ইরানের পরমাণু স্থাপনার দখল নিতে চায় আইএস

প্রকাশ:| রবিবার, ৫ অক্টোবর , ২০১৪ সময় ১১:৪৩ অপরাহ্ণ

ইরানের পরমাণু স্থাপনার দখল নিতে চায় ইরাক ও সিরিয়ায় সংগঠিত ইসলামিক স্টেট (আইএস) যোদ্ধারা। এ লক্ষ্য অর্জনে সংগঠনটি তাদের সদস্যদের সহযোগিতার আহবান জানিয়েছে। এ তথ্য জানিয়েছে ব্রিটেনের দ্য সানডে টাইমস।

খবরে বলা হয়েছে, আইএস যোদ্ধারা ইরানের পরমাণু স্থাপনার দখল নেওয়ার পরিকল্পনা করছে। এ লক্ষ্য অর্জনে সংগঠনটির পক্ষ থেকে একটি ইশতেহার প্রকাশ করা হয়েছে। এতে সংগঠনটির সদস্যদের সর্বাত্মক সহযোগিতার আহবান জানানো হয়। আর এ আহবান জানিয়েছেন আবদুল্লাহ আহমেদ আল মেশদানি। তিনি আইএসের যুদ্ধবিষয়ক ছয় সদস্যের মন্ত্রিসভার অন্যতম সদস্য বলে মনে করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, গত মার্চ মাসে আইএসের এক কমান্ডারের বাসভবনে অভিযান চালায় ইরাকের বিশেষ বাহিনী। সে সময় আইএসের পরিকল্পনা সম্বলিত ওই ইশতেহারটি পায় ইরাকি সেনাবাহিনী। মনে করা হচ্ছে, আইএসের সিনিয়র সদস্যদের জন্য ওই নির্দেশনা তৈরি করা হয়েছিল।

ওই ইশতেহারে বলা হয়েছে, রাশিয়ার সহযোগিতায় আইএস ইরানের পরমাণু স্থাপনার দখল নেবে। ইরানের পরমাণু স্থাপনার যাবতীয় গোপন তথ্যও আইএসকে দেবে মস্কো। বিনিময়ে ইরাকে দখলকৃত আনবার প্রদেশের গ্যাসক্ষেত্রে রাশিয়াকে প্রবেশের সুযোগ দেবে আইএস। পশ্চিমা নিরাপত্তা বিশ্লেষকরা পরীক্ষা-নীরিক্ষা করে ডকুমেন্টটিকে বিশ্বাসযোগ্য বলে মনে করছেন।

ইশতেহারে আরও বলা হয়েছে, সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদের ওপর থেকে রাশিয়া তাদের সমর্থন প্রত্যাহার করবে এবং ইরানের বিরুদ্ধে গাল্ফ রাষ্ট্রগুলোকে সহায়তা করবে।

প্রাপ্ত ইশতেহারে আইএস প্রতিষ্ঠিত খেলাফতকে শক্তিশালী করতে আরও অন্তত ৭০টি পরিকল্পনার কথা বলা হয়েছে। এর মধ্যে একটি হল— ইরাক ও ইরানের শিয়া নেতৃত্ব ধ্বংস করা।

প্রসঙ্গত আইএস মনে করে, শিয়া মুসলমানরা বিশ্বাসঘাতক এবং তারা ইসলামের বিকৃতি ঘটাচ্ছে। ইশতেহারে ইরানের কূটনীতিক, ব্যবসায়ী, শিক্ষক এবং ইরাকের সামরিক কর্মকর্তা, শিয়া কর্মকর্তা ও ইরান সমর্থিত ইরাকের যোদ্ধাদের হত্যার আহবান জানানো হয়েছে। সূত্র : আলআরাবিয়া/টাইমস অব ইন্ডিয়া।