আনোয়ারার সিংহরায় আতংকে ভোটাররা

প্রকাশ:| বুধবার, ১ জুন , ২০১৬ সময় ১০:৪১ অপরাহ্ণ

আনোয়ারা প্রতিনিধি:

ভোটারদের হুমকি,হামলা, মামলা আর বহিরাগতদের নিয়ে এলাকায় শোডাউন দিয়ে ভয়ভীতি প্রদর্শন করার অভিযোগ উঠেছে আনোয়ারা উপজেলার ৮নং চাতরী ইউনিয়ন পরিষদের ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার প্রার্থী রঘুনাথ সরকারের বিরুদ্ধে।
স্থানীয় সূত্রে জানাযায় স্থানীয় মানিক লাল সরকারের পুত্র মেম্বার প্রার্থী রঘূনাথ সরকার গত নির্বাচনে বিজয়ী হয়ে এলাকায় মদ, জুয়া, ইয়াবা, জায়গা দখল, সালিসী বৈঠকের টাকা আত্মসাৎ করে এলাকার সাধারণ জনগণের উপর নির্যাতন ও ধোকা দিয়ে আসছে। তার এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললে তার ক্যাডার বাহিনী ও তার ছেলের নেতৃত্বে নেমে আসে ভয়াবহ নির্যাতন। তাই তার এসব অপকর্মের বিরুদ্ধে মূখ খূলতে সাহস পাচ্ছে না এলাকাবাসী। এছাড়া হিন্দু অধ্যুষিত এলাকা হওয়ায় তাদের মধ্যে বর্তমানে আতংক আর চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে বলে জানান স্থানীয় আব্দুল মন্নান খান।
নির্বাচন কমিশনের নিয়মবিধির কোন তোয়াক্কা না করে সে এলাকায় মেজবান, ও টাকা বিলী করার অভিযোগ করেছে স্থানীয় বাসিন্দা উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি সাইফুল্লাহ চৌধুরী।
তিনি আরো বলেন স্থানীয় জনগণ তার পক্ষে না থাকায় সে বহিরাগতদের এনে শতাধিক মোটর সাইকেল নিয়ে শোডাউন এলাকাবাসীর মাঝে আতংক সৃষ্টি করে দিয়েছে। এছাড়াও সে নির্বাচিত হলে তার বিপক্ষের লোকদের দেখে নেওয়ার হুমকি দিচ্ছেন বলেও জানান সাইফুল্লাহ।
এছাড়াও তার বিরুদ্ধে জাল ওয়ারিশ সনদ প্রদানের মাধ্যমে স্থানীয় ইছামতি এলাকার গুরুনিতা সেবাশ্রম মন্দিরের জায়গা বিক্রির অভিযোগ করেছে মন্দির কৃতপক্ষ। যা এখন জেলা যুগ্ম জজ আদালতে মামলা চলতেছে, যার মামলা নং ১৮৮। এছাড়াও সে উত্তর পাহাড়তলী এলাকার শ্রী শ্রী গুরুকূল আশ্রমের সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন ২০০৮ সালে দেবোত্তর সম্পক্তি বিক্রির নামে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে বিগত নির্বাচনের আগে এলাকায় পালিয়ে চলে আসেন।
উল্লেখযোগ্য যে তার বিরুদ্ধে নগরীর পাচলাইশ, পটিয়া,আনোয়ারাসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।
অভিযোগের সত্যতা জানতে একাধিকবার যোগাযোগ করা হলেও কোন সুউত্তর দিতে পারেনি মেম্বার প্রার্থী রঘুনাথ সরকার।