উপকূলীয় বনবিভাগের লাখ টাকার গাছ লুট

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ৩০ ডিসেম্বর , ২০১৭ সময় ০৯:৩২ অপরাহ্ণ

সেলিম উদ্দিন, কক্সবাজার প্রতিনিধি, কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওতে উপকূলীয় বন বিভাগের লাখ টাকা মূল্যের শতাধিক গাছ লুট করেছে কাঠ পাচারকারী চক্র। সংবাদ পেয়ে সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষ অভিযানের নামে আইওয়াশ করলেও লুটকৃত গাছ উদ্ধারে কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলে জানান স্থানীয়রা। শনিবার ৩০ ডিসেম্বর সকালে ঈদগাঁও-চৌফলদন্ডী উপকূলীয় সড়কের জালালাবাদ পালাকাটা অংশে এ লুটেরা ঘটনা ঘটে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, জালালাবাদ ইউনিয়নের বটতলী পাড়ার নাজিম উদ্দিনের নেতৃত্ব শতাধিক সশস্ত্র ভাড়াটিয়া কাঠ পাচারকারী চক্র ভোর থেকে উক্ত সড়কে এক যুগ পূর্বে উপকূলীয় বনবিভাগের রোপিত কয়েক লাখ টাকা মূল্যের বড় আকারের শতাধিক গাছ কেটে পাচার শুরু করে। ভোর থেকে দুপুর পর্যন্ত পরিবেশ রক্ষায় ও জনস্বার্থে সরকারের রোপিত বিপুল সংখ্যক গাছ কেটে ফেলার দৃশ্য দেখে পথচারী ও এলাকাবাসী হতবম্ভ হয়ে পড়ে। কিন্তু সশস্ত্র পাচারকারীদের ভয়ে কেউ মুখ খুলেনি। এ দীর্ঘ সময় পর্যন্ত গাছ কর্তন সংবাদ পেয়ে সকাল ১১টার দিকে কক্সবাজার থেকে বন বিভাগের লোকজন পুলিশের সহযোগিতায় ঘটনাস্থলে পৌঁছার পূর্বেই কয়েক লাখ টাকা মূল্যের শতাধিক গাছ কেটে ঈদগাঁও বাজারে গত সপ্তাহে ভ্রাম্যমান আদালত কতৃক সীলগলা করে দেয়া অবৈধ একটি করাত কলে পাচার করে দেয়। এ সংবাদ জেনেও অভিযানে আসা বন বিভাগের কর্মকর্তারা রহস্যজনক কারণে উক্ত কাঠ উদ্ধার ও চিহ্নিত কাঠ পাচারকারীদের আটকে অভিযান চালায়নি। নামেমাত্র পাচারকৃত গাছের কিছু ডালাপালা জব্দ দেখিয়ে দায়সারে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, লুটকৃত শতাধিক গাছের প্রতিটার মূল্য ১৫ থেকে ২০ হাজার টাকা পর্যন্ত হতে পারে। সম্প্রতি চিহ্নিত এ কাঠ পাচারকারী চক্র স্থানীয় উপকূলীয় বনবিট কর্মকর্তা ও প্রভাবশালীদের মোটা অংকের টাকায় বশে এনে দিবালোকে পরিবেশ বিধ্বংসী এ অপকর্মে মেতে উঠে। এদিকে অভিযানকালে এ দূর্নীতিবাজ বিট কর্মকর্তা সাধারণ এক বন প্রহরীকে রেঞ্জকর্মকর্তা হিসেবে জনসম্মুখে উপস্থাপন করে আইওয়াশ করে বলে গুরুতর অভিযোগ তুলছে সচেতন লোকজন। অভিযোগ উঠা বিট কর্মকর্তা শাহ আলমের মোবাইলে বন্ধ থাকায় বক্তব্য নেয়া সম্ভব হয়নি।


আরোও সংবাদ