আসামি হত্যার দায় মুক্ত পাঁচ পুলিশ

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১১ জুন , ২০১৫ সময় ১১:২৯ অপরাহ্ণ

পাঁচলাইশ থানা পুলিশের হেফাজতে থাকা অবস্থায় মো. রোকনুজ্জামান (৪০) নামে এক আসামিকে পিটিয়ে খুনের অভিযোগের দায় থেকে অব্যাহতি পেয়েছেন পাঁচ পুলিশ ও এক আনসার সদস্যসহ ১০ জন।

বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত প্রতিবেদন চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম নূরে আলম ভূঁইয়ার আদালতে দাখিল করে মামলার তদন্তকারী সংস্থা নগর গোয়েন্দা পুলিশ। সব আসামিকে অব্যাহতি দিয়ে দাখিল করা চূড়ান্ত প্রতিবেদনটি গ্রহণ করেছেন আদালত।

অব্যাহতি পাওয়া আসামিরা হলেন- পাঁচলাইশ থানার এসআই আমির হোসেন, বাকলিয়া থানার এএস আই মো. এনায়েত হোসেন, পাঁচলাইশ থানার কনস্টেবল মিজানুর রহমান (নম্বর-২৩৯০), মোছলেম (৪০৪৫), খোকন মিয়া (৩৯৫৮) ও আনসার কনস্টেবল শাহীনূর আলম (১৯১৬৭৭৫), পাঁচলাইশ থানার গাড়িচালক কনস্টেবল আকবর (৭১৭৮), পুলিশ সোর্স মো. জামাল ও হুমায়ন কবির এবং ঘটনাস্থলে থাকা সাধারণ মানুষ হারুনুর রশিদ ডিউক।

এদের মধ্যে এএসআই মো.এনায়েত হোসেন, কনস্টেবল মিজানুর রহমান, মোছলেম ও খোকন মিয়া এবং আনসার কনস্টেবল শাহীনূর আলমকে ঘটনার পর বরখাস্ত করা হয়।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (প্রসিকিউশন) কাজী মুত্তাকী ইবনু মিনান বলেন, ‘অসুস্থতাজনিত কারণেই রোকনুজ্জামানের মৃত্যু নিশ্চিত হয়ে ডিবি চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে দাখিল করেছে। এছাড়া মামলার এজাহারে আনা অভিযোগের কোন সত্যতা পাননি কর্মকর্তারা।’

প্রসঙ্গত ২০১৪ সালের ১৮ জুন রাতে নগরীর বাকলিয়া থানার সৈয়দ শাহ রোড থেকে নারী নির্যাতনের অভিযোগে গ্রেপ্তারের পর পাঁচলাইশ থানা পুলিশের হেফাজতে রোকনুজ্জামানের মৃত্যু হয়। এরপর ২৫ জুন রোকনুজ্জামানের স্ত্রী শিমু আক্তার বাদী হয়ে ১০ জনকে আসামি করে আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

নগর গোয়েন্দা পুলিশের উপ কমিশনার কুসুম দেওয়ানকে মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব দেন আদালত। এ ঘটনায় পাঁচলাইশ থানা থেকে এসআই আমির হোসেন ও কনস্টেবল মোছলেমকে গ্রেপ্তার করেছিল নগর গোয়েন্দা পুলিশ। পরে তারা জামিনে বেরিয়ে যান।