ঈদের বন্ধের পর সুশৃংখল ভাবে বিকেলে বসবে হকার

প্রকাশ:| সোমবার, ২৮ আগস্ট , ২০১৭ সময় ০৭:৫৫ অপরাহ্ণ

সিটি মেয়রের সাথে হকার নেতৃবৃন্দের সমন্বয় সভায় সিদ্ধান্ত

চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের সম্মেলন কক্ষে সিটি মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এর সাথে নগরীর হকার নেতবৃন্দ মতবিনিময় করেন। এ সময় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের কাউন্সিলর তারেক সেলায়মান সেলিম, হাসান মুরাদ বিপ্লব, নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মিসেস সনজিদা শরমিন, স্পেশাল ম্যাজিস্ট্রেট (যুগ্ম জেলা জজ) জাহানারা ফেরদৌস, কর্পোরেশনের সহকারী স্থপতি আব্দুল্লাহ আল ওমর, চট্টগ্রাম ফুটপাত হকার্স সমিতির সভাপতি নুরুল আলম লেদু, সাধারণ সম্পাদক মো. শালেকুর রহমান, সহ-সভাপতি মো. বেলায়েত হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জসিম উদ্দীন, মো. ইয়াছিন সোহেল, মো. হাসান মুরাদ, সহ সাংগঠনিক সম্পাদক মো. খোকন, অর্থ সম্পাদক মো. নাজির আকন, চট্টগ্রাম হকার্স লীগের সভাপতি নুর আহাম্মদ চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মো. হারুনুর রশিদ, সহ-সভাপতি এস এম সেলিম, অর্থ সম্পাদক স্বরূপ বড়–য়া, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কামাল, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. বেলাল হোসেন, সম্মিলিত হকার্স ফেডারেশনের সভাপতি মো. মিরন হোসেন মিলন, চট্টগ্রাম মেট্রো পলিটন হকার্স সমিতির সহ-সভাপতি মো. শাহ আলম ভূঁইয়া, মো. আবুল খায়ের টিটু, যুগ্ম সম্পাদক মো. জসিম উদ্দীন, হকার্স ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আবু বক্কার ছিদ্দিক, চট্টগ্রাম সিটি হকার্স লীগের সাধারণ সম্পাদক মো. আজগর আলী, সহ-সভাপতি সৈয়দ আবু নাছের, সহ সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ মো. জসিম উদ্দিন, প্রচার সম্পাদক মো. আবুল হোসেন উপস্থিত ছিলেন। আগামী ১ সেপ্টেম্বর থেকে পবিত্র ঈদ-উল আজহার বন্ধ থাকায় বন্ধের পর থেকে হকারা শৃংঙ্খলা বেষ্টনীর মধ্যে বিকেল ৫টা থেকে ব্যবসা করতে পারবে। এ ছাড়াও শুক্রবারও সরকারি ছুটির দিন সকাল ১০ টা থেকে এবং বৃহস্পতিবার বেলা ২টা থেকে সড়কের এক পাশে হকারা ব্যবসা পরিচালনার জন্য বসতে পারবে। তবে বাজারের উপর কোন হকার বসতে পারবে না। চসিক নিজ খরচে তাদের জন্য সুদর্শন ছাতা ও পরিচয় পত্র দিবে। ভিন্ন ভিন্ন নামের হাকার সংগঠন থাকায় তাদের নিজ নিজ সংগঠনের ব্যানারে জায়গা নির্ধারণ করা হবে। সমন্বয় সভায় মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দীন বলেন, ৪টি হকার মার্কেট নির্মাণের পরিকল্পনা আছে চসিকের। তিনি নগরীর সৌন্দর্য্য ও সাধারণের অবাধ যাতায়াত নির্বিঘœ করতে হকারদের সহযোগিতা চান। এ প্রসঙ্গে মেয়র বলেন, দেশের নাগরিক হিসেবে হকারদের পুনর্বাসনের বিষয়ে চসিক আন্তরিক