কদলপুর হামিদিয়া মার্দ্রাসায় ভবন নির্মান কাজের ভিত্তি প্রস্থর

প্রকাশ:| শনিবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি , ২০১৫ সময় ১১:১২ অপরাহ্ণ

কদলপুর হামিদিয়া মার্দ্রাসায় ভবন নির্মান কাজের ভিত্তি প্রস্থরবিএনপি জামায়েত মানুষ পুড়িয়ে মারছে, আওয়ামী লীগ দেশের উন্নয়ন করছেন । বিএনপি জামাত একসময়ে রাউজানকে সন্ত্রাসের জনপদ হিসাবে পরিণত করেছিলো । রাউজানকে সন্ত্রাসের জনপদ হিসাবে পরিচিত করে ব্এিনপি জামায়েত স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি হত্যা অপহরন, চাদাঁবাজী, ছিলো রাউজানের প্রতিদিনের ঘটনা । বিএনপি জামায়েত স্বাধীনতা বিারোধীরা রাউজানের সহজ সরল মানুষকে মিথ্যা প্রতিশ্র“তি দিয়ে ভোট নিয়ে ক্ষমতায় অধিষ্টিত হয়ে তারা রাউজানের কোন উন্নয়ন করেনি । রাউজানের সাধারণ মানুষকে সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়ে জিম্মি করে রাখেন কয়েক যুগ ধরে । গতকাল ২৮ ফেব্র“য়ারী শনিবার সকাল ১১ টার সময় রাউজানের কদলপুর হামিদিয়া ফাজিল মার্দ্রসার ভবনের নির্মান কাজের ভিত্তিপ্রস্থর অনুষ্টান ও মশারী বিতরন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্ত্যবেরেল মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি একথা বলেন । এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি আরো বলেন আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর সন্ত্রাসের জনপদ রাউজানকে শান্তির জনপদে পরিণত করা হয়েছে । রাউজানে ব্যাপক উন্নয়ন করা হয়েছে যা আর কোন সরকারের আমলে হয়নি । অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন রাউজান উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডাঃ অসিম কুমার নাথ, কদলপুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মুজাহিদ উদ্দিন চৌধুরী লিংকন, মার্দ্রাসার অধ্যক্ষ হাফেজ মাওলানা আবু জাফর, আওয়ামী লীগ নেতা ইছমাইল শাহ, বাবুল, মেম্বার আলমগীর, খোকন, প্রমুখ । শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের আওতায় ৫০ লাখ ৫০ হাজার টাকা ব্যয়ে কদলপুর হামিদিয়া মার্দ্রাসায় একটি ও কদলপুর উচ্চ বিদ্যালয়ে একটি ভবন নির্মান কাজের ভিত্তি প্রস্থর প্রাদান করেন রেল মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি । গতকাল শনিবার রাউজান উপজেলার কদলপুর ইউনিয়নের মাধ্যম কদলপুর ফিতর মোহাম্মদ চৌধুরী বাড়ীর বাসিন্দ্বাদের সাথে রেল মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি সাথে মতবিণিময় করেন রেল মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি। মতবিণিময় কালে এলাকার বাস্ন্দ্বিাদের পক্ষে আলহাজ্ব ছালেহ আহম্মদ, মোহাম্মদ দুদু মিয়া, হাসিনা বেগম, জুলেখা বেগম, শিক্ষার্থী রুনা আকতার দিদারুল আলম ফরহাদ উদ্দিন এবি এম ফজলে করিম চৌধুরীকে অভিযোগ করে বলেন তসলিম ও মুসলিম নামের দুই ব্যক্তি বাড়ীর মানুষের পুরানো চলাচলের রাস্তা দখল ও খালের উপর সাকোঁ দখল করে সীমানা প্রাচীর দিয়ে পাকা ঘর নির্মান করেছেন । জনগনের চলাচলের পথ বন্দ্ব করে পাকা ঘর নির্মান করায় এলাকার মানুষের চলাচলে ব্যাপক দুভোর্গ পোহাতে হচ্ছে । এলাকার লোকজনের অভিযোগ পেয়ে রেল মন্ত্রনালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি এবি এম ফজলে করিম চৌধুরী এমপি এলাকার মানুষের চলাচলের রাস্তা দখলকারী ব্যক্তির বিরুদ্বে ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য রাউজান থানার ওসিকে নির্দেশ প্রদান করেন । এলাকার মানুষের চলাচলের দুভোর্গ লাঘব করতে রাস্তার জায়গা উম্মুক্ত করে দেওয়ার জন্য ব্যবস্থা গ্রহন করার জন্য প্রশাসনকে নির্দেশ প্রদান করেন ।