এ নৃশংসতা-বর্বরতার শেষ কোথায়-ড. ইফতেখার

প্রকাশ:| শনিবার, ৩০ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ০৮:৩৪ অপরাহ্ণ

ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী‘মানুষের শরীর পেট্রোল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া কোনো রাজনীতি নয়, এর নাম অপরাজনীতি, এর নাম সন্ত্রাস। রাজনীতিকদের ক্ষমতায় যেতে হলে মানুষের ভোট লাগবে। অথচ সেই ভোটারদেরই আন্দোলনের নামে পুড়িয়ে মারা হচ্ছে। ভোটারদের পুড়িয়ে মারলে আপনারা ক্ষমতায় যাবেন কীভাবে ?’

চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সামনে শনিবার দুপুরে ‘জেগে উঠো বাংলাদেশ’ নামে একটি সংগঠনের উদ্যোগে আয়োজিত এক মানববন্ধন ও সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেছেন।

‘রাজনীতির নামে গাড়িতে আগুন দেয়া, পুড়িয়ে মানুষ হত্যা- এ নৃশংসতা-বর্বরতার শেষ কোথায়, আসুন, রুখে দাঁড়াই’ শীর্ষক এ কর্মসূচিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরীসহ বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার নাগরিকরা অংশ নেন।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, ‘দাবি আদায়ের জন্য গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক কর্মসূচি অবশ্যই সমর্থনযোগ্য। কিন্তু দাবি আদায়ের নামে যেভাবে মানুষ পোড়ানো হচ্ছে, কোলের শিশুকে হত্যা করা হচ্ছে, জীবন্ত মানুষের গায়ে পেট্রল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়া হচ্ছে, তা পৃথিবীর কোনো গণতান্ত্রিক আন্দোলনের ইতিহাসে নেই। দেশে যেসব রাজনৈতিক কর্মসূচি দেয়া হচ্ছে তা দেখে মনে হচ্ছে স্বাধীনতা বিরোধী শক্তি দেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছে।’

রাজনীতিকদের উদ্দেশে বক্তারা বলেন, ‘আপনাদের সমস্যা আপনারা নিজেরাই সমাধান করুন। কিন্তু হঠকারী আন্দোলনের কর্মসূচি দিয়ে মানুষের গায়ে হাত দেবেন না। সবার সহ্যের সীমা আছে। ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে গেলে মানুষ তখন প্রতিরোধ শুরু করবে। মানুষ রাস্তায় নেমে আসবে।’

সাংবাদিক হাসান ফেরদৌসের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী, নারীনেত্রী নূরজাহান খান, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশন চট্টগ্রাম কেন্দ্রের সাবেক সভাপতি দেলোয়ার মজুমদার, কবি কামরুল হাসান বাদল, মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিন আহমেদ, জেলা পিপি অ্যাডভোকেট আবুল হাশেম, চট্টগ্রামে সাংবাদিকদের সংগঠন সিইউজের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাজিমউদ্দিন শ্যামল, মানবাধিকার সংগঠক শরীফ চৌহান, প্রমা আবৃত্তি সংগঠনের সভাপতি রাশেদ হাসান, উদীচী চট্টগ্রাম জেলা সংসদের সাধারণ সম্পাদক সুনীল ধর, কাউন্সিলর অ্যাডভোকেট রেহানা কবির রানু ও গিয়াস উদ্দিন, সাবেক কাউন্সিলর এমএ নাসের, সোনালী ব্যাংক সিবিএ নেতা গিয়াস উদ্দিন, খেলাঘর সংগঠক আশীষ সেন, সাংবাদিক অনিন্দ্য টিটো, স্বরূপ ভট্টাচার্য, জনউদ্যোগের সংগঠক শ্যামল মজুমদার প্রমুখ।

সমাবেশে জনউদ্যোগ, সাম্প্রদায়িকতা বিরোধী তরুণ উদ্যোগ, খেলাঘর, প্রমা, উদীচী, চারণসহ বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন একাত্মতা প্রকাশ করেন।

সমাবেশ থেকে ৭ ডিসেম্বর চট্টগ্রামের কেন্