আ’লীগ নেতার ভাইয়ের হামলায় মহিলাসহ আহত-৩

প্রকাশ:| সোমবার, ১০ জুলাই , ২০১৭ সময় ০৭:২০ অপরাহ্ণ

পটিয়া প্রতিনিধি॥
পটিয়ায় উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক বিজন চক্রবর্ত্তীর ছোট ভাই অঞ্জন চক্রবর্ত্তীর দিনদুপুরে হামলায় গর্ভবতী মহিলাসহ তিনজন আহত হয়েছেন। আহতরা হলেন, গর্ভবতী চম্পা দে (২৫) বিভুলা দে (৬০), নন্টু দে (৬২)।
গতকাল সোমবার সকাল ১১টায় উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটনা। এ বিষয়ে সাবেক ইউপি মেম্বার ও ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আশুতোষ দাশ বাসুর বড় ভাই অঞ্জন কান্তি দাশ বাদী হয়ে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সেক্রেটারীর দুই সহোদরের বিরদ্ধে পটিয়া থানায় লিখিত অভিযোগ (নং-১৯১৩/১৭) দায়ের করেছেন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, গত ইউপি নির্বাচনে উপজেলার কেলিশহর ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী আশুতোষ দাশ বাসু ও একটি পক্ষের মধ্যে বিরোধ সৃষ্টি হয়। এই বিরোধকে কেন্দ্র করে প্রায় সময় এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডা হতো। সোমবার সকালে উপজেলা আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক বিজন চক্রবর্ত্তীর ছোট ভাই অঞ্জন চক্রবর্ত্তী অর্তকিতভাবে হামলা চালায়। এসময় মিলন দে’র গর্ভবতী স্ত্রী চম্পা দেকে লাথি মারে। আহতরা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা গ্রহণ করেছেন।
ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক ইউপি মেম্বার আশুতোষ দাশ বাসু অভিযোগ করেছেন, শনিবার তাকে একা পেয়ে বিজন চক্রবর্ত্তীর বড় ভাই রতন চক্রবর্ত্তী কেলিশহর কো-অপারেটিভ ব্যাংকের সামনে মারধর করে। মারধরের প্রতিবাদ করায় বিজনের ছোট ভাই অঞ্জন সোমবার পুনরায় হামলা ও ভাংচুর করে। এ ব্যাপারে অঞ্জন চক্রবর্তী ও রতন চক্রবর্ত্তীর বিরুদ্ধে পটিয়া থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন।
এ বিষয়ে রতন চক্রবর্ত্তী অভিযোগ করেছেন, বাসু প্রায় সময় মাতাল অবস্থায় এলাকায় বিশৃঙ্খলা করে থাকেন। এসবের প্রতিবাদ করতে গিয়ে এই ঘটনা ঘটেছে।
পটিয়া থানার ওসি শেখ নেয়ামত উল্লাহ বলেন, মারধরের ঘটনায় পটিয়া থানায় একটি অভিযোগ পাওয়া গেছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।