ঈদগাঁও ডিসি সড়কের বেহাল দশা

প্রকাশ:| মঙ্গলবার, ৭ জুন , ২০১৬ সময় ১১:৩৯ অপরাহ্ণ

ডিসি বেহাল দশা
সেলিম উদ্দিন, ঈদগাঁও প্রতিনিধি:
নির্মাণাধীন কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও ডিসি সড়কের বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। জন ও যান চলাচলে চরম দুর্ভোগে পড়েছে। পাশাপাশি সড়কের পার্শ্ববর্তী গড়ে উঠা মূল দোকানের উপভাড়ায় ঝুপড়ি দোকানের কারণে সাধারণ লোকজন ও ছোট-বড় যানবাহন যাতায়াত করতে নানাভাবে হিমশিম খাচ্ছে। এমনকি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা ও যানজট আর ময়লাযুক্ত পানির কবলে পড়তে দেখা যায়। এছাড়াও রমজানের বাজার করতে আসা বৃহত্তর এলাকার লোকজন চলাচলে দুর্ভোগ আর দূর্গতি চরম পর্যায়ে পৌছেছে।
জানা যায়, জেলা সদরের বাণিজ্যিক কেন্দ্র ঈদগাঁও ডিসি সড়কটি দীর্ঘদিন পর বর্ষাকালে সড়কের কাজ করায় পথচারী ও সাধারণ লোকজনের মাঝে বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। কাঠ ফাটা রোদের সময় ডিসি সড়কের প্রধান কাজ না করে বর্ষাকালে করার ফলে পবিত্র রমজান মাসে লোকজন চলাচলে নানা বেকায়দায় পড়েছেন বলেও জানান একাধিক পথচারী। পাশাপাশি পুরো রাস্তা জুড়ে যত্রতত্র স্থানে বৃষ্টির পানি জমে গিয়ে ময়লা আর কর্দমাক্তে পরিণত হয়ে পড়েছে। অন্যদিকে বৃহত্তর ঈদগাঁও তথা ছয় ইউনিয়নের প্রত্যন্ত গ্রামগঞ্জ থেকে আসা লোকজন প্রায়শঃ দূর্ভোগের শিকার হচ্ছে। এমনকি ঈদগাঁওয়ের ভোমরিয়াঘোনা, মাছুয়াখালী, কালিরছড়া, ইসলামাবাদের গজালিয়া, রামুর ঈদগড়, আর নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশারী ও চকরিয়ার খুটাখালী, রামুর রশিদ নগরসহ প্রত্যন্ত গ্রামগঞ্জ থেকে এসব তরিতরকারী নানা ফলফলাদি ব্যবসায়ীরা অল্পদামে কিনে এনে ঈদগাঁও বাসস্টেশনে ও বাজারে ডিসি সড়কের পাশ ঘেঁসে বসে টু পাইস কামিয়ে নিচ্ছে। এসব বিষয়ে দেখার কেউ না থাকায় হতাশ হয়ে পড়েছেন দূর-দূরান্ত থেকে বাজারে আসা লোকজন। অন্যদিকে বাজারে বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যসহ মালবাহী দূর পাল্লার যানবাহন আসতে চরম অসুবিধায় পড়তে হচ্ছে। এ দু’ সমস্যায় জর্জরিত প্রতিনিয়ত চলাচলরত লোকজন। এসব থেকে পরিত্রাণ পাওয়ার কোন উপায় নেই বলে জানান অনেক পথচারী। এ বিষয়ে পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হলেও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নেই নজর। বাজারে রমজান মাসের কেনাকাটা করতে আসা সাবরিনা, কাজলিসহ বেশ ক’জন নারী ক্রেতার মতে, বাজারে নেই কোন হাটাচলার পরিবেশ। নির্মাণাধীন ঈদগাঁও ডিসি সড়কটি বেহাল অবস্থার সৃষ্টি হওয়ায় চলাচল করতে গিয়ে সাধারণ লোকজন পবিত্র মাসেও নানাভাবে কষ্ট পাচ্ছে। এ ব্যাপারে ডিসি সড়ক নির্মাণ ঠিকাদারের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা করলে সংযোগ না পাওয়ায় তার বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি। অন্যদিকে এসব নিয়ে বাজার কমিটি পদক্ষেপ না নিলে হয়ত বাজারের অব্যবস্থাপনা থেকে যাবে। লোকজন চলাচলের দূর্গতি থেকে রক্ষা পাওয়ার লক্ষ্যে উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সুদৃষ্টি কামনা করেন ।