উত্তর পতেঙ্গায় ৪৮টি প্রকল্পে ৯ কোটি ৫৯লক্ষ টাকার উন্নয়ন হয়েছে

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৭ নভেম্বর , ২০১৪ সময় ১০:২৭ অপরাহ্ণ

সড়ক নির্মান কাজের শুভ উদ্বোধন করলেন সিটি মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম


চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেছেন, ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডে বিগত ৪ বছরে ৪৮টি প্রকল্পে ৯ কোটি ৫৮লক্ষ ৭০ হাজার টাকার উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। তিনি বলেন, পতেঙ্গা সিটি কর্পোরেশন কলেজকে ডিগ্রীতে উন্নয়ন করার প্রক্রিয়া চলছে। মেয়র বলেন, রাস্তা সম্প্রসারণ, নালা-নর্দমা নির্মাণ, খাল খনন, শিক্ষা ভবন নির্মাণ সহ ৪০নং ওয়ার্ডে আলি-গলি রোড গুলোর উন্নয়ন করা হচ্ছে। তিনি বলেন, নগরবাসীর দেয়া করের এক একটি টাকা ও যাতে অপচয় না হয় সেদিকে নজর রেখেই স্বচ্ছতা-জবাবদিহীতার উপর ভিত্তি করে সিটি কর্পোরেশন পরিচালিত হচ্ছে। তিনি খাল-নালা-নদর্মা ও যত্রতত্র ময়লা আবর্জনা ফেলা থেকে বিরত থাকতে নগরবাসীর প্রতি আহবান জানান। মেয়র নগরবাসীর সেবা কার্যক্রমে দলমত নির্বিশেষে সকলের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন। ৭ নভেম্বর ২০১৪খ্রি. বিকেলে নগরীর ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের হাদির পাড়া ফলক উন্মোচন ও মোনাজাতের মধ্যদিয়ে সড়কের নির্মান কাজ উদ্বোধন উপলক্ষে আয়োজিত সুধি সমাবেশে সিটি মেয়র এসব কথাবলেন। পরে মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম মাটি কেটে ও মোনাজাতের মধ্য দিয়ে রাস্তার নির্মান কাজের শুভ উদ্বোধন করেন। উল্লেখ্য যে, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের অর্থায়নে ৩০ লক্ষটাকা ব্যয়ে ৬ শতফুট দৈর্ঘ্য ও ২০ ফুট প্রস্থ হাদির পাড়া সড়কটির উন্নয়ন কাজ হাতে নেয়া হয়েছে। হাদির পাড়া সড়কে নির্মান কাজ উদ্বোধনের সময় স্থানীয় কাউন্সিলর হাজী আবদুল বারেক কোম্পানী, মহিলা কাউন্সিলর মিসেস শাহানুর বেগম, চসিক সচিব রশিদ আহমদ, তত্বাবধায়ক প্রকৌশলী মো. এয়াকুব নবী, এলাকার সমাজ সেবক মো.সাহাব উদ্দিন, আবু জাফর, মো.সোলাইমান, মো.সাইফুল ছাবের, মো.হারুন, মো.জসিম উদ্দিন, মো.ফোরকান, মো.আকবর, মো.ইকবাল, এয়ার মোহাম্মদ,মো.মফিজ, মো.ইউসুফ, মো.আবদুল মোমেন, মওলানা মোহাম্মদ নোমান সহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন।
চট্টগ্রাম-০৭ নভেম্বর ২০১৪খ্রি.

৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডে মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচনের ৪র্থ বছর পূর্তি অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেছেন, নগরবাসীকে সেবা দেয়ার জন্যই আমাকে মেয়র নির্বাচিত করেছেন। তাদের দেয়া দায়িত্বকে আমানত করে বিগত সাড়ে চার বছর সময়ে আন্তরিকতার সাথে নগরবাসীর দোড় গোড়ায় সেবা পৌছে দেয়ার চেষ্টা করেছি। কতটা সফল হয়েছি তার বিচার ভার সম্মানিত নাগরিকদের উপর। মেয়র বেলন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহী’র উপর দাড় করানো হয়েছে। তিনি বলেন, এ সময়ে প্রায় ৯শত কোটি টাকার উন্নয়ন কাজ করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, পুল, কালভার্ট, রাস্তাঘাট, নালা-নর্দমা, শিক্ষা ভবন, ষ্টাফ কোয়াটার নির্মাণ সহ নগরীর অবকাঠামোগত উন্নয়ন করা হয়েছে। মেয়র বলেন, ৪০নং ওয়ার্ডে প্রায় ৯কোটি ৫৮লক্ষ ৭০হাজার টাকা ব্যয়ে ৪৮টি উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে। মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেন, বিগত ৪ বছর সময়ের মধ্যে ২৫ নং ওয়ার্ডে উচ্চ বিদ্যালয়, ৩৪নং ওয়ার্ডে উচ্চ বিদ্যালয় , ২০ নং ওয়ার্ডে কায়সার নিলুফার কলেজ, ২৩নং ওয়ার্ডে দেওয়ান হাট কলেজ, ৩নং ওয়ার্ডে মহিলা কলেজ, ২৭নং ওয়ার্ডে কমার্স কলেজ নতুন করে প্রতিষ্ঠা করা হয়। এ ছাড়াও অপর্নাচরণ, কাট্টলী, হোসেন আহাম্মদ চৌধুরী, রেলওয়ে হাসপাতাল কলোনী ও পূর্ব বাকলীয়া স্কুল কে কলেজে উন্নীত করা হয়। মেয়র বলেন, সরাইপাড়া কলেজ, পতেঙ্গা মহিলা কলেজ, কুলগাঁও কলেজ ও পোস্তার পাড় আছমা খাতুন কলেজ কে ডিগ্রী পর্যায়ে উন্নীত করা হয়।
নগরবাসীর ঘরে ঘরে শিক্ষার আলো পৌছে দিতে অপর্নাচরণ, কাপাসঘোলা, সরাই পাড়া, কূলগাঁও ও কৃষ্ণ কুমারী স্কুল গুলোতে ডাবল শিফট চালুকরা হয়েছে। মেয়র বলেন, টেকনিক্যাল শিক্ষার জন্য দেওয়ান হাটে টেকনিক্যাল ইনস্টিটিউট চালু করা হয়েছে। কুয়াইশ বুড়িশ্চর শেখ মোহাম্মদ কলেজে দুই বিষয়ে অনার্স কোর্স চালু করা হয়েছে। ৫টি স্কুলে মাল্টিমিডিয়া ভিত্তিক শ্রেণী চালু করা হয়েছে। মেয়র বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কপোরেশনের শিক্ষা কার্যক্রম প্রশংসার দাবী রাখে। তিনি বলেন, স্বাস্থ্য সেবায় সিটি কর্পোরেশনের আবদান দেশ ও বিদেশে প্রশংসিত হচ্ছে। তিনি বলেন, নাগরিকদের জন্য চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন ৪টি মাতৃসদন হাসপাতাল, ১টি জেনারেল হাসপাতাল, ২০টি দাতব্য চিকিৎসালয়, ২৫টি আরবান প্রাইমারী হেলথ কেয়ার চিকিৎসালয়, ১টি খত্না কেন্দ্র, ১টি হোমিওপ্যাথিক মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল, ৯টি হোমিওপ্যাথিক দাতব্য চিকিৎসালয় পরিচালনা করছে। মেয়র বলেন, ইনষ্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি, মিডওয়াইফারী ইনষ্টিটিউট পরিচালনা করে সিটি কর্পোরেশন স্বাস্থ্য সেবায় বিরল অবদান রেখে যাচ্ছে। তিনি বলেন, জন্ম নিবন্ধন, মৃত্যুনিবন্ধন, টিকা দান, কৃমি নিয়ন্ত্রন, হাম রুবেলা টিকাদান স্বাস্থ্য সেবায় অন্যতম। মেয়র তার সাড়ে চার বছরে