এল কে সিদ্দিকী রাজনীতিবিদদের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবেন

প্রকাশ:| সোমবার, ৪ আগস্ট , ২০১৪ সময় ১০:০৬ অপরাহ্ণ

রাজনৈতিক সততা ও নিষ্ঠার কারণে এল কে সিদ্দিকী রাজনীতিবিদদের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবেন বলে মন্তব্য করেছেন চট্টগ্রাম মহানগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী।

এল কে সিদ্দিকী রাজনীতিবিদদের কাছে অনুকরণীয় হয়ে থাকবেনতিনি বলেন, সৎ, নিষ্ঠাবান ও নির্লোভ একজন মানুষ ছিলেন এল কে সিদ্দিকী। রাজনীতি, সমাজসেবা ও রাষ্ট্রের দায়িত্ব পালনকালে লোভ লালসার উর্দ্ধে উঠে কাজ করেছেন। যা বর্তমান সমাজে বিরল।

সোমবাদ দুপুরে সীতাকুণ্ডে এক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। সাবেক মন্ত্রী ও ডেপুটি স্পিকার ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকী স্মরণে এ সভার আয়োজন করে সীতাকুণ্ড উপজেলা বিএনপি।

বড় মাপের রাজনীতিবিদ হয়েও সকল বিতর্কের উর্দ্ধে উঠে রাজনীতি থেকে স্বেচ্ছায় অবসর নিয়ে রাজনীতিবিদদের জন্য অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন উল্লেখ করে

আমীর খসরু বলেন, এল কে সিদ্দিকী ছিলেন বাংলাদেশশি জাতীয়তাবাদের ধারক ও বাহক। আমৃত্যু দলকে সংগঠিত করার লক্ষ্যে কাজ করে গেছেন তিনি।

স্মরণসভায় প্রধান বক্তার বক্তব্যে উত্তর জেলা বিএনপির আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ আসলাম চৌধুরী বলেন, রাষ্ট্রের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেও বিতর্কের উর্ধ্বে ছিলেন এল কে সিদ্দিকী। ফলে দুর্নীতিবাজ, স্বার্থন্বেষী মহল সীতাকুন্ডের উন্নয়নে বাঁধা হতে পারেনি।

দক্ষিণ জেলা বিএনপি সভাপতি সাবেক মন্ত্রী জাফরুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, মহৎ, সৎ ও বিনয়ী মানুষ হিসেবে চট্টগ্রামের মানুষ এল কে সিদ্দিকীকে চিরকাল স্মরণ রাখবে।

মহানগর বিএনপির সহ-সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, এল কে সিদ্দিকীর সততা, নিষ্ঠা ও ন্যায়পরায়নতা নেতা-কর্মীদের জন্য উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। তাঁর আদর্শকে পুঁজি করে সামনের দিকে এগিয়ে যেতে হবে।

স্মরণসভায় এল কে সিদ্দিকীর ছেলে ব্যারিষ্টার আফফান আহম্মেদ সিদ্দিকী, স্থপতি আকসিন আহম্মেদ সিদ্দিকী, প্রকৌশলি এইলান আহম্মেদ সিদ্দিকী আলোচনায় অংশ নেন।

সীতাকুন্ড উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক তফজল আহম্মেদ‘র সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম আহ্বয়াক জহরুল আলম জহুর ও পৌর বিএনপি সাধারণ সম্পাদক কাউন্সিলর সামশুল আলম আজাদের যৌথ সঞ্চালনায় সভায় অন্যান্যের মধ্যে বিএনপি নেতা ইসহাক কাদের চৌধুরী, জাকের হোসেন, নুরুল আমিন, নুর মোহাম্মদ, ইউনুস চৌধুরী, ইউসুফ নিজামী, কামাল উদ্দিন চেয়ারম্যান, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল সহ-সভাপতি মনজুর আলম, উত্তর জেলা যুবদল সভাপতি কাজি সালাহউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক সোলেমান মনজু, কেন্দ্রীয় ছাত্রদল নেতা এইচ এম রাশেদ খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।