কক্সবাজারের বন্যা পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৮ জুলাই , ২০১৫ সময় ০৯:৫৭ অপরাহ্ণ

কক্সবাজারের বন্যা পরিস্থিতি অবনতির দিকে যাচ্ছে। বৃষ্টি কিছুটা থেমে গেলেও উজান থেকে নেমে আসছে পাহাড়ী ঢল। উত্তাল রয়েছে সাগর। বলবৎ রয়েছে ৩ নং সর্তক সংকেত। বন্যা কবলিত এলকায় খাদ্য সংকট দেখা দিয়েছে। র্দুগত এলাকায় মানুষ অভুক্ত অবস্থায় দিন কাটাচ্ছে বলে স্বীকার করেছেন সংসদ সদস্য।

জেলায় দেড় শতাধিক গ্রামের ৩ লাধিক মানুষ পানি বন্দি অবস্থায় রয়েছে। । ফলে এসব এলাকায় জন দূর্ভোগ চরম আকার ধারণ করেছে। ৩টি নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।

কয়েক দিনের টানা বর্ষনে সৃষ্ট বন্যা ও পাহাড়ী ঢলে কক্সবাজারের জনজীবণ বির্পযস্ত হয়ে পড়েছে। সে সাথে বঙ্গোপ সাগরে সৃষ্ট মৌসুমী নিম্নচাপের কারনে সাগর উত্তল রয়েছে। কক্সবাজার,চট্রগ্রাম,মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দর কে দেয়া ৩ নং স্থানীয় সর্তক সংকেত বলবৎ রেখেছে আবহাওয়া অফিস।

বন্যায় চকরিয়া, রামু, পেকুয়া,কক্সবাজার সদর ও টেকনাফের পানি বন্দি হাজার হাজার মানুষ চরম দূর্ভোগে পড়েছেন। দূর্গত এলাকার লোকজন বিভিন্ন আশ্রয় কেন্দ্র ও উঁচু স্থানে আশ্রয় নিয়েছে। অনেকে না খেয়ে আছে পানি বন্ধী হয়ে থাকার কারনে। না খেয়ে থাকা ও পরিবার নিয়ে কষ্টে থাকার কথা জানালেন চকরিয়ার কাকারার কাশেম,ফরিদ,জাহেদ ও সরওয়ার।

বন্যা কবলিত এলাকার জনপ্রতিনিধিরা তাদের এলাকার দুভোর্গের পাশাপাশি অর্পযাপ্ত ত্রানের কথা জানান। চকরিয়ার সুরাজপুর মানিক পুরের ইউপি চেয়ারম্যান আজিমুল হক আজিম বলেন, যে ত্রান পেয়েছে তা খুবই সামান্য।

চকরিয়া পেকুয়ার সংসদ সদস্য মোহাম্মদ ইলিয়াছ বলেন,তার এলাকায় অনেক মানুষ না খেয়ে আছে। পানি বন্ধী হয়ে থাকার কারনে তারা বের ও হতে পারছে না। তাদের জন্য বাজারে শুকনো খাবার ও পাওয়া যাচ্ছে না বলে জানান তিনি। তার এলাকা কে দূর্গত এলাকা ঘোষনার দাবী জানান এ সংসদ সদস্য।

বাকঁখালী,রেজু ও মাতামুহুরী নদীর পানি এখনো বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে আজও। গতমাসে রমজানে ভয়াবহ বন্যায় প্রায় সপ্তাহ ব্যাপী পানিবন্দী থাকার পর হঠাৎ করে আবার বন্যা দেখা দেওয়ায় মহা দুর্ভোগে পড়ে দুর্গত এলাকার মানুষ।

কক্সবাজারের ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক ড. অনুপম সাহা জানান, এ পর্যন্ত বন্যা কবলিত এলাকাং ১৫০ মেট্রিক টন চাল ও নগদ ২ লাখ টাকা প্রদান করা হয়েছে। এ ছাড়া য়তির তালিকা এখনো তৈরি হয়নি জানিয়ে আজ বা কালের মধ্যে তৈরি হবে বলে জানান।


আরোও সংবাদ