কবিরাজ সুলাল চৌধুরী হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাঠিত

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন , ২০১৬ সময় ০৯:২১ অপরাহ্ণ

হত্যা মামলার প্রধান আসামী রিক্সা চালক ইলিয়াছের আদালতে স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দ্বী হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আরো তিনজনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে
শফিউল আলম রাউজান ঃ রাউজানে কবিরাজ সুলাল চৌধুরী হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাঠিত হত্যাকান্ডের মামলার প্রধান আসামী রিক্সা চালক ইলিযাছের আদালতে দেওয়া স্বীকারোক্তি অনুসারে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আরো তিনজনকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে।রাউজানে কবিরাজ হত্যাকান্ডের মামলা দায়ের কবিরাজ সুলাল চৌধুরীকে বহনকারী রিক্সা চালক ইলিয়াছ সহ অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিদের আসামী করে নিহত কবিরাজ সুলাল চৌধুরীর পুত্র সৌরভ চৌধুরী বাদী হয়ে রাউজান থানায় মামলা দায়ের করেন গত ২৭ জুন সোমবার সকালে । হত্যাকান্ডের পর পর পুলিশ নিহত কবিরাজ সুলাল চৌধুরীকে বহনকারী নিক্সা চালক ও চিকদাইর ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশ ইলিয়াছ (৩০)কে গ্রেফতার করেন । গত ২৯ জুন রাউজান থানা পুলিশ সুলাল চৌধুরীকে বহনকারী রিক্সা চালক ইলিয়াছকে আদালতে সোপর্দ করেন । রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্লাহ জানান সুলাল চৌধুরীকে বহনকারী রিক্সা চালক ইলিয়াছ আদালতে বিজ্ঞ ম্যাজিষ্ট্রেটের কাছে ১৬৪ ধারায় জবান বান্দ্বীতে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন । হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত আরো তিনজনের নাম জবানবন্দ্বীতে ম্যজিষ্ট্রেটের কাছে স্বীকারোক্তিমুলক জবান বন্দ্বী দেয় । সুলাল চৌধুরীকে বহনকারী রিক্সা চালক ইলিয়াছের আদালতে দেওয়া জবান বন্দ্বী অনুসারে রাউজান থানার ওসি কেপায়েত উল্লাহর নেতৃত্বে রাউজান থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে নিহত কবিরাজ সুলাল চৌধুরীর বাড়ীর পরিমল চৌধুরীর পুত্র মিটু চৌধুরী (৪৫), ডাঃ পরেশের পুত্র সুদিপ চৌধুরী(২৭) একই বাড়ীর সুমন চৌধুরী (৩৬) কে গ্রেফতার করেন । রাউজান উপজেলার ৩নং চিকদাইর ইউনিয়নের ৫নং ওয়ার্ডের নিলকমল কবিরাজ বাড়ীর মৃত বীরেন্দ্রলাল করিবাজের পুত্র সুলাল চৌধুরী (৫৫) কে তার বাড়ীর পার্শ্বে নোয়াাজিশপুর চিকদাইর সড়কের একটি ব্রীজের উপর জবাই করে হত্যা করে সন্ত্রাসীরা । গত ২৫ জুন শনিবার দিবাগত রাতে সুলাল চৌধুরী তার ব্যবসা প্রতিষ্টান ফটিকছড়ি আজাদী বাজার থেকে সিএনজি অটোরিক্সা যোগে নোয়াজিশ পুর নতুন হাটে নেমে চিকদাইর এলাকার রিক্সা চালক ইলিয়ছের রিক্সায় করে নিজ বাড়ীতে আসার পথে বাড়ীর পার্শ্বে নোয়াাজিশপুর চিকদাইর সড়কের একটি ব্রীজের উপর সন্ত্রাসীরা তার গতিরোধ করে ধারালো কিরিচ দিয়ে সুলাল চৌধুরী ঘাড়ে ও গলায় আঘাত করে তাকে হত্যা করে রিক্সা চালক ইলিয়াছ সহ সন্ত্রাসীরা পালিয়ে যায় । নিহত সুলাল চৌধুরীকে বহনকারী রিক্সা চালক ইলিয়াছ গত এক বৎসর ধরে প্রতিদিন রাতে সুলাল চৌধুরীকে নোয়াজিশ পুর নতুন হাট থেকে রিক্ষায় করে বাড়ীতে দিয়ে আসতো ঘটনার দিন ও সুলাল চৌধুরীকে রাতেই রিক্সায় করে বাড়ীতে নিয়ে যাওয়ার সময়ে বাড়ীর পার্শ্বে ব্রীজের উপর পুর্ব থেকে উৎপেতে থাকা অজ্ঞাত নামা পেশাধার খুনি ওসন্ত্রাসীরা রিক্সা চালক ইলিয়াছ সহ ধারালো ছুরি দিয়ে ঘাড়ে ও গলায় মাথায় কুপিয়ে সুলাল চৌধুরীকে হত্যা করে । আদালতে দেওয়া রিক্সা চালক ইলিয়ছের স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দ্বীতে রিক্সা চালক ইলিয়াছ নিহত কবিরাজ সুলাল চৌধুরীর বাড়ীর পরিমল চৌধুরীর পুত্র মিটু চৌধুরী (৪৫), ডাঃ পরেশের পুত্র সুদিপ চৌধুরী(২৭) একই বাড়ীর সুমন চৌধুরী (৩৬) রিক্সা চালক ইলিয়াছ সহ জায়গা সম্পত্তির বিরোধের জের ধরে ধারলো কিরিচ দিয়ে কুপিয়ে কবিরাজ সুলাল চৌধুরীকে হত্যা করে ।