উপচেপড়া ভিড় বিনোদন কেন্দ্রে

প্রকাশ:| শনিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর , ২০১৫ সময় ০৮:১৯ অপরাহ্ণ

ঈদ মানে আনন্দ, ঈদ মানে খুশি। ঈদ আনন্দে অনেকেই সপরিবারে অথবা বন্ধু-বান্ধুব নিয়ে নতুন পোশাকে ছুটছে নগরীর বিনোদন কেন্দ্র ও দর্শনীয় স্থানে। তাদের আশা, ইট-পাথরের চার দেয়ালের বন্দিদশা থেকে একটু সময়ের জন্য হলেও যেন মেলে মুক্তি।

চট্টগ্রাম পতেঙ্গা সমুদ্র সৈকত পর্যটনে এসে করুন পরিনতির শিকার পর্যটকরা পতেঙ্গা-ফয়’সলেকে জনস্রোতশনিবার ফয়েসলেক, চিড়িয়াখানা, পতেঙ্গা সৈকত, মেরিনার্স সড়ক, ভাটিয়ারি, আনন্দ ভূবন, শিশু পার্ক সবখানেই ছিলো উপচেপড়া ভিড়। নতুন পোশাকে শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণী, নারী-পুরুষ এসব বিনোদন কেন্দ্রে ঘুরে ঘুরে সময় কাটাচ্ছেন।

শিশুদের উপস্থিতিতে সবচেয়ে প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে বিনোদন কেন্দ্রগুলো। এদিক-সেদিক দৌঁড়-ঝাপ আর ঘুরে ঘুরে আনন্দ প্রকাশ করছে শিশুরা। প্রতিটি শিশুর পেছনে দেখা যাচ্ছে, তাদের বাবা-মাকে।

শিশুরা যেমন দল বেঁধে এসেছিল, তেমন এসেছিল বাবা-মার হাত ধরেও। ব্যাংক কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম স্ত্রী আর ১০ বছরের শিশু কন্যা নুসরাতকে নিয়ে বেড়াতে আসেন শিশু মেলায়।

তিনি বলেন, ব্যস্ততার কারণে পরিববার পরিজন নিয়ে তেমন একটা ঘুরতে বের হওয়া হয় না। তাই আজ ঈদের ছুটিতে দুপুরের খাওয়ার পর পরিবারকে নিয়ে বের হয়েছি। সন্ধ্যা পর্যন্ত আমরা ঘুরব ও মজা করব।

ফয়েস লেক ১চিড়িয়াখানায়ও দর্শনার্থীর উপচেপড়া ভিড় ছিল। বিভিন্ন খাঁচার সামনে দেখা গেছে নানাবয়সী মানুষের ভীড়। রয়েল বেঙ্গল টাইগার, বানরের খাঁচা আর রাসায়নিকভাবে সংরক্ষণ করা বিভিন্ন প্রাণি দেখতে চিড়িয়াখানার প্রাণি জাদুঘরে ভিড় ছিল উল্লেখযোগ্য।

বানরের বাঁদরামি, বাঘ-সিংহের গর্জন, মায়াবী চিত্রা হরিণ, পেঁচিয়ে পড়ে থাকা সাপের আলসেমি, কুমির, ময়ূরের পেখম ছড়ানোর ফ্যাশন শোতে মুগ্ধ দর্শনার্থীরা।

পতেঙ্গায় এক ব্যবসায়ী বলেন, ঈদের আগের কয়েক দিন বৃষ্টি ছিল তাই দর্শনার্থীর উপস্থিতি নিয়ে শঙ্কায় ছিলাম। তবে ঈদের দিন আবহাওয়া ভালো থাকায় পার্কে দর্শনার্থীর ভিড় অনেক। বিভিন্ন উদ্যানে দেখা গেছে বিনোদনপ্রিয় মানুষের ভিড়।