আমি নাকি অযাচিত হস্তক্ষেপ করছি

প্রকাশ:| রবিবার, ১০ ডিসেম্বর , ২০১৭ সময় ০৯:০৯ অপরাহ্ণ

বন্দরে লস্কর নিয়োগ নিয়ে যারা নানা অভিযোগ তুলেছেন তারা সরকারের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাজাহান খান।

অসত্য তথ্য দিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা চলছে অভিযোগ করে তিনি বলেন, এর পেছনে রাজনৈতিক হীন স্বার্থ জড়িত থাকতে পারে। বিগত ৮ বছরে বন্দরে অসন্তোষ হয়নি। বিভ্রান্তিমূলক তথ্য দিয়ে অস্থিরতা সৃষ্টির পায়তারা চলছে কিনা তা খতিয়ে দেখা দরকার।

তিনি বলেন, ইদানিং বলা হচ্ছে আমি নাকি অযাচিত হস্তক্ষেপ করছি। অযাচিত হস্তক্ষেপ কি আমি সেটাই বুঝি না। বরং যারা বন্দর নিয়ে কথা বলছেন তারাই তো অযাচিত হস্তক্ষেপ করছেন। কারণ আমি আইন মেনে দায়িত্ব পালন করছি। প্রধানমন্ত্রী আমাকে দিয়েছেন বলেই চট্টগ্রামে এসে কাজ করছি। কথা বলতে চাইলে এখানে এসে বলতে হবে। কমিটির বাইরে গিয়ে বলবেন না।

লস্করসহ বন্দরে এ পর্যন্ত যেসব নিয়োগ হয়েছে সেখানে মন্ত্রী হিসেবে স্বজনপ্রীতি করেননি দাবি করে শাজাহান খান বলেন,‘বুকে হাত দিয়ে বলতে পারি। নিয়োগের ক্ষেত্রে আমি স্বজনপ্রীতি করছি না। সবার সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করেই কাজ করছি। অসত্য তথ্য দিয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করা হচ্ছে।’

চট্টগ্রামের একজন সংসদ সদস্য জাতীয় সংসদে ভুল তথ্য উপস্থাপন করেছিল উল্লেখ করে তিনি বলেন,‘আমি নাকি ৯২ জন লস্কর নিয়োগ দিয়েছি। এরমধ্যে ৯০ জন মাদারিপুরের কেবল ২ জন চট্টগ্রামের। এ ঘোষণায় অনেকে বিভ্রান্ত হয়েছে। আসিফ নজরুলের মতো মানুষ ফেসবুকে লিখেছে। তার বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে।’

লস্কর পদে ২৬ জেলা থেকে ৮৫ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, গত ৮ বছরে ১১৫ পদে ১ হাজার ৯৪৮ জনকে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

জনগণকে বিভ্রান্ত না করে গঠনমূলক সমালোচনা করার আহ্বান জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, মানুষকে বিভ্রান্ত না করে সত্য প্রকাশ করুন। আমি অসত্যের কাছে, মিথ্যার কাছে মাথা নত করিনি। যেটা ভাল সেটাই করি।

রোববার দুপুরে চট্টগ্রাম বন্দর প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে অনুষ্ঠিত বন্দর উপদেষ্টা কমিটির ১২ তম সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা