কক্সবাজারের ডিবি পুলিশের ওসি ‘ক্লোজড’, ১০ এসআই বদলি!

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ২৩ জুন , ২০১৫ সময় ১১:১৭ অপরাহ্ণ

কক্সবাজার জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) ‘ক্লোজড’ করে চট্টগ্রাম রেঞ্জে সংযুক্তি এবং জেলার আরও ১০ জন উপ-পরিদর্শককে (এসআই) একযোগে বদলি করা হয়েছে।

মনে করা হচ্ছে, ফেনীতে প্রায় ৭ লাখ ইয়াবাসহ পুলিশের একজন সহকারি উপ-পরিদর্শক গ্রেপ্তার হওয়ার পর কক্সবাজারের গোয়েন্দা পুলিশের একজন পুলিশ কর্মকর্তার নাম আসার ঘটনাকে কেন্দ্র করে এই বদলি করা হয়েছে।

তবে জেলা পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বলছেন, নিয়মিত বদলির অংশ হিসেবেই তাদের বদলি করা হয়েছে। আর ডিবির ওসিকে কক্সবাজার থেকে প্রত্যাহার করে পুলিশের চট্টগ্রাম রেঞ্জে ন্যাস্ত করা হয়েছে।

‘ক্লোজড’ হওয়া গোয়েন্দা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হলেন দেওয়ান আবুল হোসেন। একযোগে বদলি হওয়া উপ-পরিদর্শকদের মধ্যে রয়েছেন ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও ইয়াবা মামলার আসামি বিল্লাল হোসেন, উপ-পরিদর্শক (এসআই) একরামুল হক, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুল ইসলাম ভূইয়া, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আমীর, কুতুবদিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এবিএম কামাল, কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেন, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসরুরুল হক, মোঃ ফিরোজ আলম, টেকনাফ থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেলিম ও উখিয়ার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেলিম।

পুলিশ সূত্র মতে, এ সকল পুলিশ কর্মকর্তাদের বদলির এই আদেশ ২৩ জুন জেলা পুলিশ কার্যালয়ে পৌছেছে। তাদের দ্রুততর সময়ে নতুন কর্মস্তলে যোগ দিতেও নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

জেলা পুলিশ সূত্র জানায়, ডিবি পুলিশের ওসিকে ‘ক্লোজড’ করে তার চাকুরি চট্টগ্রাম রেঞ্জে ন্যস্ত করা হয়েছে। এছাড়াও ডিবি পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ও ইয়াবা মামলার আসামি বিল্লাল হোসেনকে ফেনী, উপ-পরিদর্শক (এসআই) একরামুল হককে খাগড়াছড়ি, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মনিরুল ইসলাম ভূইয়াকে রাঙ্গামাটি, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মোঃ আমীরকে নোয়াখালী, কুতুবদিয়া থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) এবিএম কামালকে রাঙ্গামাটি, কক্সবাজার সদর মডেল থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) কামাল হোসেনকে চাঁদপুর, উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাসরুরুল হককে লক্ষীপুর, মোঃ ফিরোজ আলমকে রাঙ্গামাটি, টেকনাফ থানার সহকারি উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেলিম ও উখিয়ার উপ-পরিদর্শক (এসআই) সেলিমকে লক্ষীপুর জেলায় বদলি করা হয়েছে।
জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার তোফায়েল আহমদ জানান, নিয়মিত বদলির অংশ হিসেবেই ১০ উপ-পরিদর্শককে বদলি করা হয়েছে। তাছাড়াও ওসি ডিবিকে চট্টগ্রাম রেঞ্জে সংযুক্ত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, ‘অন্য কোন কারণে তাদের বদলি করা হয়েছে এমন কোন তথ্য আমার কাছে নেই।’
তবে পুলিশের একাধিক সূত্র দাবি করেছেন, ডিবি পুলিশের ওসি ও অধিকাংশ এসআইকেই ইয়াবা সংক্রান্ত ঘটনায় বদলি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০ জুন রাত সাড়ে ১১টার দিকে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের ফেনী জেলার লালপোল এলাকায় একটি প্রাইভেট কার আটকের পর সেখান থেকে ৬ লাখ ৮০ হাজার ইয়াবাসহ দুইজনকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব। গ্রেপ্তার হওয়া দুইজন হলেন ঢাকা পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) টেকনিক্যাল সেকশনের সহকারি উপ-পরিদর্শক (এসআই) মাহফুজুর রহমান (৩৫) ও তার গাড়িচালক জাবেদ আলী (২৯)। ইয়াবার বিশাল ওই চালান নিয়ে পুলিশে এবং সারাদেশে তোলপাড় শুরু হয়। ধৃত পুলিশ কর্মকর্তা মাহফুজুর রহমান তার স্বীকারোক্তিতে কক্সবাজার জেলা গোয়েন্দা পুলিশের একজন উপ-পরিদর্শকের নামও উল্লেখ করেছেন।