ইয়াবা ব্যবসায়ীদের হামলায় কিশোর গুরুত্বর আহত

প্রকাশ:| বুধবার, ১ নভেম্বর , ২০১৭ সময় ১০:২২ অপরাহ্ণ

                                নিজস্ব প্রতিবেদক উখিয়াঃ                                   উখিয়ায় নতুন ইয়াবা ব্যবসায়ীর আর্বিভাব ঘটছে প্রতিনিয়ত।বেকার যুবক থেকে শুরু করে ফার্নিচার ব্যবসায়ীরা জড়িয়ে পড়ছে মরণ নেশা এ অবৈধ ব্যবসায়।ধ্বংস হচ্ছে যুব সমাজ,শংকিত হয়ে পড়েছে স্কুল পড়ুয়া ছেলেদের অভিবাবকরা।জানা যায় দীর্ঘদিন ধরে উখিয়ার আম গাছতলা এলাকায় স্হানীয় ফার্নিচার ব্যবসার আড়ালে মোঃআকতার ও বেকার যুবক জুনু মিয়ার ছেলে ফিরোজ মরণ ঘাতক এ ইয়াবা ব্যবসা করে আসছে।স্হানীয়রা প্রতিবাদ করলে তাদের হুমকি দমকিও মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিল,তাই কেউ সহজে প্রতিবাদ করেনা।এরই ধারাবাহিকতায় গত ৩০ অক্টোবর রাত ৯ টার দিকে ঐ ইয়াবা ব্যবসায়ীদের অমানবিক নির্যাতনের শিকার হয়েছে শিলের ছড়া গ্রামের প্রবাসী ফরিদ আলমের ছেলে তারেকুর রহমান।গত ৩০ অক্টোবর দুপুরে থানা পুলিশের সহযোগীতায় স্হানীয়রা ওই কিশোর তারেককে উদ্ধার করে প্রথমে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।জেলা সদর হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে তার শরীরের বিভিন্ন স্হানে মারধর সহ পায়ুপথে সিদ্ধ ডিম প্রবেশ করা হয়েছে।বর্তমানে তাকে সাধ্যমত চিকিৎসা দেওয়া হয়েছে। তার অবস্তা গুরুত্বর হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ১ নভেম্বর চট্রগ্রাম চমেকে প্রেরণ করা হয়েছে।স্হানীয় সুত্রে জানা যায় গত ২৯ অক্টোবর রাত ৯ টার দিকে উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের শিলের ছড়া এলাকার প্রবাসী ফরিদ আলমের পুত্র তারেকুর রহমানকে একই এলাকার ইয়াবা ব্যবসায়ী আকতার ও ফিরোজ সহ আরো ৫/৬ জনের একটি ভাড়াটে সন্ত্রাসী দল জোর পূর্বক আমগাছ তলা নামক স্হানে ধরে নিয়ে যায়।ঘটনাস্থলে সন্ত্রাসীরা রাতভর তারেককে গাছে বেধে রেখে ওলটো অনৈতিক টাকা দাবী করে।সময় মতো টাকা না পেয়ে ইয়াবা ব্যবসায়ীরা তাকে ব্যাপক মারধরের পাশাপাশি তার পায়ুপথে ৫/৬ টি সিদ্ধ ডিম প্রবেশ করায়।এক পর্যায়ে নির্যাতনের মাত্রা শয্য করতে না পেরে তার মা নানার বাড়িতে থাকার সুবাদে তার হাতে ছিল বাড়ির চাবি।অবশেষে টাকা আদায় করতে সন্ত্রাসীরা নির্যাতনের শিকার তারেককে সাথে নিয়ে তার বাড়িতে প্রবেশ করে নগদ ৫৫ হাজার টাকাসহ ৫ ভরি স্বর্ণালংকার ও বিদেশ থেকে আনা ২ টি মোবাইল ফোন লুটে নিয়ে সাথে তারেককে ঘটনাস্থলে নিয়ে যায়।এদিকে বিষয়টি তারেকের মা সুফিয়া খাতুন জানতে পেরে ইয়াবা ব্যবসায়ীদের যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তারা অভিযোগ করবে না মর্মে খালি ষ্টাম্প দিয়ে ছেলেকে নিয়ে যেতে বলে।পরে ছেলেকে নির্যাতনের ঘটনাটি উখিয়া থানার এসআই আব্দুর রাজ্জাককে অবগত করে আহত তারেককে উদ্ধার করে জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।আহত কিশোর তারেকের মা সুফিয়া খাতুন জানান,ছেলেকে টাকার জন্য এমন নির্যাতন করা হয়েছে তা ভাষায় প্রকাশ করা যাচ্ছে না।এব্যাপারে অভিযুক্তদের বিরুদ্দে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।এব্যাপারে উখিয়া উপজেলা যুবলীগ নেতা ইদ্রিস মিয়াজী বলেন,এ ঘটনাটি শুনেছি এবং খুবই দুঃখজনক।আইন-শৃংখলা বাহিনী এঘটনায় জড়িত প্রকৃত দোষিদের বিরুদ্দে তদন্ত পূর্বক আইনগত ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ জানান।
Attachments area