ঈদ জামাত ও বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় প্রস্তুত চসিক

প্রকাশ:| শনিবার, ৪ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:৪৯ অপরাহ্ণ

৬ অক্টোবর ২০১৪খ্রি. সোমবার পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে। মুসলমানদের বৃহৎ ধর্মীয় এ ঈদে ব্যাপক হারে পশু কোরবানী হবে। ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের ঈদের নামাজ আদায় ও কুরবানীর পশুর নাড়ীভূঁড়ি সহ বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন সার্বিক ভাবে প্রস্তুতি গ্রহন করেছে।
৪ অক্টোবর ২০১৪খ্রি. শনিবার সকালে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোনেশনের মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম, কউন্সিলর, সিটি কর্পোরেশনর দায়িত্বশীল কর্মকর্তাদের সাথে ঈদ জামাত ও বর্জ ব্যবস্থাপনার বিষয়ে প্রস্তুতি মূলক বৈঠক করেন। বৈঠকে সিটি মেয়র আলহাজ্ব মোহাম্মদ মনজুর আলম বলেন, নগরীর জমিয়াতুলফালাহ্ জাতীয় মসজিদ ময়দানে সকাল ৭ টা ৪৫ মিনিটে প্রথম ও ৮টা ৩০মিনিটে দ্বিতীয় ঈদ জামাত সহ বাকলিয়া সিটি কর্পোনেশন ষ্টেডিয়াম, লালদিঘী জামে মসজিদ এ কেন্দ্রীয় ভাবে ঈদ জামাত সহ নগরীর ১৫৪টি স্থানে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ব্যবস্থাপনায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হবে। তিনি বলেন, ওয়ার্ড ভিত্তিক ঈদ জামাত গুলো তদারকির দায়িত্বে আছেন সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ড কাউন্সিলর। ওয়ার্ড কাউন্সিলগণ যে জামাতে ঈদের নামাজ আদায় করবেন সেটিই ওয়ার্ডের প্রধান জামাত হিসেবে গণ্য হবে।
বৈঠকে মেয়র বলেন, পবিত্র ঈদের দিন বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় ৩৫টি ভাড়ার গাড়ী সহ মোট ১৫০টি ট্রাক বর্জ্য সংগ্রহের দায়িত্বে থাকবে। এ ছাড়াও ১০টি কন্টেইনার মোভার, ১৫টি ট্রলীগাড়ী, ৫০টি ভ্যানগাড়ী সার্বক্ষনিক ভাবে বর্জ্য অপসারনে নিয়োজিত থাকবেন। বর্জ্য অপসারনে ২ হাজার সেবক নিয়োজিত থাকবে। তিনি বলেন, নগরীর দামপাড়ায় সার্বক্ষনিক কন্ট্রোল রুম মেডিকেল টীম প্রস্তুত থাকবে। জীবানু নাশ করার জন্য যেখানেই পশু জবাই হবে সেখানেই ব্লিচিং পাউডার ছিটানো হবে। বৈঠকে মেয়র বলেন, বর্জ্য ব্যবস্থাপনা মনিটরিং এর জন্য নগরীর ৪১টি ওয়ার্ডকে ৪ ভাগ করে বর্জ্য ব্যস্থাপনা ষ্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান সহ ৪ জোনে ৪জন কাউন্সিলরকে চেয়ারম্যান করে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে পূর্বজোনে ৩৪নং পাথর ঘাটা ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ ইসমাইল, উত্তর জোনে ৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোহাম্মদ আজম, পশ্চিম জোনে ১১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মোরশেদ আকতার চৌধুরী এবং দক্ষিন জোনে ৩৬নং ওয়ার্ড কাউন্সির জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরীকে। মেয়র বলেন, পবিত্র ঈদুল আজহা ও দূর্গোৎসব একই সময়ে হওয়ায় কিছুটা বাড়তি চাপ থাকা সত্ত্বেও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নগর বাসীর স্বার্থে সকল ধরনের প্রস্তুতি গ্রহন করেছে। মেয়র নগর বাসীর সহযোগিতা কামনা করে বলেন, কুরবানীর পশুর রক্ত পরিষ্কার ও নাড়িভূঁড়ি নির্ধারিত ডাষ্টবিনে ফেলতে হবে। বৈঠকে মেয়র জনপ্রতিনিধি কাউন্সিলর এবং সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারী ও সেবকদের দায়িত্বশীল হয়ে কাজ করার আহবান জানান। বৈঠকে বর্জ্য ষ্ট্যান্ডিং কমিটির চেয়ারম্যান, ৪ জোনের চেয়ারম্যান, সংশ্লিষ্ট কাউন্সিলর ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।


আরোও সংবাদ