আ.লীগকে নিষিদ্ধের দাবি জামায়াতের

প্রকাশ:| শুক্রবার, ২ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১১:২০ অপরাহ্ণ

আদালতের রায়ে জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণার প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগকে নিষিদ্ধ করার দাবি রফিকুল ইসলাম খানজানিয়েছেন জামায়াতে ইসলামীর ভারপ্রাপ্ত সেক্রেটারী জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান।

আজ শুক্রবার জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় প্রচার বিভাগ থেকে মো. ইব্রাহিম স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে এ দাবি করেন তিনি।

বিবৃতিতে রফিকুল ইসলাম খান বলেন, সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িত থাকার দায়ে আওয়ামী লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগকে নিষিদ্ধ করা উচিৎ।

বিবৃতিতে বলা হয়, আদালতের রায়ে জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণার পর ১৪ দলের নেতৃবৃন্দসহ সরকার সমর্থক কোনো কোনো মহল থেকে জামায়াতে ইসলামীকে নিষিদ্ধের দাবি তোলা হয়েছে, যা ‘অন্যায় ও অগণতান্ত্রিক’।

জামায়াতের নিবন্ধন বাতিলের রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রীম কোর্টে দায়ের করা আপীলে জামায়াত ন্যায় বিচার পাবে আশা প্রকাশ করে বিবৃতিতে বলা হয়, আওয়ামী মহাজোট সরকার ক্ষমতাসীন হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীকে ধ্বংস করার জন্য গভীর ষড়যন্ত্র শুরু করেছে। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই জামায়াতে ইসলামীর শীর্ষ নেতৃবৃন্দসহ হাজার হাজার নেতা-কর্মীকে অন্যায়ভাবে কারারুদ্ধ করা হয়েছে এবং বিচারের নামে প্রহসন করে জামায়াতের শীর্ষ নেতাদের কাউকে ফাঁসি ও কাউকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। সেই ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবেই মাননীয় হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ সংখ্যগরিষ্ঠতার ভিত্তিতে দেয়া বিভক্তি রায়ে নির্বাচন কমিশন কর্তৃক দেয়া জামায়াতের নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণা করেছে। এ রায় ন্যায়ভ্রষ্ট ও অন্যায্য।

তিনি বলেন, অপরিপক্ক রিটে ভুল রায় দেয়া হয়েছে। জামায়াতের প্রতি সুবিচার করা হয়নি। ন্যায় বিচার থেকে জামায়াতকে বঞ্চিত করা হয়েছে। আশা করি সুপ্রীম কোর্টে দায়ের করা আপীলে আমরা ন্যায় বিচার পাব।

রফিকুল ইসলাম বলেন, জামায়াতে ইসলামীকে ধ্বংস করার জন্য সরকারের নানামুখী ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে জামায়াতে ইসলামীর পক্ষ থেকে ঘোষিত আগামীকাল ৩রা আগস্ট শনিবার দেশব্যাপী বিক্ষোভ কর্মসূচী সফল করার জন্য আমি সংগঠনের সকল শাখার প্রতি উদাত্ত আহ্বান জানাচ্ছি এবং দেশবাসীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।