সংগঠনের সাংগঠনিক সম্পাদক বোরহান উদ্দিন গিফারী, চন্দনাইশ ছাত্র ঐক্যের সভাপতি মুহাম্মদ রকিবুল হোসেন রিকু, আসিফ ইকবাল, চন্দনাইশ ইঞ্চিনিয়ার্স ফোরামের সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার শেখ হোসাইন মির্জা, শাখাওয়াত হোসেন, চন্দনাইশ ব্যাংকার্স ফোরামের আহবায়ক আবু মুহাম্মদ হোজাইফা, মুহাম্মদ আকতার হোসেন, মুহাম্মদ আরাফাত হোসেন কাউসার, আজিজুল করিম, মুহাম্মদ ইমতিয়াজ, মুহাম্মদ জাকির, মুহাম্মদ আয়েজ, মুহাম্মদ আমির প্রমুখ। সভায় প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, কবি জসীম উদ্দীন বাংলাদেশ প্রকৃতির আবহমান ঐতিহ্য এবং লোকজীবন তার কবিতায় স্বতন্ত্র পরিচয়ে তুলে ধরেছেন। কবি জসীম উদ্দীনের কবিতায় গ্রামের মানুষের জীবন জীবিকা, আনন্দ-বেদনা সহ সামগ্রীক বিষয় ফুঠে উঠেছে। বাংলা সাহিত্যে পল্লী কাব্যধারায় কবি জসীম উদ্দিন একজন আধুনিক কবি। তাঁর উল্লেখ যোগ্য রচনা সমূহ নক্শি কাথার মাঠ, সুজন বাদিয়ার ঘাট, রাখালী, বেদের মেয়ে, পদ্মাপার, সূচয়নী, মাটির কান্না, ভয়াবহ সেই দিনগুলিতে, ঠাকুর বাড়ির আঙিনায়, স্মরণের তরণী বাহি প্রভৃতি। কবি জসীম উদ্দিনের লেখনীতে পল্লী মানুষের জীবনবোধের সার্বিক পরিচয় খুজে পাওয়া যায়।