ইফতার রাজনীতি জমে ওঠেছে আনোয়ারার রাজনীতির মাঠ!

প্রকাশ:| রবিবার, ৪ আগস্ট , ২০১৩ সময় ০৮:২০ অপরাহ্ণ

আনোয়ারা প্রতিনিধি,নিউজচিটাগাং২৪.কম।।দীর্ঘ সময় ধরে নিরব থাকার পরে সরগরম হয়ে ওঠেছে আনোয়ারার রাজনীতির ইফতারমাঠ। রমজানের ইফতার নিয়ে রাজনীতি জমিয়ে তোলে সরকারী দল আওয়ামীলীগ ও বিএনপির পৃথক দু’টি পক্ষ। দীর্ঘদিন পরে এরকম দলীয় কর্মসূচি আসায় নেতাকর্মীদের মধ্যে চাঙ্গাভাব দেখা যাচ্ছে দলগুলোর নেতা-কর্মীদের।
সূত্র জানায়, রোজা আসার পরে আনোয়ারার বিএনপির পৃথক দুটি পক্ষ ও আওয়ামীলীগ নেতাকর্মীদের নিয়ে ইফতার পার্টির কর্মসূচি দিতে থাকে। দলগুলো ইউনিয়নে ইউনিয়নে এমনকি ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে ও কর্মসূচি দেয়। আর এতে করে দলগুলোর নেতাকর্মীরা একত্র হবার সুযোগ পায়। নেতা-কর্মীরা এসব কর্মসূচীতে নির্বাচনী আমেজ খুজে পাচ্ছেন।
বিএনপির দলীয় সূত্র জানায়, রোজা শুরু হতেই উপজেলার ১১ ইউনিয়নে ইফতার পার্টির আয়োজন করে সাবেক সাংসদ সরওয়ার জামাল নিজামের বিরোধীখ্যাত সাংসদ ও চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা বিএনপির সভপাতি জাফরুল ইসলাম চৌধুরীর অনুসারীরা। এ গ্র“পের নের্তৃত্বে দিচ্ছেন বাংলাদেশ বার কাউন্সিলের সদস্য ও চট্টগ্রাম জাতীয়তাবাদী আইনজীবি ফোরামের সভাপতি এডভোকেট কবির চৌধুরী ও জেলা বিএনপির জ্যেষ্ঠ সহ-সভাপতি জালাল উদ্দিন আহমদ। তারা গ্রামে গ্রামে গিয়ে ইফতারর পার্টির কর্মসূচি সফল করছেন। আনোয়ারা উপজেলা ও ১১ ইউনিয়নে তাদের কমিটি আছে।
বিএনপির ওই অংশের সভাপতি মোশারফ হোসেন বলেন, শুধু ইউনিয়নেই নয়, আমরা ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে কর্মসূচি রেখেছি। কর্মীরা এখন ফুরফুরে মেজাজে আছে।
অপর দিকে, সাবেক সাংসদ সরওয়ার জামাল নিজামের অনুসারীরা ও পৃথক পৃথকভাবে ইফতার অনুষ্ঠান করছে। শাহজাহান চৌধুরী ও হুমায়ুন কবির চৌধুরী আনছারের নের্তৃত্বে এগ্র“পের শক্তিশালী অবস্থান আছে উপজেলায়।
তবে ওই অংশের সভাপতি শাহজাহান চৌধুরী বলেন, আমাদের ইফতার পার্টিতে কর্মীদের সরব উপস্থিতি প্রমাণ করে নিজাম সাহেবের জনপ্রিয়তা। এখানে রাতারাতি কেউ এসে খবরদারী করলে লাভ হবেনা।
এদিকে, সরকার দলীয় সাংসদ সাইফুজ্জামান চৌধুরীর বাসায় পরে উপজেলার বিভিন্ন কমিউনিটি সেন্টারে ইফতার অনুষ্ঠান হয়েছে। এর আগে মোহছেন আউলিয়ার ওরশেও বড় কাঙ্গালীভোজের আয়োজন করে জাবেদের অনুসারীরা। আখতারুজ্জমান চৌধুরী ফাউন্ডেশন ও আখরুজ্জমান চৌধুরী স্মৃতি সংসদের ব্যানারেও নানা কর্মসূচি দিচ্ছে সরকার দলীয় নেতার্মীরা।
আনোয়ারা উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কাজী মোজাম্মেল হক বলেন, পুরো নির্বাচনী এলাকার কর্মীদের নিয়ে বিভিন্নভাবে ইফতার পার্টির আয়োজন করেছি। নেতাকর্মীরা উৎসাহ-উদ্দীপনা নিয়েই সেখানে উপস্থিত হচ্ছেন।
এদিকে,দীর্ঘদিন পরে আনোয়ারার রাজনীতিতে প্রাণ আসায় দলীয় নেতা কর্মীদের মধ্যে বেশ উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে। তারা ইতিমধ্যে এ নিয়ে নির্বাচনী হিসাব ও কষতে শুরু করে দিয়েছেন। এসব কর্মসূচি থেকে বিভিন্ন দলের নেতা-কমর্রিা গন্ধ পাচ্ছেন আগামী নির্বাচনের।