কক্সবাজারে ৫ স্কুল ছাত্র নিখোঁজ,উদ্বেগ-উৎকণ্ঠায় পরিবার!

mirza imtiaz প্রকাশ:| সোমবার, ১০ সেপ্টেম্বর , ২০১৮ সময় ০২:০৪ পূর্বাহ্ণ


সেলিম উদ্দীন,কক্সবাজার।

কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় ও পৌর প্রিপ্র্যারাটরি উচ্চ বিদ্যালয়ের পাঁচ ছাত্র নিখোঁজ হয়েছে। গতকাল রোববার (৯ সেপ্টেম্বর) বিদ্যালয়ে গিয়ে আর বাড়ি ফিরে আসেনি তারা। এই নিয়ে তাদের পরিবারে উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা বিরাজ করছে।

নিখোঁজ ছাত্ররা হলো, সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির ছাত্র ও উত্তর রুমালিয়ারছড়া এলাকার উপাধ্যক্ষ মৌ জহির আহমদের পুত্র সাইয়েদ নকীব, অষ্টম শ্রণির ছাত্র ও বাজারঘাটা এলাকার এড. আব্দুল আমিনের বড় ছেলে এইচ এ গালিব উদ্দিন, অষ্টম শ্রেণীর মেধাবী ছাত্র ও বাসটার্মিনাল এলাকার আকতার কামাল চৌধুরীর ছেলে শাহরিয়ার কামাল সাকিব ও তার খালাতো ভাই অষ্টম শ্রেণির ছাত্র একই এলাকার ফয়েজুল ইসলামের পুত্র শাফিন নূর ইসলাম এবং পৌর প্রিপ্র্যারাটরি উচ্চ বিদ্যালয়ের এক ছাত্র। তবে তার পরিচয় পাওয়যা যায়নি।
নিখোঁজ সাকিব ও শাফিনের স্বজনেরা জানান, দু’জন সকাল ১১টায় বাসটার্মিনাল বাসা থেকে বিদ্যালয়ে যায়। পরে আর ফিরে আসেনি। আত্মীয়-স্বজনসহ সম্ভাব্য বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও রাত পর্যন্ত তাদের কোনো খোঁজ পাওয়া যায়নি।

সাইয়েদ নকীবের বাবা মৌ জহির আহমদ জানান, তার সকাল ৭টায় ও ১০টায় দু’টো প্রাইভেট কোচিং আছে। দুটিতে যায়নি। সর্বশেষ ১১টায় তার সাথে মোবাইলে কথা হয়েছে। প্রাইভেটের টাকা দেয়ার জন্য ৬০০ টাকাও নিয়েছে। ১২টায় স্কুল থাকলেও সে স্কুলে যায়নি।

গালিবের বাবা জানান, এইচ এ গালিব উদ্দিন দুপুর ১২ ঘটিকার সময় স্কুলে যাওয়ার পর হতে নিখুঁজ হয়ে যায়।

কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রামমোহন সেন বলেন, সাকিব ও শাফিনের ব্যাপারে তাদের পরিবারের লোকজন আমাকে ফোন করেছিলেন। বিষয়টি জানতে পেরে আমি উপস্থিত খাতা দেখেছি। কিন্তু তারা বিদ্যালয়ে আসেনি। তবে অন্য দু’জনের অভিভাবকেরা আমাকে ফোন করেনি। তাই তারা বিদ্যালয়ে উপস্থিত ছিলো কিনা জানতে পারছি না।

হঠাৎ চার ছাত্র নিখোঁজ হওয়া তাদের পরিবারে উৎকণ্ঠা বিরাজ করবে। তারা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছে। একই সাথে বিদ্যালয়ে কর্তৃপক্ষও চিন্তিত হয়েছে। এভাবে ছাত্ররা কোথায় যেতে পারে তা কারো ধারণায় আসছে না। তবে তারা সবাই মিলে কোথাও বেড়াতে গিয়ে থাকতে পারে বলে অনেক মনে করছেন। আবার হয়তো কারো কোনো গন্ডগোল হওয়া আটকা থাকতেও পারে। অথবা কোনো অপচক্রের হাতে পড়েছে কিনা তার সন্দেহও দানা বেঁধেছে সবার মনে।

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বলেন, ছাত্র নিখোঁজের ব্যাপারে জানাতে কেউ আমাদের কাছে আসেনি।