ফের মোশাররফ’র বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙঘনের অভিযোগ

প্রকাশ:| বুধবার, ১ এপ্রিল , ২০১৫ সময় ০৮:৫৭ অপরাহ্ণ

বিএনপি সমর্থিত মেয়র প্রার্থী এম মনজুর আলম এক দিনের মাথায় গৃহয়ায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙঘনের অভিযোগ এনেছেন।

বুুধবার সন্ধ্যায় মনজুর আলমের পক্ষে আব্দুল ওয়াহাব কাসেমী রিটার্নিং অফিসার আব্দুল বাতেনের কাছে এ অভিযোগ দায়ের করেন।

আওয়ামী লীগ সমর্থিত মেয়র প্রার্থী আ জ ম নাছিরের পক্ষে ও সমর্থন আয়াজিত সমাবেশে “যে কোন প্রকারে জিততে হবে” গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের এ বক্তব্যের প্রেক্ষিতে নির্বাচনী আচরণ বিধিমালা লঙ্ঘিত হয়েছে মর্মে অভিযোগ এনে বুধবার নির্বাচন কমিশনে লিখিত এ অভিযোগ দেয়া হয়েছে।

অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করে রিটার্নিং অফিসার আব্দুল বাতেন বলেন, ‘গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রীর বিরুদ্ধে মনজুর আলমের পক্ষে দায়ের করা একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।’

অভিযোগে উল্লেখ করা হয়, মঙ্গলবার নগরীর একটি হোটেলে চট্টগ্রামের মন্ত্রী, এমপি এবং আওয়ামী লীগ নেতারা নাছিরকে জিতিয়ে আনতে বৈঠক করেন। যা মঙ্গলবার বিভিন্ন বেসরকারী টেলিভিশন, আনলাইলন সংবাদপত্র এবং বুধবার জাতীয় ও আঞ্চলিক সংবাদ পত্রে “জয়ের কৌশল ঠিক করতে আ’লীগ নেতাদের বৈঠক” “চট্টগ্রামে আ’লীগের নির্বাচনী বৈঠকে মন্ত্রী প্রতিমন্ত্রীরা” সহ বিভিন্ন শিরোনামে খবর প্রকাশিত হয়েছে। যা নির্বাচন আচরণ বিধিমালা-২০১০ এর ৭ ধারার ১৪ (ক) (খ) ও (গ) উপধারার সুস্পস্ট লংঘন।

অভিযোগে আরো বলা হয়-বৈঠকে “যে কোন প্রকারে জিততে হবে” গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেনের এ বক্তব্যে ভোটারদরে মাঝে ভীতি ও জনমনে আতংক সৃস্টি হয়েছে। নির্বাচনের আনুষ্ঠানিক প্রচারাভিযান শুরুর আগে এ ধরনের কর্মকান্ড জোর জবরদস্তি করে ভোটকেন্দ্র দখল ও জনরায় ছিনতাইয়ের আগাম হুমকি ছাড়া আর কিছুই নয়। নির্বাচনী আচরণ বিধি অনুযায়ী মন্ত্রী এমপি প্রতিমন্ত্রী প্রজাতন্ত্রের কর্মকর্র্তা হিসেবে তারা তা করতে এবং বলতে পারেন না।

উল্লেখ্য, সর্বশেষ এ অভিযোগসহ এ নিয়ে মন্ত্রী-এমপি, সিএমপি কমিশনারসহ সরকারদলীয় নেতাদের বিরুদ্ধে সিসিসি নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারের কাছে মেয়র প্রার্থী মনজুর আলমের পক্ষ থেকে ৫টি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।


আরোও সংবাদ