আমিরাবাদ এলাকায় শিবির-ছাত্রলীগ-পুলিশের সংঘর্ষ,শিবিরের পাঁচ কর্মীকে আটক

প্রকাশ:| শনিবার, ২ নভেম্বর , ২০১৩ সময় ১১:১৮ অপরাহ্ণ

লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদ এলাকায় শিবির-ছাত্রলীগ-পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষকালে শিবিরকর্মীরা কমপক্ষে ১২টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন। এসময় ঘটনাস্থল থেকে শিবিরের পাঁচ কর্মীকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার সন্ধ্যা ৫টা থেকে ৭টা পর্যন্ত এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।shebir শিবির

আটককৃত ‍শিবির কর্মীরা হলেন- জিয়াউর রহমান (২২), হেলাল উদ্দিন (২৫), বেলাল হোসনে (২০), আব্দুর রহমান মোক্তার (২২) ও আল আমিন (১৮)।

পুলিশ জানায়, শনিবার বিকেলে জায়ামাত কারাবন্দি নেতাদের মুক্তি ও তত্ত্বাবধায়ক সরকার দাবিতে মিছিল বের করেন শিবিরকর্মীরা। মিছিলটি লোহাগাড়া থেকে বের হয়ে আমিরাবাদ এলাকায় পৌঁছলে ট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়ক অবোরধ করেন মিছিলকারীরা।

এসময় ওই এলাকায় টানানো আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতীক একটি ‘নৌকা’ ভেঙে ফেলেন তারা। এ খবর পেয়ে উপজেলার ছাত্রলীগ মিছিলসহ ঘটনাস্থলে পৌঁছলে তাদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বেশ কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল নিক্ষেপ করে।
এসময় ঘটনাস্থল থেকে শিবিরের পাঁচ কর্মীকে আটক করা হয়েছে।

সংঘর্ষকালে শিবিরকর্মীরা কমপক্ষে ১২টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়েছেন বলেও জানিয়েছে পুলিশ।

লোহাগাড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহজাহান জানান, আটককৃতদের বিরুদ্ধে মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।