‘একুশে ফেব্রুয়ারি স্বীকৃতি নয়, এটা আমাদের অর্জন’ : চুয়েট ভিসি

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮ সময় ০৩:৫৩ অপরাহ্ণ

চুয়েটে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা উদযাপিত

চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযু্িক্ত বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) -এর মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেছেন, মহান একুশে ফেব্রুয়ারি ইউনেস্কোর কর্তৃক কেবল একটা স্বীকৃতি নয়। এটা আমাদের অসামান্য অর্জন। মাতৃভাষার জন্য রক্তদান পৃথিবীর ইতিহাসে বিরল। তবে ভাষা আন্দোলনের ৬৬ বছর পরেও দেশের সর্বস্তরে এখনো বাংলার প্রচলন না হওয়াটা সত্যিই দু:খজনক। বর্তমানে আমাদের দেশে তারুণ্যের বিকাশের পরিবর্তে তারা অবক্ষয়ের দিকেই ঝুঁকছে। তাদের কথা বলার মধ্যে ৭০ ভাগ বাংলা থাকলে ৩০ ভাগই থাকে ইংলিশ। এই বাংলিশ চর্চাটা এখন মহামারী আকার ধারণ করেছে। সেক্ষেত্রে ভাষা শহীদদের আত্মত্যাগের বিনিময়ে একটি সম্মৃদ্ধশালী বাংলাদেশ গড়ার স্বপ্ন থেকে আমরা পিছিয়ে পড়বো। তিনি অদ্য ২১শে ফেব্রুয়ারি (বুধবার), ২০১৮ খ্রি. চুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাদদেশে মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস-২০১৮ উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

পুরকৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. মোঃ আব্দুর রহমান ভূইয়ার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রকৌশল ও প্রযুক্তি অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. রণজিৎ কুমার সূত্রধর, তড়িৎ ও কম্পিউটার কৌশল অনুষদের ডীন অধ্যাপক ড. কৌশিক দেব, বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (অতিরিক্ত দায়িত্ব) অধ্যাপক ড. ফারুক-উজ-জামান চৌধুরী, ছাত্রকল্যাণ উপ-পরিচালক অধ্যাপক ড. জি.এম সাদিকুল ইসলাম প্রমুখ। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন বিভাগীয় প্রধানগণের পক্ষে পুরকৌশল বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ড. মোঃ মইনুল ইসলাম, প্রভোস্টগণের পক্ষে শেখ রাসেল হলের প্রভোস্ট ড. মোহাম্মদ কামরুল হাছান, শিক্ষক সমিতির পক্ষে সহ-সভাপতি অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ সামসুল আরেফীন, কর্মকর্তা সমিতির পক্ষে প্রকৌশলী অচিন্ত কুমার চক্রবর্তী, স্টাফ এসোসিয়েশনের পক্ষে জনাব ইসহাক মিজী এবং শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন মনীষী রায়। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও বিভিন্ন বিভাগের বিপুল সংখ্যক ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহণ করেন। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন সহকারী রেজিস্ট্রার (সমন্বয়) জনাব মোহাম্মদ ফজলুর রহমান ও মানবিকের প্রভাষক জনাবা নাহিদা সুলতানা চৈতী।

এর আগে দিবসটি উপলক্ষ্যে দিনের প্রথম প্রহরে সকাল সাড়ে ৭ টায় ক্যাম্পাসের উত্তর গোল চত্ত্বর হতে প্রভাত ফেরির মাধ্যমে দিনব্যাপী কর্মসূচীর শুরু হয়। এতে নেতৃত্ব দেন চুয়েটের মাননীয় ভাইস চ্যান্সেলর অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। এরপর চুয়েট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানিয়ে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম। এরপর একে একে চুয়েটের বিভিন্ন সামাজিক, সাংস্কৃতিক, রাজনৈতিক সংগঠন, চুয়েট স্কুল এন্ড কলেজের পক্ষ থেকে পুষ্পস্তবক অর্পণ করা হয়। অনুষ্ঠানের শুরুতে মহান ভাষা শহীদদের স্মরণে দোয়া ও মুনাজাত করা হয়। এছাড়া দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালা মধ্যে ছিল- শিশু-কিশোরদের অংশগ্রহণে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা, কবিতা আবৃত্তি, উপস্থিত বক্তৃতা, দেশাত্মবোধক গান প্রভৃতি।