‘আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রশিক্ষিত জনসম্পদের বিকল্প নেই’

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| শুক্রবার, ৪ জানুয়ারি , ২০১৯ সময় ০২:৫৭ অপরাহ্ণ

চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন সমাজবিজ্ঞানী, বরেণ্য শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. ইফতেখার উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন আধুনিক বাংলাদেশ বিনির্মাণে প্রশিক্ষিত জনসম্পদের বিকল্প নেই। এ লক্ষ্য অর্জনে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ে জ্ঞান-গবেষণার ক্ষেত্র সম্প্রসারণ এবং আধুনিক বিজ্ঞানমনস্ক আলোকিত মানবসম্পদ সৃষ্টিতে বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন বদ্ধপরিকর। চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের শিক্ষা, গবেষণা, প্রশিক্ষণ এবং কর্মসংস্থান সংক্রান্ত কাজের সুযোগ-সুবিধা বৃদ্ধির লক্ষ্যে জধনবুধ-ঋবৎফড়ঁং ঈবহঃৎব ড়ভ টহরাবৎংরঃু-ওহফঁংঃৎু খরহশধমব (জঋঈটওখ)-প্রোগ্রামের আওতায় চবি ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি এস্যুরেন্স সেল (আইকিউএসি)-এর আয়োজনে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের সাথে জধনবুধ-ঋবৎফড়ঁং ঈবহঃৎব-এর চুক্তির আলোকে চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে মাননীয় উপাচার্য এসব কথা বলেন। ৩ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখ বিকাল ৫ টায় চিটাগাং ক্লাব কনফারেন্স রুমে অনুষ্ঠিত চেক হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উক্ত প্রোগ্রামের উদ্যোক্তা ও দাতা শিক্ষাবিদ প্রফেসর ড. আহাদ এম ওসমান গণি।

মাননীয় উপাচার্য উপস্থিত সকলকে ইংরেজি নববর্ষের শুভেচ্ছা জানান। তিনি বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু তনয়া আধুনিক বাংলাদেশের রূপকার মানবতার জননী, বিশ্ব নন্দিত নেত্রী মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরতœ শেখ হাসিনার শিক্ষা-দর্শন ‘আধুনিক বিজ্ঞানমনস্ক গুণগত শিক্ষা’-এর বাস্তবায়নে চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসন ভৌত অবকাঠামো উন্নয়নের পাশাপাশি জ্ঞান-গবেষণার ক্ষেত্র সম্প্রসারণে দেশ-বিদেশের আধুনিক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসহ অন্যান্য প্রতিষ্ঠানের সাথে শিক্ষা-গবেষণা উন্নয়ন সংক্রান্ত ইতোমধ্যে বিভিন্ন চুক্তি সম্পাদন করেছে। এ চুক্তির ফলে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা প্রশিক্ষণের মাধ্যমে যুগের চাহিদার আলোকে নিজেদের দক্ষতা বৃদ্ধি ও সক্ষমতা অর্জনে অত্যন্ত সহায়ক ও কার্যকর ভূমিকা রাখবে। তাছাড়া, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের অধীনে দেশের শিল্প-কারখানা প্রতিষ্ঠানে কর্মরত এক্সিকিউটিভবৃন্দ ব্যবসা-বাণিজ্য, ইন্ডাষ্ট্রীয়াল আইন শিক্ষা, চিকিৎসা ক্ষেত্রে আধুনিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ, বিজ্ঞান মনস্ক দক্ষ জনবল তৈরি, বাংলা ভাষা ছাড়াও বিভিন্ন ভাষায় পারদর্শীতা অর্জনসহ প্রশিক্ষিত জনসম্পদ উৎপাদন এবং দুর্নীতি-জঙ্গি-সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ শিক্ষক, চিকিৎসক, গবেষকবৃন্দের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ গ্রহণের অপার সম্ভাবনার সুযোগ রয়েছে। মাননীয় উপাচার্য ইন্ডাষ্ট্রীয়াল জগতের সম্মানিত কর্ণধারবৃন্দ তাঁদের অধীনস্থ এক্সিকিউটিভবৃন্দের এ সুযোগ কাজে লাগানোর আহবান জানান। মাননীয় উপাচার্য দেশের শিক্ষা-গবেষণা, ব্যবসা-বাণিজ্য সর্বোপরি দেশের উন্নয়ন-অগ্রগতিকে আরও এগিয়ে নিতে পারস্পরিক যোগাযোগ এবং সম্পর্ক উন্নয়নের মাধ্যমে রাবেয়া-ফেরদৌস সেন্টার-এর ন্যায় দেশের ধনাঢ্য ব্যক্তিবর্গ ও প্রতিষ্ঠানসমূহকে এগিয়ে আসার উদাত্ত আহবান জানান। উল্লেখ্য, উক্ত চুক্তির আলোকে চুক্তির কর্ণধার প্রফেসর ড. আহাদ এম ওসমান গণি চবি মাননীয় উপাচার্যকে পাঁচ লক্ষ টাকার একটি চেক হস্তান্তর করেন।

অনুষ্ঠানে বিশিষ্ট ব্যবসায়ী চট্টগ্রাম চেম্বার-এর সাবেক সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট জনাব এম এ সালাম চট্টগ্রাম বিশ^বিদ্যালয়ের শিক্ষা-গবেষণা উন্নয়নের জন্য তাঁর ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ২৫ লক্ষ টাকা অনুদান প্রদানের ঘোষণা দেন।
এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চবি কলা ও মানববিদ্যা অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. সেকান্দর চৌধুরী, ব্যবসায় প্রশাসন অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. এ এফ এম আওরঙ্গজেব, সমাজ বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. ফরিদ উদ্দিন আহামেদ, আইন অনুষদের ডিন প্রফেসর এ বি এম আবু নোমান, জীব বিজ্ঞান অনুষদের ডিন প্রফেসর ড. মো. মাহবুবুর রহমান, চিকিৎসা অনুষদের ডিন প্রফেসর ডা. সেলিম মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর, আইকিউএসি’র পরিচালক প্রফেসর ড. জাহাঙ্গীর আলম, সিইটিএল-এর পরিচালক প্রফেসর ড. নাসিম হাসান ও উপ-পরিচালক ড. মোহাম্মদ সাইদুল ইসলাম এবং ব্যবসায়ী নেতৃবৃন্দের মধ্যে চট্টগ্রাম চেম্বার-এর সাবেক সিনিয়র ভাইস-প্রেসিডেন্ট জনাব এম এ সালাম, চিটাগং উইম্যান চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রীজ-এর ভাইস-প্রেসিডেন্ট জনাব জেসমীন আখতার, পরিচালক জনাব রোজিনা আখতার লিপি, জনাব সুলতানা নুরজাহান, জনাব নুজহাত কৃষ্টি এবং জনাব শামিল রীমা। এ ছাড়া অনুষ্ঠানে চবি রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) জনাব কে এম নুর আহমদ, হিসাব নিয়ামক (ভারপ্রাপ্ত) জনাব মো. ফরিদুল আলম চৌধুরীসহ চবি’র সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।