কক্সবাজারে জেলের রহস্যজনক মৃত্যু

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| রবিবার, ২৪ ডিসেম্বর , ২০১৭ সময় ০৯:৫০ অপরাহ্ণ

সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও, কক্সবাজার প্রতিনিধি, মহেশখালী চ্যানেলে গভীর সমুদ্র বন্দরে একটি মাছের ট্রলারে কুতুবদিয়া উপজেলার ধুরুং এলাকার মাহমুদুল করিম নামে এক জেলের রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে। ঘটনাটি দফারফার মাধ্যমে আপোষ মিমাংসা করেছে বোট মালিক বশির ও পরিচালক মোহাম্মদ আলম।
জানা যায়, সদরের চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের বশির বহদ্দারের মালিকানাধীন একটি মাছ ধরার ট্রলার ১২/১৪ জন শ্রমিক নিয়ে বিগত ১২ দিন পূর্বে মাছ শিকারের উদ্দেশ্যে রওয়ানা দেয়। সাগরে মাছ ধরা অবস্থায় কয়েক শ্রমিকের সাথে বাদানুবাদ হয় বলে অপর একটি ট্রলারের মাঝি জানিয়েছে। গত ২২ ডিসেম্বর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। গত ২৩ ডিসেম্বর ভোরে অন্যান্য ট্রলারের জেলেরা তাকে উদ্ধার করে কক্সবাজারস্থ ফিশারী ঘাট এলাকা থেকে তুলে নিয়ে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে নিয়ে যায়। খবর পেয়ে সচতুর বোট মালিক বশির হাসপাতালে পৌঁছে ঘটনাটি ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করার জন্য ডাক্তারকে বশে এনে স্বাভাবিক মৃত্যু হয়েছে মর্মে সার্টিফিকেটের জন্য দৌড়ঝাপ শুরু করে।
স্থানীয় জেলেরা জানায়, তাকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে, না হলে তার পরিবারকে না জানিয়ে মৃত ব্যক্তিকে হাসপাতালে নিয়ে স্বাভাবিক মৃত্যুর সার্টিফিকেট নেওয়ার প্রয়োজন কি ছিল। পরক্ষণে তার পরিবারের সদস্যরা খবর পেলে দ্রুত সদর হাসপাতালে ছুটে আসে। স্থানীয় দক্ষিণ ধুরুং এলাকার আক্তার কামাল নামে এক প্রভাবশালীর মাধ্যমে থানা থেকে আপোষ হয়েছে মর্মে লাশ দরিদ্র পরিবারের মধ্যে হস্তান্তর করে। ঘটনাটি জানাজানি হলে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়। এ ব্যাপারে বোট মালিক বশির আহমদের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিষয়টি জানেন না। এ বিষয়ে তার পরিচালকের সাথে যোগাযোগ করতে বলেন।
পরিচালক চৌফলদন্ডীর মৃত বজলুর রহমানের পুত্র মোহাম্মদ আলমের সাথে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও কল রিসিভ করেনি। জানতে চাইলে সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রনজিত কুমার বড়–য়া বলেন, এ ধরণের কোন ঘটনা তিনি শুনেননি এবং থানায় কোন ধরণের আপোষ মিমাংসাও হয়নি।