আশঙ্কাজনকভাবে খারাপ অবস্থায় দলের ফিটনেস

প্রকাশ:| বৃহস্পতিবার, ১ আগস্ট , ২০১৩ সময় ১১:৩৫ অপরাহ্ণ

জাতীয় দলের ফিটনেস যে আশঙ্কাজনকভাবে খারাপ অবস্থায় আছে; সেটা প্রথম বলেছিলেন অ্যাকাডেমির ফিটনেস কোচ স্টুয়ার্ট bd_61156কার্পিনেন। পরে তার এবং বাকী কোচদের তত্ত্বাবধায়নে খেলোয়াড়দের টানা ফিটনেস ক্যাম্প হয়েছে। তারপর কন্ডিশনিং ক্যাম্পও শেষ হয়েছে খেলোয়াড়দের। দীর্ঘ এই ক্যাম্পের শেষে খেলোয়াড়দের ফিটনেস আশানুরূপ মানে পৌঁছাবে; এমনটা আশা করাই যেত। কিন্তু দুর্ভাগ্যজনকভাবে, ম্যানেজমেন্ট আবিষ্কার করেছে বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই এখনও সেই মানে পৌঁছাতে পারেননি। এর মধ্যে অন্তত ছয় জন খেলোয়াড়ের ফিটনেস এখনও অনেক খারাপ বলেই জানা গেল দলীয় কিছু সূত্রে।

কাদের ফিটনেস অনেক খারাপ, সে ব্যাপারে মন্তব্য করতে চাইলেন না প্রধান নির্বাচক আকরাম খান। তবে তিনি স্বীকার করলেন যে, এখনও খেলোয়াড়দের ফিটনেস নিয়ে দুশ্চিন্তা আছে। ফিটনেস টেস্টগুলোতে অধিনায়ক মুশফিক ও সহঅধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ ভালো করেছেন, এটা উল্লেখ করেই আকরাম বললেন, ‘মুশফিক এবং তার ডেপুটি রিয়াদ বেশ ভালো করেছে এই সময়। কিন্তু কয়েক জন একদমই ব্যর্থ হয়েছে নিজেদের ফিটনেস লেভেল কাঙ্ক্ষিত মানে পৌঁছাতে। এটা আমাদের জন্য আসলেই একটা দুশ্চিন্তার ব্যাপার। কারণ, এদের মধ্যে কয়েক জনকে আমরা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের জন্য বিবেচনা করছি।’

এই ‘ফেল করা’দের মধ্যে কারা আছেন, সে নাম আকরাম বললেন না। তবে দলের অন্য একটি সূত্র বললো, মাশরাফি বিন মুর্তজা, সামসুর রহমান শুভ, সোহাগ গাজী, ইলিয়াস সানি, জিয়াউর রহমান ও শাহরিয়ার নাফীসের ফিটনেস কাঙ্ক্ষিত মানের বেশ নিচেই আছে।

এদের ফিটনেসটা নিউজিল্যান্ড সিরিজের আগে কাঙ্ক্ষিত মানে পৌঁছানো জরুরী, তাতে সন্দেহ নেই। সত্যিই এর মধ্যে কয়েকজন দলের অপরিহার্য খেলোয়াড় আছেন। এরই সঙ্গে বাড়তি একটা শঙ্কা হল, আবার শুরু হওয়া ছুটিতে আরও খারাপ না হয়ে যায় ফিটনেসের মান।

তবে আকরাম আশা করছেন, এমনটা হবে না। বরং ছুটির পর এসে নিজেদের নিয়ে আরও কাজ করে পিছিয়ে পড়ারা ভালো ফিটনেসে পৌঁছাবেন বলেই তিনি আশাবাদী, ‘আশা করছি, ছুটির পর আবার যখন ক্যাম্প শুরু হবে, এই যারা ফেল করেছে, এরা নিজেদের ফিটনেসটা বাড়িয়ে ফেলতে পারবে। আমরা যেহেতু এই ব্যাপারটাকে এখন গুরুত্ব দিচ্ছি, আশা করা যায়, সমাধান হবে।’

ফিটনেস নিয়ে এই যে শঙ্কা, আলোচনা এটাকেই একটা ইতিবাচক সংযোজন বলে মনে করা যেতে পারে। বাংলাদেশ জাতীয় দল ফিটনেসের অভাবে সবসময়ই বিভিন্ন সংকটে থাকে। এর মধ্যে একটা বড় সমস্যা হল ইনজুরি। কিছু ভূতুড়ে ইনজুরির একটা বড় কারণ মনে করা হয় খেলোয়াড়দের ফিটনেসের অভাবকে।

সেই সংকটটা কেটে যাবে কি না; সেটা সময় বলবে। তবে আকরাম বলছেন, ফিটনেস ক্যাম্পের আপাতত সবচেয়ে বড় প্রাপ্তি হল, সব খেলোয়াড়ের ফিটনেসের খুঁটিনাটি তথ্য তাদের হাতে চলে আসা, ‘ফিটনেস ক্যাম্প করে বড় উপকার হয়েছে, আমরা প্রত্যেক খেলোয়াড়ের আলাদা আলাদা করে তথ্য সম্বলিত একটা ডাটাবেজ তৈরি করতে পেরেছি।’

এখন দেখার বিষয় এই তথ্যভান্ডার কাজে লাগিয়ে কতোদূর এগোয় বাংলাদেশি খেলোয়াড়দের ফিটনেস।