আর্মড পুলিশের ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহী আহত

প্রকাশ:| শুক্রবার, ১৯ আগস্ট , ২০১৬ সময় ১১:৩৩ অপরাহ্ণ

পেকুয়ায় আর্মড পুলিশের দস্তাদস্তিতে এক মোটর সাইকেল আরোহী গুরুতর আহত হয়েছে। পথচারিরা আহত আরোহীকে উদ্ধার করে পেকুয়া স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। অবস্থার অবনতি হলে বিকেলে তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল (চমেকে) রেফার করে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার কলেজ গেইট চৌমুহনী চৌ-রাস্তার মোড়ে। আহত মোটর সাইকেল আরোহীর নাম জিয়াবুল হক মেস্ত্রী (৪০)। তিনি চকরিয়া পৌরসভার ঢালারমুখ এলাকার জাকের আহমদের ছেলে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায় ওইদিন বিকেলে জিয়াবুলসহ তিন মোটর সাইকেল আরোহী পেকুয়া বাজার থেকে নিজ বাড়ি চকরিয়া ফিরছিলেন। পথিমধ্যে কলেজ গেইট চৌমুহনী চৌ-রাস্তার মোড় পৌঁছলে তাদের মোটর সাইকেলের লাইসেন্স আছে কিনা দেখতে আর্মড পুলিশের সদস্য সুজিত এগিয়ে যায়। এ সময় চলন্ত গাড়িটি টানাটানি করে। এ সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে পাশ্ববর্তী টমটমের সাথে ধাক্কা লাগে। এতে জিয়াবুলসহ আরোহীরা মোটর সাইকেল থেকে ছিটকে পড়ে গুরুতর আহত হয়। আহত জিয়াবুল হক মেস্ত্রী জানায় ইঞ্জিনিয়ারিং ওয়ার্কশপ করার জন্য একটি দোকান ঠিক করতে আমরা পেকুয়া বাজারে এসেছিলাম। বাড়ি ফেরার পথে চৌমুহনী ষ্টেশনে পৌঁছলে চলন্ত গাড়িটিতে পেছন থেকে পুলিশ লাথি মেরে ফেলে দেয়। এ সময় মোটর সাইকেলটি ছিটকে পড়ে চলন্ত অপর একটি টমটম গাড়িরে সাথে ধাক্কা লাগে। পেকুয়া থানার এসআই শামসুদ্দিন জানায় মোবাইল কোট চলছে। তাদেরকে সিগন্যাল দেয়া হয়েছিল। তারা দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার সময় টমটমের সাথে ধাক্কা লাগে। তবে আমি অল্প দুরে অবস্থানে ছিলাম। এদিকে পেকুয়ায় ভ্রাম্যমান আদালতের কার্যক্রম দীর্ঘদিন ধরে চলমান রয়েছে। স্থানীয়রা অভিযোগ করেছেন মোবাইল কোটের চলমান অভিযানকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে পুলিশ। গাড়ির কাগজ পত্র ও এর বৈধতা নিয়ে অভিযান পরিচালিত হলেও পুলিশ এটিকে ধান্ধাবাজিতে পরিনত করেছেন। বিপুল মোটর সাইকেল ইতিমধ্যে জব্দ করেছে। তবে টাকার বিনিময়ে এসব মোটর সাইকেল ছেড়ে দেন পুলিশ। এতে হয়রানির শিকার হচ্ছে প্রতিনিয়ত মানুষ।