ঈদের আগে ভরিতে হাজার টাকা বাড়ল স্বর্ণের দাম

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১১:৪৭ অপরাহ্ণ

আন্তর্জাতিক বাজারে দরবৃদ্ধির কারণে দেশের বাজারে প্রায় হাজার টাকা বাড়ল স্বর্ণের দাম। বিশ্ববাজারের দামের সঙ্গে সমন্বয়স্বর্ণবার করতে নতুন করে মূল্যবান এ ধাতুটির দাম বাড়িয়েছে স্বর্ণ ব্যবসায়ীদের সংগঠন বাংলাদেশ জুয়েলারি সমিতি (বাজুস)। এতে ভালো মানের (২২ ক্যারেট) স্বর্ণের ভরিতে প্রায় হাজার টাকা বেড়েছে। আজ থেকে সারাদেশে নতুন এ দর কার্যকর হবে।
দাম বাড়ায় ভরিতে (১১.৬৬ গ্রাম) ৯৩২ টাকা বেড়ে ভালো মানের (২২ ক্যারেট) ভরিপ্রতি স্বর্ণের নতুন দাম দাঁড়িয়েছে ৪৯ হাজার ৫৫৫ টাকা। এর আগে যার মূল্য ছিল ৪৮ হাজার ৬২২ টাকা। মান ভেদে বিভিন্ন ক্যাটাগরির স্বর্ণের দাম বেড়েছে ভরিতে সর্বনিম্ন ৭০০ টাকা থেকে সর্বোচ্চ ৯৩২ টাকা। তবে প্রতি ভরি ১ হাজার ৩৯৯ টাকায় স্থির রয়েছে রূপার দাম।
এ বিষয়ে বাজুস সাধারণ সম্পাদক আমিনুল ইসলাম শাহীন বলেন, আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সঙ্গতি রেখেই দেশের বাজারে স্বর্ণের দাম নির্ধারণ করা হয়। বিশ্ববাজারে দাম নির্ভর করে বিশ্ব অর্থনীতি ও রাজনৈতিক পরিস্থিতির ওপর। কয়েক দিন আগে আন্তর্জাতিক বাজারে দাম কমায় দেশে সর্বোচ্চ স্বর্ণের দাম সংশোধন হয়। এখন আবার আন্তর্জাতিক বাজারে দাম বাড়ছে। তাই বাজুসও দাম বাড়িয়েছে। তবে দাম বাড়ায় স্বর্ণের বিক্রি কমে যাবে বলে মনে করেন ব্যবসায়ীরা। কিছুদিন আগে দাম কমায় তারা খুশি হয়েছেন। এ ভেবে যে মানুষ স্বর্ণ কিনতে আবারো আগ্রহী হয়ে উঠবে। তারা বলছেন কয়েকদিন পরই ঈদ। এসময় দাম বাড়ায় মানুষের মাঝে স্বর্ণের প্রতি আগ্রহ খানিকটা কমে যেতে পারে। যা বিক্রিতে ভাটা আনতে পারে।
নতুন দাম হিসেবে, ২২ ক্যারেট প্রতিগ্রাম স্বর্ণের দাম প্রতিগ্রাম ৪ হাজার ২৫০ টাকা হিসেবে প্রতিভরি ৪৯ হাজার ৫৫৫ টাকা, ভরিতে বেড়েছে ৯৩২ টাকা। ২১ ক্যারেট প্রতিগ্রাম ৪ হাজার ৬০ টাকা হিসেবে ভরি ৪৭ হাজার ৩৩৯ টাকা, ভরিতে বেড়েছে ৮৭৪ টাকা। ১৮ ক্যারেট প্রতিগ্রাম ৩ হাজার ৪৮০ টাকা হিসেবে ভরি ৪০ হাজার ৫৭৬ টাকা, ভরিতে দাম বেড়েছে ৭৫৮ টাকা। সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণ প্রতিগ্রাম দাম ২ হাজার ৪৩০ টাকা হিসেবে ভরির দাম ২৮ হাজার ৩৩৩ টাকা, বেড়েছে ৮১৬ টাকা।
এর আগে প্রতিভরি দাম ছিল, ২২ ক্যারেট ৪৮ হাজার ৬২২ টাকা, ২১ ক্যারেট ৪৬ হাজার ৪৬৫ টাকা, ১৮ ক্যারেট ৩৯ হাজার ৮১৮ টাকা এবং সনাতন পদ্ধতির স্বর্ণের দাম ছিল ভরি ২৭ হাজার ৬৩৪ টাকা।
প্রসঙ্গত, বিশ্ববাজারে হংকং, দুবাই, নিউইয়র্ক, লন্ডন, জুরিখ সর্বত্র প্রায় একই রকম দাম থাকলেও দেশে দাম নির্ধারণের ক্ষেত্রে দুবাইয়ের মূল্যকে মানদ- হিসেবে বিবেচনা নেয়া হয় বলে জানিয়েছে জুয়েলার্স সমিতি।