গাড়ী সংযোজন, জলাবদ্ধতা নিরসনের কর্মকান্ড, কর্মকর্তা কর্মচারীদের চাকুরী স্থায়ী করন , নিয়োগদান, সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধিকরণ, দরিদ্র-দুঃস্থজন গোষ্টীর জন্য গৃহীত কর্মসুচির আওতায় প্রতিবন্ধি পূনবার্সন, ভাসমান-ভবঘুরে ছিন্নমূল পূনর্বাসন, রাত্রিযাপন, হিজড়া সম্প্রদায়ের জীবন মান উন্নয়নে অবদান সর্বত্র স্বীকৃত। মেয়র বলেন, শ্রমজীবীদের বিশ্রামে শেড নির্মাণ, পাহাড়ের পাদদেশে বসবাসকরীদের পূনর্বাসনে আশ্রয় কেন্দ্র নির্মান করা হয়েছে। তিনি বলেন, বিগত ৪ বছরে মসজিদ, এবাদত খানা, ফোরকানিয়া মাদ্রাসা, ঈদগাহ, কবরস্থান ইত্যাদি ব্যাপক উন্নয়ন ও সংষ্কার করা হয়েছে। মেয়র বলেন, সনাতন ধর্মীয় সম্প্রদায়ের জন্য ১, ৩৪, ৩৭ ও ৫ নং ওয়ার্ডে মন্দিও, শ্বশান নির্মান করা হয়েছে। এ ছাড়াও ১৪, ২২ ও ৩৬ নং ওয়ার্ডে নতুন করে সংস্কৃতি টোল চালু করা হয়েছে। মেয়র মনজুর আলম বলেন, ১৯৭১ সনের মহান মুক্তিযুদ্ধ আমাদের জাতীয় ইতিহাসে একটি গৌরব গাথাঁ। বীর মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতি সম্মান রেখে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বীর মুক্তিযোদ্ধাদরে কল্যানে কবরস্থান প্রতিষ্ঠা, বধ্যভূমি সংরক্ষন, ভাষা শহীদ ও মুক্তিযোদ্ধাদের নামে রাস্তার নামকরন, বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সংবধর্না প্রদান, সম্মানি ভাতা প্রদান, স্মারক সম্মাননা প্রদান এবং শ্রম জীবীদের সংবর্ধনা ও সম্মানী প্রদান করা হচ্ছে। মেয়র বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনকে অটোমেশনের আওতায় আনা হচ্ছে। ইতিমধ্যে কয়েকটি বিভাগকে অটোমেশনের আওতায় নিয়ে আসা হয়েছে। তিনি তাঁর সাড়ে চার বছরের কার্যক্রমকে মূল্যায়ন করার বিষয়টি নগরবাসীর বিবেকের নিকট উপস্থাপন করেন। ৭নভেম্বও ২০১৪খ্রি. বিকেলে নগরীর ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা ওয়ার্ডের মুনভিউ কমিউনিটি সেন্টারে আয়োজিত ৪র্থ বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান ও সুধি সমাবেশে মেয়র এ সব কথা তুলে ধরেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ৪০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর হাজী আবদুল বারেক কোম্পানী। এ অনুষ্ঠানে পাওয়ার পয়েন্ট ৪০নং ওয়ার্ড সহ নগরীর বিভিন্ন কার্যক্রমের উপর সচিত্র প্রতিবেদন প্রদর্শন করা হয়। তাছাড়াও ১টি উন্নয়ন চিত্রের বই সাধারণ নাগরিকদের নিকট বিতরণ করা হয়। উন্নয়ন প্রতিবেদন উপস্থাপন ও বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন মহিলা কাউন্সিলর মিসেস শাহনুর বেগম, সচিব রশিদ আহমদ, মেয়রের একান্ত সচিব মোহাম্মদ মনজুরুল ইসলাম, রাজনীতিক মোহাম্মদ সাহাবুদ্দিন, মো. আবু জাফর, আবুল হোসেন, সাইফুল ইসলাম ছাবের, আবু বকর, মো.শাহজাহান, পেয়ার আহমদ, মো.হারুন, মো. ইকবাল, আবদুল মালেক ফারুকী প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মো.সাইফুদ্দিন।
অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াত ও ৪০ নং ওয়ার্ডে বিগত সাড়ে চার বছরে মৃত্যু বরন কারীদের আত্মার মাগফেরাত কমনা করা হয়।