ইয়েমেনে হাউথিদের গোলাবর্ষণে শিশুসহ নিহত ৪৮

প্রকাশ:| সোমবার, ২০ জুলাই , ২০১৫ সময় ০৭:৩৮ অপরাহ্ণ

জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতির ঘোষণা উপেক্ষা করে ঈদের পরের দিনই ইয়েমেনের এডেনে ভারি গোলা বর্ষণ করেছে হাউথি বিদ্রোহীরা। এতে এখন পর্যন্ত ৪৮ জন নিহত হবার খবর পাওয়া গেছে। এদের মধ্যে শিশু অন্তত ১০। আহত হয়েছেন আরও ১২০ জন।

এদিকে সৌদি আরবের জিযান প্রদেশে একটি সেনাবাহিনীর ওয়াচ টাওয়ার উড়িয়ে দিয়েছে হাউথিরা। ইয়েমেনের বার্তা সংস্থা এই খবর জানিয়েছে। হাউথিদের হামলার প্রতিশোধ নিতে ইয়েমেনের সা’দা এবং ইবিব প্রদেশে আবারও বিমান হামলা চালিয়েছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট।

সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট যখন ইয়েমেনে হাউথিদের সরিয়ে দিতে একের পর এক হামলা চালিয়ে যাচ্ছে তখন হাউথি বিদ্রোহীরা রোববার সৌদি আরবের জিযান প্রদেশের একটি সেনাবাহিনীর ওয়াচ টাওয়ার মিসাইল হামলায় উড়িয়ে দেয়। ইয়েমেনীর বার্তা সংস্থা আল মাসিরাহর খবর অনুযায়ী জিযান ছাড়াও নাজরান প্রদেশে সেনাবাহিনীর অবস্থান লক্ষ্য করে হামলা চালায় তারা। এই হামলার পর সৌদি সরকারের পক্ষ থেকে কোনো বিবৃতি না দেয়া হলেও হাউথিরা সৌদি সরকারকে ইয়েমেনে হামলা করা থেকে বিরত থাকার জন্য সতর্কবাণী দেয়।

এদিকে জাতিসংঘের যুদ্ধবিরতি থাকা সত্ত্বেও ঈদের পরের দিন এডেনে নির্বাসিত সরকার আব্দ রাব্বু আল মানসুর পন্থীদের লক্ষ্য করে ভারি মর্টার শেল হামলা করে হাউথিরা। গত ক’মাস ধরেই হাউথি বিদ্রোহীদের কাছ থেকে এডেন নগরী পুনর্দখলে অভিযান চালিয়ে আসছে দেশটির সরকারি বাহিনী।

সৌদি নেতৃত্বাধীন আরব জোটের বিমান হামলায় বন্দর নগরীর বেশিরভাগ এলাকা হাউথিদের কাছে থেকে পুনর্দখল সম্ভব হয়েছে এবং এর মাধ্যমে কাঙ্ক্ষিত বিজয় অর্জিত হয়েছে, দেশটির নির্বাসিত সরকারের এমন দাবির তিন দিনের মাথায় এই হামলার ঘটনা ঘটলো। এতে হতাহতের বেশীরভাগই বেসামরিক নাগরিক বলে জানিয়েছে আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থাগুলো।

স্থানীয় এক ব্যক্তি বলেন, হাউথিরা বন্দরনগরী এডেনে বিপুল পরিমাণ পণ্যও আটকে রেখেছে। সেসব পণ্যের বেশীরভাগই শিশু খাদ্য।

হাউথিদের এমন জোরালো হামলার মুখে উঠে দাঁড়াতে তাইজ, সা’দা এবং ইবিব প্রদেশে রোববার বিমান হামলা চালিয়েছে সৌদি নেতৃত্বাধীন জোট। তবে এ হামলায়ও প্রাণ হারিয়েছেন বেশীরভাগ বেসামরিক নাগরিক।

জাতিসংঘের হিসাব অনুযায়ী ইয়েমেনে গত ৫ মাসে সাড়ে ৩ হাজার মানুষ নিহত হয়েছেন, যার অর্ধেকই বেসামরিক নাগরিক।