আবুল খায়ের গ্রুপকে এক কোটি টাকা জরিমানা

প্রকাশ:| বুধবার, ২৭ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ১০:৩২ অপরাহ্ণ

আবুল খাযের গ্রুপচট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে খাল দখলের অপরাধে খ্যাতনামা শিল্প প্রতিষ্ঠান আবুল খায়ের গ্রুপকে এক কোটি টাকা জরিমানা দেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। একইসঙ্গে তাদের ১০ শ্রমিককে আটক করা হয়েছে।

বুধবার (২৭ জানুয়ারি) চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডের সহকারি কমিশনার (ভূমি) মাহবুব আলম খাল দখলের বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের এ অভিযানে নেতৃত্ব দেন।

মাহবুব আলম বলেন, সীতাকুণ্ডের মাদামবিবির হাটে ইছামতি খাল দখল করে কারখানা গড়ে তুলছে আবুল খায়ের গ্রুপ। ঘটনাস্থলে গিয়ে খাল দখলের প্রমাণ পাওয়ার পর তাদের এক কোটি টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে ১০ শ্রমিককে আটক করে সীতাকুণ্ড থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান মাহবুব।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত সপ্তাহে ভ্রাম্যমাণ আদালত সরেজমিনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে খালের উপর স্থাপনা নির্মাণের বিষয়টি দেখতে পান। এরপর আবুল খায়ের গ্রুপকে সহকারি কমিশনারের কার্যালয়ে হাজিরের নোটিশ দেয়া হয়।

কিন্তু এক সপ্তাহের মধ্যেও নোটিশের জবাব না দিয়ে আবুল খায়ের গ্রুপ খালের উপর স্থাপনা নির্মাণ অব্যাহত রাখে।

এরপর বুধবার দুপুরে সহকারি কমিশনারের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালতের টিম এবং পুলিশ মাদামবিবিরহাটে গিয়ে অভিযান চালায়। সেখানে খাল দখল করে স্থাপনা নির্মাণের কাজে জড়িত ১০ শ্রমিককে হাতেনাতে আটক করা হয়। সেখান থেকে একটি এস্কেভেটরও জব্দ করা হয়।

আবুল খায়ের গ্রুপের বিরুদ্ধে ইছামতি খাল দখল করে স্থাপনা নির্মাণের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। তাদের মালিকানাধীন লোহার রড তৈরির কারখানার দ্বিতীয় ইউনিটটির বড় অংশ খাল দখল করে গড়ে তোলা হচ্ছে বলে অভিযোগ আছে। আবুল খায়ের গ্রুপের দখলের কারণে ইছামতি খালটি সম্পূর্ণভাবে সংকুচিত হয়ে প্রায় বিলুপ্তির পথে চলে যাচ্ছে বলে স্থানীয়দের অভিযোগ।

শুধু ‍খাল-জলাশয় দখল নয়, ‍আবুল খায়ের গ্রুপের বিরুদ্ধে কারখানা স্থাপনের জন্য সীতাকুণ্ডে বিস্তির্ণ পাহাড় কেটে বিরাণভূমি বানানোর অভিযোগ আছে। এছাড়া তাদের বিরুদ্ধে সম্প্রতি মেয়াদোত্তীর্ণ চা পাতা, গুঁড়ো দুধ মজুদ রাখারও প্রমাণ পেয়েছে র‌্যাব।


আরোও সংবাদ