আনুষ্ঠানিকভাবে খুলনায় থ্রিজি সেবা চালু করেছে এয়ারটেল

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৭ মার্চ , ২০১৪ সময় ১১:২০ অপরাহ্ণ

আনুষ্ঠানিকভাবে খুলনায় থ্রিজি সেবা চালু করেছে এয়ারটেলখুলনায় গতকাল বৃহস্পতিবার আনুষ্ঠানিকভাবে থ্রিজি সেবা চালু করেছে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড। খুলনা সিটি কর্পোরেশন এর মেয়র মো: মনিরুজ্জামান মনি প্রধান অতিথি হিসেবে ঢাকায় অবস্থানরত এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড এর সিইও এবং ম্যানেজিং ডিরেক্টর ক্রিস টবিট এর সাথে ভিডিও কলে কথোপকথনের মাধ্যমে আনুষ্ঠানিকভাবে খুলনায় এয়ারটেল থ্রিজি সেবার উদ্বোধন করেন।

উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মেয়র বলেন,“খুলনায় থ্রিজি সেবা চালু করার জন্য এয়ারটেলকে ধন্যবাদ জানাই। আমি আশা করছি এর মাধ্যমে খুলনায় বিভিন্ন সুযোগ সৃষ্টি হবে আরো প্রাধান্য পাবে এবং খুলনার শিক্ষা এবং স্বাস্থ্য খাতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে।”

এই উপলক্ষে ক্রিস টবিট বলেন, “খুলনার গ্রাহকদের জন্য থ্রিজি সেবা নিয়ে আসতে পেরে আমরা বেশ আশাবাদী। আমাদের মূল লক্ষ্য হলো গ্রাহকদের জন্য সর্বোত্তম থ্রিজি সেবা প্রদান এবং বাংলাদেশে থ্রিজি নেটওয়ার্কের প্রবৃদ্ধি। এরই মধ্যে আমরা দেশের গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলো যেমন ঢাকা, চট্টগ্রাম, সিলেট, গাজীপুর, নারায়নগঞ্জ, কুমিল্লা, বগুড়া এবং এখন খুলনার গুরুত্বপূর্ণ অংশ থ্রিজি সেবার আওতায় নিয়ে এসেছি। এর ফলে খুলনা বাকি বিশ্বের সাথে আরো দৃঢ়ভাবে সংযুক্ত হতে পারবে যা শহরটির অর্থনৈতিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে। ২০১৪ এর মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে দেশের বাকি বিভাগীয় সদরগুলো থ্রিজি সেবার আওতায় নিয়ে আসতে আমরা প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।”

অনুষ্ঠানে মেয়র এবং উপস্থিত অন্যান্য অতিথিরা থ্রিজি এক্সপেরিয়েন্স জোন ঘুরে দেখেন। এসময় তারা এয়ারটেল থ্রিজি ডঙ্গলের সাহায্যে দ্রæত গতিতে বড় আকারের ফাইল ডাউনলোড, ইউটিউবে ভিডিও স্ট্রিমিং, অ্যাপ্লিকেশন ডাউনলোড এবং দ্রæত ইন্টারনেট ব্রাউজিং দেখেন। এছাড়াও খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র, খুলনার এয়ারটেল থ্রিজি নেটওয়ার্কে একটি ভিডিও কল করে বাংলাদেশের তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে একজন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সাথে থ্রিজি ডিভাইসের সাহায্যে কথোপকথন করেন।

এয়ারটেল ২০১৪ সালের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যে দেশব্যাপী সকল বিভাগীয় সদরে বাণিজ্যিকভাবে থ্রিজি সেবা চালুর পরিকল্পনা গ্রহন করেছে। খুলনার যেসব এলাকা বর্তমানে এয়ারটেল থ্রিজি সেবা আওতায় রয়েছে সেগুলো হলো নেভাল স্টাফ কোয়ার্টার, বৈকালী বাস স্টপ, মুজগুন্নি আবাসিক এলাকা, দেনারাবাদ, আরামবাগ, তুতপাড়া, মুনশিপাড়া, পুলিশ লাইন, কোতোয়ালি এবং রূপসা ঘাট।