এই শিশুর পিতা হবে কে?

প্রকাশ:| শনিবার, ৯ এপ্রিল , ২০১৬ সময় ০৯:১৪ অপরাহ্ণ

ধর্ষণ

পটিয়া প্রতিনিধি॥
পটিয়া পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডে সূচক্রদন্ডী এলাকায় ১০ মাস পূর্বে গণ ধর্ষণের শিকার বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীর একটি কন্যাসন্তান প্রসব হয়েছে। গত ৮ এপ্রিল শুক্রবার সকাল ১১টায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে এই সন্তান জন্ম হয়। বর্তমানে হাসপাতালের ৩৩ নং ওয়ার্ডে প্রসূতি বিভাগে কিশোরীসহ তার সন্তান চিকিৎসাধীন রয়েছে। অস্ত্রোপাচারের মাধ্যমে সন্তানটির প্রসব করা হয়। এখন স্থানীয়দের প্রশ্ন এ অবুঝ শিশুটির পিতা হবে কে?
জানা যায়, গত ২০১৫ সালের ২১ জুন পৌরসদরের সুচক্রদন্ডী এলাকার ৬ জন বখাটে উক্ত কিশোরীকে গণধর্ষণ করে। ফলে সে অন্ত:সত্তা হয়ে পড়লে কিশোরীর মা মঞ্জু রানী দে’র নজরে আসে। বিষয়টি কিশোরী থেকে তার মা কৌশলে জেনে নেয়ার পর স্থানীয় কাউন্সিলর রূপক সেন’কে ঘটনাটি অবহিত করে। প্রথমে কাউন্সিলর রূপক সেন এ ব্যাপারে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিলেও পরে আসামীদের বাঁচানোর জন্য বিভিন্নভাবে চেষ্টা তদবির চালিয়ে আসে। এমনকি ধর্ষিতার মা’কে টাকার বিনিময়ে ঘটনাটি ধামাচাপা দেয়ার চেষ্টা করে কাউন্সিলর রূপক সেন ব্যর্থ হয়। পরে ৪জানুয়ারি চট্টগ্রাম নারী ও শিশু নির্যাতন ট্রাইবুনালে ধর্ষিতার মা মঞ্জুর রাণী বাদী হয়ে ৬ জনের বিরুদ্ধে একটি ধর্ষণ মামলা দায়ের করে। আসামিরা হলেন প্রতিবেশী পিয়াল দে(২০), রিমন দে(২০), জনি দে(২৬), সুজন দে(২২), নয়ন দে(২২) ও সজীব দে(২২)। মামলাটি পটিয়া থানায় তদন্তের জন্য দেয়া হলে তদন্তকারী কর্মকর্তা ঘটনার সত্যতা পেয়ে তদন্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করে। আদালত গত ২২ ফেব্রুয়ারি আসামিদের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করে। এ ঘটনা নিয়ে এলাকায় ও চট্টগ্রাম শহরে সংবাদ সম্মেলন, মানববন্ধন, মিছিল ও সমাবেশসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালিত হয়। এতে স্থানীয় কাউন্সিলর রুপক সেন ক্ষিপ্ত হয়ে মঞ্জু রাণী দে’কে সপরিবারে হত্যার হুমকি দেয়। নিরুপায় হয়ে মামলার বাদী মঞ্জু রাণী কাউন্সিলর রূপক সেনসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে থানায় জিডি করে। এদিকে পুলিশ আসামীদের গ্রেফতারে কোনো ভূমিকা রাখছে না বলে বাদীনীর অভিযোগ। জানা গেছে, কিশোরী ও তার সন্তানের শারীরিক অবস্থা ভাল নয়। বর্তমানে মঞ্জু রাণীর হতাশা ও আক্ষেপ এই শিশুর দায়ভার কে নেবে?
এ ব্যাপারে পটিয়া থানার ওসি রেফায়েত উল্লাহ চৌধুরী জানান, ‘কোন আসামী পার পাবে না। অতিদ্রুত তাদের গ্রেফতার করা হবে। ভিকটিমের পরিবার ও ভিকটিমকে সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা দেয়া হবে।’


আরোও সংবাদ