এল কে সিদ্দিকী মাটি ও মানুষের নেতা-সাবেক দুই মেয়র

প্রকাশ:| শনিবার, ১ আগস্ট , ২০১৫ সময় ০৯:৫৪ অপরাহ্ণ

শনিবার (১ আগস্ট) বিকেলে নগরীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট মিলনায়তনে স্মরণসভা ও দোয়া মাহফিলের আয়োজন করে এল কে সিদ্দিকীরর পরিবার।

চট্টগ্রামে প্রয়াত বিএনপি নেতা ও সাবেক মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকীর স্মরণ সভায় উপস্থিত হয়ে সাবেক দুই মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী এবং এম মনজুর আলম বলেন, ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকী ছিলেন মাটি ও মানুষের নেতা। ।

এতে উপস্থিত হয়ে সাবেক দুই মেয়র বলেন, ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকী ছিলেন মাটি ও মানুষের নেতা। আজীবন তিনি গণমানুষের জন্য কাজ করে গেছেন নিঃস্বার্থভাবে। স্বাধীন চেতা এই নেতা মানুষকে মূল্যায়ন করেছেন দলমতের উর্ধে উঠে। অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন আপনজনের মতো। এল কে সিদ্দিকীর অবদান দেশ ও জাতি আজীবন শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করবে। চট্টগ্রামের মানুষ একজন নিবেদিতপ্রাণ ও জনদরদী নেতার অভাব ঘোচাতে অনেক সময় লাগবে।

অনুষ্ঠানে অন্যান্য বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের খুব কম রাজনৈতিক নেতাই ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকীর মতো সাধারণ মানুষের আপন হয়ে উঠতে পেরেছেন। দেশের উন্নয়নে নিরন্তর চিন্তাশীল এই নেতার দৃষ্টান্ত খুবই বিরল। চিন্তার প্রতিফলন হিসেবে তিনি অনেক সাহিত্যকর্মও করে গেছেন। বহু গুণের অধিকারী এই নেতা বিএনপিকে গণমানুষের দল হিসেবে সারাদেশে প্রতিষ্ঠা করতে রেখেছেন ব্যাপক ভূমিকা। দলের ভাইস চেয়ারম্যান, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা, কোষাধ্যক্ষসহ পালন করেছেন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব। দেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, শিক্ষা বিস্তার এবং সামাজিক উন্নয়নে তাঁর অবদান চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে।

এতে আরও বক্তব্য রাখেন নগর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ডা. শাহাদাত হোসেন, ফেনী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি প্রফেসর ড. ফসিউল আলম, চট্টগ্রাম মা ও শিশু হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি প্রফেসর এম এ তাহের খান, সহ সভাপতি এসএম মোরশেদ, দৈনিক আজাদীর ব্যাবস্থাপনা সম্পাদক ওয়াহিদ মালেক, দৈনিক পূর্বদেশ সম্পাদক ওসমান গণি মনসুর, ইঞ্জিনিয়ার মানজার ই মোরশেদ আলম, রোটারিয়ান আবদুল আহাদ, ইঞ্জিনিয়ার জানে আলম, রোটারিয়ান ওয়াদুদ উল্লাহ, রোটায়িান আমিরউজ্জামান ভুইয়া, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা নাজিম উদ্দিন, ইঞ্জিনিয়ার কে এম সুফিয়ান, নুর উদ্দিন মো. জাহাঙ্গীর চেয়ারম্যান, বিএনপি নেতা ইউসুফ নিজামী, জয়নাল আবেদীন দুলাল, ইন্টারন্যাশনাল ইনার হুইলের রোজি আহাদ প্রমুখ।

ইঞ্জিনিয়ার এল কে সিদ্দিকী বাংলাদেশের জাতীয় সংসদে চার বার নির্বাচিত সংসদ সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি ১৯৭৯ সালের দ্বিতীয় সংসদে সদস্য হয়েই জাতিসংঘের অধিবেশনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করেন। ১৯৮০ সালে বিদ্যুৎ, পানিসম্পদ ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ প্রতিমন্ত্রী এবং ৮১ সালে সেচ, পানিসম্পদ উন্নয়ন ও বন্যা নিয়ন্ত্রণ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন। ওই সময় তিনি ভারতের সাথে যৌথ নদী কমিশনের কো-চেয়ারম্যান হিসেবে ভূমিকা রাখেন। ৯১-৯৬ সংসদের সরকারি হিসাব সম্পর্কিত কমিটির চেয়ারম্যান ছিলেন। একই সময়ে তিনি কমনওয়েলথ পার্লান্টারি এসোসিয়েশনের বাংলাদেশের সদস্য হিসেবে অভিষিক্ত হন। ১৯৯২ সালে এল কে সিদ্দিকী এসোসিয়েশন অব ইঞ্জিনিয়ার্স (অ্যাব) গঠন করেন। ২০০১ সালের অস্টম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে চট্টগ্রাম-২ সীতাকুন্ড আসন থেকে নির্বাচিত হয়ে পানিসম্পদ মন্ত্রীর দায়িত্ব পালন করেন।

১৯৩৯ সালের ১৫ এপ্রিল চট্টগ্রামের সীতাকুন্ড উপজেলার দক্ষিণ রহমতনগর গ্রামের সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম নেয়া ক্ষণজন্মা এই বিএনপি নেতা ২০১৪ সালের ১ আগস্ট সিঙ্গাপুরের মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ইন্তেকাল করেন।