ইয়াবা নিয়ে গুলি বিনিময়: আহত ১০, গ্রেফতার ১

প্রকাশ:| বুধবার, ২ আগস্ট , ২০১৭ সময় ০৯:২৪ অপরাহ্ণ

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া (কক্সবাজার) প্রতিনিধি তারিখ: ০২/০৮/২০১৭ইং
উখিয়ার ক্রাইম জোন খ্যাত পালংখালীতে ইয়াবা ব্যবসাকে নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে দুই গ্র“পের মধ্যে দফায় দফায় ব্যাপক সংঘর্ষ ও গুলাগুলির ঘটনা সংঘটিত হয়েছে। ঘটনায় উভয় গ্র“পে কমপক্ষে ১০ জন গুরুত্বর আহত হয়েছে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় জনতা এক ইয়াবা কারবারীকে আটক করে পুলিশের কাছে সোপর্দ করেছে। খবর পেয়ে উখিয়া থানা পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়েছে। এলাকায় এখনও পযর্ন্ত থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে বলে জানা গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছে গত মঙ্গলবার সন্ধা ৭ টার দিকে উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ফারিরবিল স্কুলের মাঠে ইয়াবার টাকা ভাগাভাগি ও ব্যবসা নিয়ন্ত্রণকে কেন্দ্র করে ইয়াবা গড়ফাদার নলবনিয়া বোছার ঘোনা নামক এলাকার বার্মাইয়া আব্দু শুক্কুর গ্রুপ ও পুটিবনিয়া এলাকার জালাল আহম্মদের পুত্র মোঃ রাসেল এবং পালংখালী বাজার এলাকার আফালাতুন প্রকাশ ধইন্যার পুত্র রাসেল উদ্দিন গ্র“পের মধ্যে অস্ত্র স্বস্ত্র নিয়ে প্রথম দফায় সংঘর্ষ হয়। উভয় গ্র“পের মধ্যে গুলিবিনিময় হয়েছে। কমপক্ষে ৫ রাউন্ড গুলিবিনিময় হয় বলে স্থানীয়রা জানান। পরে জনতা তাদের ধাওয়া করলে নলবনিয়া বোছার ঘোনা এলাকায় দ্বতীয় দফায় সংঘর্ষে জড়ায়। সংঘর্ষের এক পযার্য়ে উভয় পক্ষের মধ্যে আবারও গুলি বিনিময় হয়। গুলিতে রাসেল গ্র“পের রাসেল (২৫) কে গুলিবৃদ্ধ অবস্থায় স্থানীয় জনতা আটক করে পুলিশের কাছে সোপার্দ করেছে। সংঘর্ষ চালাকালিন আহত হয়েছে শুক্কুর গ্র“পের আব্দু শুক্কুর (৩৬), বোছার ঘোনা এলাকার আব্দুর রশিদ প্রকাশ আদ্যু ডাকাত (২৮), একই এলাকার সব্বির আহম্মদের পুত্র শাহ আলম (৩০) ও মোস্তাক আহম্মদের পুত্র মোঃ রোবেল (২৪)। আহতদের জেলা সদর হাসপাতাল সহ বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।
পালংখালী ইউনিয় পরিষদের চেয়ারম্যান এম গফুর উদ্দিন চৌধুরী জানান, পালংখালী নলবনিয়া ও ফারিরবিল এলাকায় ইয়াবা কারবারী দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ ও গুলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। তিনি আরও জানান ইয়াবা ব্যবসার ৬০ লাখ টাকার গড়িমশি হওয়ায় তাদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। জনতা রাসেল নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশের কাছে সোপার্দ করেছে। উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ আবুল খায়ের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, খবর পেয়ে দ্রুত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করা হয়েছে। একজনকে আটক করা হয়েছে। জড়িতদের আটক ও অস্ত্র উদ্ধারের জন্য অভিযান পরিচালনা করা হবে।