‘ইত্যাদি’ এবার নোয়াখালীতে

প্রকাশ:| শনিবার, ২১ নভেম্বর , ২০১৫ সময় ০৯:৫৯ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ টেলিভিশনের জনপ্রিয় ম্যাগাজিন অনুষ্ঠান ‘ইত্যাদি’-র দৃশ্যধারণের কাজ এবার করা হয়েছে নোয়াখালীতে। অনুষ্ঠানটির গ্রন্থনা, পরিচালনা ও উপস্থাপনা করেছেন হানিফ সংকেত।

১৬ নভেম্বর নোয়াখালীর মাইজদীতে পুলিশ প্রশিক্ষণ কেন্দ্রের মাঠে তৈরি করা হয় এক বিশাল মঞ্চ। সেখানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল প্রায় ২০ হাজার দর্শককে। ওই দিন সন্ধ্যা ছয়টায় শুরু হয় চিত্রধারণের কাজ। চলে রাত ১২টা পর্যন্ত।

এবারের ইত্যাদি’তে কী কী থাকছে? এ ব্যাপারে অনুষ্ঠানটির নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ফাগুন অডিও ভিশন থেকে জানানো হয়েছে বিভিন্ন তথ্য।

এই অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল বৃহত্তর নোয়াখালীর দুজন অভিনয়শিল্পীকে। তাদের একজন মাহফুজ আহমেদ, অন্যজন তারিন। তারা অংশ নিয়েছেন অনুষ্ঠানটির দর্শক পর্বে। নির্বাচিত দর্শকদের সঙ্গে তারা নোয়াখালীর আঞ্চলিক ভাষায় একটি রোমান্টিক দৃশ্যে অভিনয় করেন।

‘ইত্যাদি’র জন্য নোয়াখালীকে নিয়ে গান লিখেছেন মোহাম্মদ রফিকউজ্জামান। সুর ও সংগীতায়োজন করেছেন বিনোদ রায়। গানটিতে কণ্ঠ দিয়েছেন রবি চৌধুরী। তার সঙ্গে অংশ নিয়েছেন স্থানীয় একদল শিল্পী। নোয়াখালীর খুব জনপ্রিয় তিনটি গানের অংশবিশেষ নিয়ে তৈরি একটি গানের সঙ্গে নাচে অংশ নিয়েছেন স্থানীয় প্রায় শতাধিক নৃত্যশিল্পী। গানটির সংগীতায়োজন করেছেন মেহেদী।

দ্বীপ-জেলা ভোলার লালমোহন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. মাহমুদুর রশিদের ওপর রয়েছে একটি অনুসন্ধানী প্রতিবেদন। আর্তের সেবায় নীরবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি।
দালালদের খপ্পরে পড়ে প্রলোভন আর প্রতারণার শিকার হয়ে অবৈধভাবে যারা পাচার হয়ে যায়, তাদের দুর্দশার করুণ চিত্র তুলে ধরা হয়েছে এবারের ‘ইত্যাদি’তে। বাংলাদেশ, তুরস্ক আর গ্রিসের সীমান্ত এলাকায় ধারণ করা চিত্র রয়েছে প্রতিবেদনটিতে।

ফেরিতে যানবাহন আর যাত্রী পারাপার পরিচিত দৃশ্য হলেও এবার ‘ইত্যাদি’তে দেখা যাবে ফেরিতে করে রেল পারাপারের দৃশ্য।

কোলাহলমুক্ত, বনভূমি পরিবেষ্টিত প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের ‘নিঝুম দ্বীপ’ নিয়ে রয়েছে প্রতিবেদন। রয়েছে বগুড়ার একটি কলেজের প্রাণীবিদ্যা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক এস এম ইকবালের প্রকৃতি ও পাখি প্রেমের ওপর সচেতনতামূলক প্রতিবেদন।

এছাড়া বিউটি পারলারের একাল-সেকাল, প্রযুক্তির অপব্যবহার, টক শোর প্রয়োজনীয়তা, টিভি দেখা