আশরাফুলকাণ্ডে দেশের সুনাম নষ্ট হয়েছে

প্রকাশ:| শনিবার, ১৫ জুন , ২০১৩ সময় ০৭:০৬ পূর্বাহ্ণ

মোহাম্মদ আশরাফুলের ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার খবর বেরিয়েছে মে মাসের ২৪ তারিখ। এরপর ৪ জুন বিসিবি সাময়িক নিষিদ্ধ করেছে তাকে। ওই দিনই আশরাফুল কৃতকর্মের জন্য দেশবাসীর কাছে ক্ষমাও চেয়েছেন।

বাংলাদেশের ক্রিকেটকে নাড়িয়ে দেওয়া এ ঘটনা আলোচনায় আসায় প্রায় তিন সপ্তাহ পর মুখ খুললেন সর্বশেষ জাতীয় দলের অধিনায়কত্ব করা মুশফিকুর রহিম।

জিম্বাবুয়ে সফরে অধিনায়কত্ব ছাড়ার ঘোষণা দেওয়া এ ক্রিকেটার ক্রিকইনফোর কাছে স্বীকার করেন, আশরাফুলের ম্যাচ ফিক্সিংয়ে জড়িত থাকার ঘটনায় বাংলাদেশের ক্রিকেটের গৌরবহানি হয়েছে।

ফিক্সিং নিয়ে আকসুর তদন্ত এবং আশরাফুলের স্বীকারোক্তির খবরটা নাকি মুশফিক প্রথমে বিশ্বাসই করতে পারেননি, ‘খবরটা প্রথম শোনার পর আমার খুবই খারাপ লেগেছে। প্রথমে আমার বিশ্বাসই হয়নি। এখন তো এ বিষয়ে তদন্ত চলছে। কিন্তু আমি যখন আশরাফুলের মুখ থেকে বিষয়টা শুনলাম তখন আমার ভীষণ খারাপ লেগেছিল। বিপিএল ম্যাচের প্রসঙ্গ না হয় সরিয়েই রাখলাম, যখন আন্তর্জাতিক ম্যাচে ফিক্সিংয়ের কথা শুনলাম তখন আমার কাছে অবিশ্বাস্য মনে হয়েছে।’

মুশফিকের এতটা খারাপ লাগার কারণটাও স্পষ্ট, ‘একটা গৌরব করার মতো বিষয় ছিল যে আমাদের কোনো ক্রিকেটার এমন জঘন্য কাজের সঙ্গে জড়িত নন। অতীতে আমাদের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটারের কাছে এ ধরনের প্রস্তাব এসেছিল। কিন্তু তারা সবাই না বলে দিয়েছিলেন। তাদের সবাইকে স্যালুট জানাই। আমরা খারাপ খেললেও ওই একটা বিষয় ছিল আমাদের গৌরব করার মতো। অবশ্য এখনও তদন্ত চলছে। কিন্তু যা হয়েছে, ভীষণ বাজে কাজ হয়েছে।’

গত ৪ জুন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান নিশ্চিত করেন যে, বিপিএল ম্যাচ ফিক্সিংয়ের তদন্ত করতে গিয়ে আকসু বাংলাদেশের কয়েকটি আন্তর্জাতিক ম্যাচেও ফিক্সিংয়ের অভিযোগ পেয়েছে। আইসিসি শিগগির এ বিষয় নিয়ে ব্যাপক তদন্তে নামছে বলেও জানিয়েছিলেন বিসিবি সভাপতি।

বাংলাদেশের যেসব ম্যাচে ফিক্সিং বা স্পট ফিক্সিংয়ের অভিযোগ উঠেছে এর মধ্যে ২০১২ সালে শ্রীলংকা টি২০ বিশ্বকাপের একটি খেলাও আছে। তখন আবার জাতীয় দলের অধিনায়ক ছিলেন মুশফিকুর রহিম। আশরাফুলের সঙ্গে আট বছর ধরে জাতীয় দলে খেলছেন তিনি। কিন্তু একবারের জন্যও নাকি এমন কিছু আঁচ করতে পারেননি মুশফিক।

তার দাবি, আকসুর তদন্তে যদি আশরাফুল দোষী প্রমাণিত হন তাহলে যেন কঠিন শাস্তি দেওয়া হয়।

মুশফিক বলেন, ‘আমরা তার সঙ্গে দীর্ঘদিন ধরে খেলছি; কিন্তু কখনোই এমন কিছু টের পাইনি। মাশরাফি ভাই বলেছেন, তিনি দীর্ঘদিন তার রুমমেট ছিলেন। তিনিও কিছু বুঝতে পারেননি। যদি তিনি দোষী হন, তাহলে অবশ্যই তাকে শাস্তি দেওয়া উচিত। এতে আমাদের তরুণ খেলোয়াড়রা জানবে যে, এটা বড় ধরনের অপরাধ। আপনি কখনোই দেশের সঙ্গে বেইমানি করতে পারেন না। আপনি যত বড় বা ছোট খেলোয়াড়ই হোন না কেন!’

যদি সবকিছুর পরও আশরাফুল আবার আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার সুযোগ পান, তাহলে অবশ্যই তাকে দলে স্বাগত জানানো হবে বলে জানান মুশফিক, ‘আমি আশা করছি তিনি দ্রুতই ক্রিকেটে ফিরে আসবেন।’Ashraful-Hancy-cornia


আরোও সংবাদ