ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন’র বক্তব্য সঠিক নয়

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারি , ২০১৮ সময় ০৯:০৬ অপরাহ্ণ

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি’র বক্তব্যের ব্যাখ্যায় চসিক

নোংরা শহর/পুরো নগরী নোংরা, সিটি কর্পোরেশন কি করছে/ যে দিকে দেখি শুধুই আবর্জনা/ শিরোনামে  শনিবার বিভিন্ন জাতীয় ও চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পত্রিকায় গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি’র বরাত দিয়ে প্রকাশিত সংবাদ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন গণমাধ্যমে আজ এক ব্যাখ্যা প্রদান করেছে। ব্যাখ্যায় বলা হয়, জাতীয় ও আঞ্চলিক পত্রিকায় প্রকাশিত বক্তব্য সঠিক নয়। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন কর্তৃপক্ষ এ সংক্রান্ত বক্তব্যের দ্বিমত পোষন করে বলেন, অতীতের যে কোন সময়ের তুলনায় বর্তমান নগরী পরিচ্ছন্ন ও পরিবেশ বান্ধব। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের পরিচ্ছন্ন বিভাগের সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীগণ রাতদিন নিরলসভাবে কাজ করে নগরীকে পরিচ্ছন্ন রাখার প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। ফলে নগরবাসীর নিকট চট্টগ্রাম নগরী নান্দনিক নগরী হিসেবে স্বীকৃতি লাভ করেছে। ব্যাখ্যায় আরো বলা হয়, বর্তমান মেয়র আলহাজ্ব আ জ ম নাছির উদ্দীন এর ভিশন ও পরিকল্পনা অনুযায়ী চট্টগ্রাম নগরীকে গ্রীন ও ক্লীন সিটিতে উন্নিত করার লক্ষ্যে ‘ডোর টু ডোর’ বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম চালু এবং নগরীকে ডাষ্টবিনমুক্ত করার উদ্যোগ সর্ব মহলে প্রশংসিত হয়েছে। তাছাড়াও মাননীয় মেয়রের ঐকান্তিক ইচ্ছা ও নির্দেশনায় এখন পুরো নগরীতে রাতে ময়লা-আবর্জনা অপসারন ও নগরীর সকল সড়কে ঝাড়– দেয়ার কাজ চলছে। প্রত্যেকদিন চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন প্রায় ২ হাজার টন ময়লা-আবর্জনা অপসারন করে যাচ্ছে। ফলে এখন আর নগরবাসী ও নগরীর কর্মজীবী নাগরিকদের ভোরবেলা ময়লা-আবর্জার দুর্গন্ধ সইতে হয়না। এছাড়াও ময়লা-আবর্জনা অপসারন বিষয়ে নগরবাসীকে সচেতন করার লক্ষ্যে চসিক প্রতিদিন পুরো নগরজুড়ে মাইক দিয়ে প্রচার, হ্যান্ডবিল বিতরণ, দৈনিক পত্রিকায় ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সচেতনতামূলক বিজ্ঞাপন সম্প্রচার, ৪১ টি ওয়ার্ডে ১৭১৪ জন অতিরিক্ত সেবক নিয়োগ এর মাধ্যমে আবর্জনা অপসারন এবং ৭৭৫ টি ভ্যানগাড়ির মাধ্যমে ডোর টু ডোর ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করা হচ্ছে। আবর্জনা সংরক্ষণ করার জন্য ঘরে ঘরে ৯ লক্ষ ছোট বিন ও ৪ হাজার বড় বিন সরবরাহ করা হয়েছে। এছাড়াও পুরো নগরীকে দুর্গন্ধমুক্ত করার লক্ষ্যে অতীতের ১৩৭৫ টি কংক্রিট ডাস্টবিন থেকে ৭৭৫ টি ভেঙ্গে ফেলে দিয়ে ৬শত টিতে নিয়ে আসা হয়েছে। ভেঙ্গে ফেলা ৭৭৫ টি ডাস্টবিন এর স্থানে সৌন্দর্য বর্ধিতকার্যক্রমের অংশ হিসেবে ফুলের বাগান করা হয়েছে। ডোর টু ডোর ময়লা আবর্জনা সংগ্রহের জন্য দুপুর ৩ টা থেকে রাত ১০ টা পর্যন্ত সময়সীমা বেধে দেয়া হয়েছে। নির্ধারিত সময়সীমার মধ্যে কর্পোরেশনের অতীতের সেবকের সাথে অতিরিক্ত ১৭১৪ জন নতুন সেবক প্রত্যেক ঘর, দোকান ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে প্রতিদিন ময়লা আবর্জনা সংগ্রহ করছে। ব্যাখ্যায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন এর কার্যক্রম সম্পর্কে নগরবাসীর সচেতনতা ও সদিচ্ছা কামনা করছে চসিক।


আরোও সংবাদ