উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে ১৩২টি প্রকল্পে ২১কোটি টাকা ব্যয়িত হয়েছে

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ২৫ ডিসেম্বর , ২০১৪ সময় ০৭:৪৫ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেছেন, বিগত ৪ বছরে ১০নং ওয়ার্ড থেকে সরকারী ও ব্যক্তি মালিক মিলে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন রাজস্ব পেয়েছে ২কোটি ৮৬ লক্ষ ৭শত ৯৬টাকা। অথচ এ ওয়ার্ডে উন্নয়ন ব্যয় হয়েছে ১৩২টি প্রকল্পের আওতায় ২১কোটি ৩৮লক্ষ ৫১হাজার টাকা।

মেয়র বলেন, অনুন্নত ও উপকূলীয় ওয়ার্ড উত্তর কাট্টলীতে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সেবার স্বার্থে কার্পেটিং রোড, সংস্কার, প্রশস্তকরন, উচুঁকরন, সি সি রোড, পুরোনো রাস্তা সংস্কার, ড্রেন নির্মাণ, রিটেইনিং ওয়াল নির্মাণ, মসজিদ ও কবর স্থান নির্মাণ, মাটি উত্তোলন, অন্যান্য কাজে এ অর্থ ব্যয়িত হয়েছে।

তিনি বলেন, নাগরিক সেবার লক্ষে শিক্ষা বিস্তার ও স্বাস্থ্য সেবাকে অধিক গুরুত্ব দিচ্ছে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন। মেয়র বলেন, কাট্টলী সিটি কর্পোরেশন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়কে কলেজে উন্নিত করা হয়েছে। কর্নেল জোনস সড়ক থেকে সাগরিকা জহুর আহমদ স্টেডিয়াম পর্যন্ত নতুন একটি রাস্তার নির্মাণ করা হয়েছে। এ সড়কটিকে মুক্তিযোদ্ধা সড়ক নামকরনের প্রস্তাব চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে।

তিনি বলেন, ইতিহাস ও ঐতিহ্যের দিক দিয়ে কাট্টলীর গৌরব রয়েছে। মেয়র বলেন, মেয়র হওয়ার পূর্বেই আমাদের পিতা-মাতার নামে প্রতিষ্ঠিত আলহাজ্ব মোস্তফা-হাকিম ওয়েলফেয়ার ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে অনার্স কোর্স সহ কলেজ, হাইস্কুল, কিন্ডার গার্টেন, দাতব্য চিকিৎসালয়, এতিম খানা, মসজিদ, মাদ্রাসা এ ওয়ার্ডে প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

তিনি আরো বলেন, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন আগ্রাবাদ এক্সেস রোডের নাম বীর মুক্তিযোদ্ধা এ বি এম মহিউদ্দিন চৌধুরী রোড, ঈদগা থেকে হালিশহর রোডকে মুক্তিযোদ্ধা সড়ক এবং ঈদগা চত্ত্বরকে মুক্তিযোদ্ধা স্মরনী এবং বিপ্লবী বিনোধ বিহারীর ভাস্কর্য স্থাপনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেছে। এ সকল সিদ্ধান্ত অবিলম্বে কার্যকর করা হবে।

মেয়র বলেন, ১৯৭১ সনের বধ্যভুমি সংরক্ষন, শহীদ মুক্তিযোদ্ধাদের নামে ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে রাস্তার নামকরন করা হবে। তিনি বলেন, অবকাঠামোগত উন্নয়ন, যোগাযোগের উন্নয়ন, শিক্ষা ভবন নির্মাণ, পরিবেশ উন্নয়ন ছাড়াও চট্টগ্রামকে বিশ্বে একটি পর্যটন নগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠার চেষ্টা চলছে। তিনি বলেন, বিগত ৪ বছরে ৯ শত কোটি টাকার উন্নয়ন হয়েছে। বিদ্যুৎ খাতে ১৮৫টি প্রকল্পে ২১কোটি ২২ লক্ষ ৩৯ হাজার টাকা ব্যয় করা হয়েছে। এ ছাড়াও যান্ত্রিক শাখায় ৩০৩টি ইকুইপমেন্টের বিপরীতে ৪১কোটি ৩৭লক্ষ ৪৫হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে। মেয়র বলেন, বর্তমান শুষ্ক মৌসুমে নালা-নর্দমা থেকে মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন অপসারন, খাল থেকে মাটি ও আবর্জনা উত্তোলন এবং অপসারন কার্যাক্রম অব্যাহত আছে। তিনি জনকল্যান, ধর্মীয় সেবা সহ নাগরিক স্বার্থে চলমান সেবাধর্মী সকল কর্মকান্ডে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের মেয়র ও কাউন্সিলর নির্বাচনের ৪ বছর পূর্তি উপলক্ষে ২৫ ডিসেম্বর ২০১৪খ্রি. বৃহষ্পতিবার সন্ধ্যায় নগরীর ১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ডে নুুরুল হক চৌধুরী উচ্চবিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত সুধি সমাবেশে প্রধান অতিথির ভাষনে সিটি মেয়র এ সব কথা বলেন। সুধি সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ১০নং উত্তর কাট্টলী ওয়ার্ড কাউন্সিলর নিছার উদ্দিন আহমেদ মঞ্জু।

এতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন ৯, ১০ ও ১১ নং সংরক্ষিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর মিসেস আরজু সাহাবুদ্দীন। সুধি সমাবেশে রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবী নেতৃবৃন্দের মধ্যে বক্তব্য রাখেন তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী এয়াকুব নবী, কমান্ডার সাহাবুদ্দিন, আব্বাস রশিদ, আবুল কালাম আবু, লোকমান আলী, ইনতেখার আলম, এবাদুর রহমান, শামসুল আলম, ডা.শাহাদাত হোসেন, বুলবুল সেন প্রমুখ।

সুধি সমাবেশের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলোয়াতের পর বিগত ৪ বছর ধরে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কর্মকান্ড ভিডিও ডকুমেন্ট বড় পর্দায় প্রদর্শন করা হয় এবং ছাপানো প্রতিবেদনের বই বিতরন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন সংগঠনের পক্ষ থেকে সিটি মেয়র ও কাউন্সিলর কে ফুলেল শুভেচ্ছায় বরণ করা হয়।


আরোও সংবাদ