আমরা ভবন বানায়া দিব নাকি বেতন দিব

প্রকাশ:| রবিবার, ২৮ জুন , ২০১৫ সময় ০৯:০৬ অপরাহ্ণ

নুরুল ইসলাম নাহিদঅর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের বাজেট বক্তৃতায় শিক্ষা নিয়ে করা মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। আজ রোববার দশম জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশনে তিনি বলেন, ‘সাড়ে ১৬ হাজার কোটি টাকা দেওয়া হয়েছে অনেক মন্ত্রণালয়কে আর আমাদের দেওয়া হয়েছে মাত্র চার হাজার কোটি টাকা। আপনারাই বলেন আমরা ভবন বানায়া দিব নাকি বেতন দিব?’

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অধিবেশনে উপস্থিত ছিলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘যারা (বাজেট বক্তৃতা) লিখে দিয়েছেন হয়তো মাননীয় অর্থমন্ত্রী বাজেট তৈরি করায় ব্যস্ত ছিলেন, বাজেট বক্তৃতায় ১১ পৃষ্ঠায় আমাদের মাধ্যমিক শিক্ষা নিয়ে যা বলেছেন, আমাদের বিরোধী দলও এ কথা বলে না। আমি কী উত্তর দিব? আমাদের মাধ্যমিকে যে পরিবর্তন হয়েছে তা কি তুলনা করব আমেরিকার সঙ্গে? না শেখ হাসিনা ক্ষমতায় আসার আগের সাথে? এখন সব মেয়েরা স্কুলে আসছে। সব বাচ্চারা স্কুলে আসছে। পরীক্ষা দিচ্ছে, ভালো ভালো ফলাফল করছে। আমাদের ডকুমেন্টে (অর্থমন্ত্রীর বাজেট বক্তৃতা দেখিয়ে) যদি আমরা বলি আমরা পিছিয়ে আছি, আমরা অনেক পেছনে চলে গেছি, তাহলে আমি কী উত্তর দিব? কী জবাব দিব আপনারা বলেন।’

‘শিক্ষা মন্ত্রণালয় আট নম্বরে’

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়, আমাদের কলেজে বিরাট পরিবর্তন এসেছে। অবকাঠামো দরকার, উন্নয়ন দরকার, বেতন দরকার, এমপিওভুক্ত দরকার। আমাদের মাত্র চার দশমিক তিন শতাংশ দেওয়া হয়েছে উন্নয়ন খাতে।’

‘ঘানা ও কেনিয়ার মতো রাষ্ট্র বাজেটের ৩১ ভাগ শিক্ষায় বিনিয়োগ করছে। আমাদের এখানে যে দশটি মন্ত্রণালয়ে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে উন্নয়ন খাতে, শিক্ষা মন্ত্রণালয় হলো আট নম্বর। আমাদের বরাদ্দ হচ্ছে বাজেটের মাত্র চার দশমিক তিন শতাংশ।’

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “কারিগরী ক্ষেত্রে বিরাট পরিবর্তন এনেছি। প্রধানমন্ত্রী যখন দায়িত্ব নেন তখন মোট শিক্ষার্থীর এক শতাংশের কম শিক্ষার্থী কারিগরি বিষয়ে লেখাপড়া করত। আজকের ভবিষ্যৎ কারিগরী ও বৃত্তিমূলক শিক্ষা। মানুষ বিরাট। একে বোঝা মনে হতে পারে। কিন্তু মানুষকে যখন মানবসম্পদে পরিণত করা যাবে দক্ষতা দিয়ে, শিক্ষা দিয়ে, জ্ঞান দিয়ে, সে তখন হবে পরিপূর্ণ মানবসম্পদ। আজ মানবসম্পদ নয় বলা হয় ‘হিউম্যান ক্যাপিট্যাল’। আমরা সেটাকে (কারিগরি শিক্ষায় অংশগ্রহণ) আটগুণ বেশি বৃদ্ধি করেছি। বিদেশ থেকে শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দিয়ে নিয়ে আসছি।”

নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘মাদ্রাসা শিক্ষায় আমরা যা করেছি তা গত ১০০ বছরেও হয়নি। যারা বলেছিল শেখ হাসিনা ক্ষমতায় গেলে মাদ্রাসা থাকবে না, একটা ভবনও বানায়নি (তাঁরা)। শেখ হাসিনা এক হাজার ৩০০ ভবন বানিয়েছেন।’

বাজেট বক্তৃতায় যা আছে

গত ৪ জুন জাতীয় সংসদে বাজেট পেশ করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। ওই বাজেট বক্তৃতায় তিনি বলেন, ‘মাধ্যমিক শিক্ষায় আমরা অনেকদিন ধরে পিছিয়ে আছি। প্রথমেই বলতে হবে যে প্রাথমিক শিক্ষার পরই অনেক শিক্ষার্থী ঝড়ে পড়ে। দ্বিতীয়ত, মাধ্যমিক শিক্ষায় মানসম্মত শিক্ষকের অভাব খুবই প্রকট। তৃতীয়ত, এই স্তরে শিক্ষার মান বেশ নিম্ন পর্যায়ে আছে।’


আরোও সংবাদ