আজ চকরিয়া উপজেলা পরিষদ নির্বাচন, সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন

প্রকাশ:| বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি , ২০১৪ সময় ১১:৪৯ অপরাহ্ণ

সার্বিক পর্যবেক্ষণে থাকবেন ৯ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট
৩৮ ঝুঁকিপূর্ণসহ ৯৬ কেন্দ্রে ২২শ’ আইন শৃংখলা বাহিনী

মুহাম্মদ জিয়াউদ্দীন ফারুক, চকরিয়া:
চকরিয়ায় আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন স্থানের ন্যায় দ্বিতীয় ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচন। নির্বাচনকালীন ভোট কেন্দ্র দখল ও সহিংসতাসহ অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে প্রশাসনের তরফ থেকে আইন শৃংখলা পরিস্থিতি অটুট রাখতে আগে-ভাগে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণে থাকবেন ৯ নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।
উপজেলার ৯৬টি ভোট কেন্দ্রের জন্য হাতে নেয়া হয়েছে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যাবস্থা। মাঠে থাকছে সেনাবাহিনী, র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আর্মড পুলিশ ও আনসারের একাধিক টিম। কেন্দ্রের ভিতরে-বাহিরে ছাড়াও রয়েছে বিশেষ টিম। এ নির্বাচনকে ঘিরে নিরাপত্তা ব্যাবস্থা জোরদারের মাধ্যমে ব্যালট ছিনতাই ও সহিংসতা প্রতিরোধে মাঠে থাকবেন ৩৮টি ঝুঁকিপূর্ণসহ ৯৬ কেন্দ্রে চৌকস অফিসারের নেতৃত্বে সেনাবাহিনী, র‌্যাব, বিজিবি, পুলিশ, আর্মড পুলিশ ও আনসারসহ ২২শ’ আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী।
এদিকে এবারের নির্বাচনে হেভিওয়েট প্রার্থী হওয়ায় লড়াই হবে দ্বিমুখী। মূলত লড়াইটি হবে উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আনারস প্রতীক নিয়ে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী জাফর আলম বি.এ (অনার্স) এম.এ ও উপজেলা বিএনপির সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরী খোকন মিয়ার সাথে। তবে প্রতিদ্বন্ধিতা করতে মাঠে রয়েছে জামায়াতের প্রার্থী আরিফুর রহমান চৌধুরী মানিক এবং বিশিষ্ট শিল্পপতি শাহনেওয়াজ ইবনে মোস্তাক প্রকাশ স্বপন মিয়া (দোয়াত কলম) ও সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বাবলা (মোটর সাইকেল)। তাছাড়া এ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ ১৮প্রার্থী প্রতিদ্বন্ধিতা করবেন।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) রনজিত কুমার বড়–য়া জানান, নির্বাচন চলাকালে আইন শৃংখলা রক্ষায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় প্রদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যে ৯৬টি ভোট কেন্দ্রের মধ্যে ৩৬টি কেন্দ্রকে ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্র হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। তবে প্রার্থীদের পক্ষ থেকে ৩৮টি কেন্দ্র ঝুঁকিপূর্ণ বলে দাবি করা হয়েছে। এসব কেন্দ্রে থাকবে অতিরিক্ত আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী।
ঝুঁকিপূর্ণ কেন্দ্রের মধ্যে রয়েছে- বদরখালী ইউনিয়নের নিদান তরানী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কুতুবনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, আজম নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বদরখালী কলেজ, বমুবিলছড়ি ইউনিয়নের বিলছড়ি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বরইতলী ইউনিয়নের উত্তর বরইতলী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বরইতলী উচ্চ বিদ্যালয়, শহীদ মনছুর উদ্দিন রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়, বিএমচর ইউনিয়নের বেতুয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বিএমচর উচ্চ বিদ্যালয়, ঢেমুশিয়া ইউনিয়নের ঢেমুশিয়া জিন্নাত আলী চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়, ডুলাহাজারা ইউনিয়নের ডুমখালী রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়, রিংভং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ডুলাহাজারা উচ্চ বিদ্যালয়, পূর্ব বড়ভেওলা ইউনিয়নের বড়ভেওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, বড়ভেওলা কমিউনিটি সেন্টার, পূর্ব বড়ভেওলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ফাঁসিয়াখালী ইউনিয়নের ছাইরাখালী মদীনাতুল উলুম মাদরাসা-হাফেজখানা, হারবাং ইউনিয়নের হারবাং বার্মিজ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, হারবাং ইউনিয়ন উচ্চ বিদ্যালয়, কুসুমকলি শিক্ষা নিকেতন, কাকারা ইউনিয়নের শাহওমারাবাদ উচ্চ বিদ্যালয়, খুটাখালী ইউনিয়নের মেধা কচ্ছপিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, খুটাখালী উচ্চ বিদ্যালয়, দক্ষিণ ফুলছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, কিশলয় আদর্শ শিক্ষা নিকেতন, কোনাখালী ইউনিয়নের পশ্চিম কোনাখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, লক্ষ্যারচর ইউনিয়নের উত্তর লক্ষ্যারচর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাহারবিল ইউনিয়নের সাহারবিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, সাহারবিল আনওয়ারুল উলুম ফাজিল মাদরাসা, চকরিয়া পৌরসভার লক্ষ্যারচর চরপাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়, বাটাখালী ২য় সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, করাইয়াঘোনা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পালাকাটা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, দিগরপানখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, পশ্চিম দিগরপানখালী রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়।
চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাচনে সহকারি রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ মোয়াজ্জম হোসাইন জানান, ভোট কেন্দ্রের ভেতরে যে কোন ধরণের পরিস্থিতি মোকাবেলায় বিপুল সংখ্যক আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী মোতায়েন থাকবে। একইভাবে আইন শৃংখলা বাহিনী কেন্দ্রের বাহিরেও অপ্রীতিকর ঘটনা এড়াতে কড়া নজরদারির ভূমিকা পালন করবে।
এদিন ভোট কেন্দ্রে দায়িত্ব পালনের জন্য প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত ২১৫৩জন প্রিজাইডিং অফিসার, সহকারি প্রিজাইডিং অফিসার ও পোলিং অফিসারগণ নিয়োজিত থাকবে। এছাড়াও নির্বাচনে প্রায় ৯জন ম্যাজিস্ট্রেট, ১০০জনের বেশি সেনাবাহিনীর সদস্য, ৭০জন বিজিবি, ৭০জন র‌্যাব, ২০০জন পুলিশ, ৩০জন আর্মড পুলিশ ও ১১শজন আনসার সদস্যসহ ২২শ’ জন আইন শৃংখলা সদস্য নির্বাচনী দায়িত্ব পালন করবেন।
উল্লেখ্য যে, চকরিয়া উপজেলার ১টি পৌরসভা ও ১৮টি ইউনিয়নে সর্বশেষ ভোটার সংখ্যা রয়েছে ২লাখ ৫১ হাজার ১৯০ জন। তন্মমধ্যে পুরুষ ১লাখ ২৮হাজার ৫৮৪ জন ও মহিলা ১লাখ ২২হাজার ৬০৬ জন রয়েছে।


আরোও সংবাদ