‘আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের দায়িত্ব নিতে হবে’

নিউজচিটাগাং২৪/ এক্স প্রকাশ:| রবিবার, ৮ জুলাই , ২০১৮ সময় ১০:১৪ অপরাহ্ণ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু’র বিশ্বস্ত সহচর, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালিন ইস্টার্ন জোনের চেয়ারম্যান, বঙ্গবন্ধু সরকারের তৎকালিন স্বাস্থ্য, শ্রম, সমাজকল্যাণ ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী, চট্টগ্রাম শহর আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জহুর আহমদ চৌধুরী একজন নির্লোভ ও নিরংহকারী রাজনীতিবিদ ছিলেন। তিনি এ চট্টগ্রামে অনেক রাজনৈতিক কর্মী সৃষ্টি করেছিলেন। তিনি শ্রমজীবি মানুষের অধিকার আদায়ে বলিষ্ঠ ভূমিকা রেখেছেন। তাদের নার্য্য দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত তিনি অগ্রভাগে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন। জহুর আহমদ চৌধুরী উপমহাদেশের একজন নির্লোভ ও ত্যাগী রাজনীতির উজ্জ্বল মডেল। এদেশের শ্রমজীবী মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠা, গণতান্ত্রিক আন্দোলন ও মুক্তিযুদ্ধে তার অবদান অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। তাই তিনি মৃত্যুর পরও মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের রাজনৈতিক শক্তির পথ প্রদর্শক হিসেবে আমাদেরকে প্রেরণা যুগিয়ে যাচ্ছেন। জনগণের জননেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করা জহুর আহমদ চৌধুরী বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক জীবনের একজন আর্দশ পুরুষ। মরহুম জনননেতা জহুর আহমদ চৌধুরী’র ৪৪তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ৮ জুলাই রবিবার বিকাল ৫টায় নগরির জেলা পরিষদ মিলনায়তনে মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত স্মরণ সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন সমাজ বিজ্ঞানী প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন। এসময় তিনি আগামীর বাংলাদেশ বিনির্মাণে বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তানদের দায়িত্ব নেওয়ার আহবান জানান। বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগর কমিটির যুগ্ম আহবায়ক মিজানুর রহমান সজিবের সভাপতিত্বে ও সিনিয়র সদস্য মোঃ সাজ্জাদ হোসেনের পরিচালনায় সভায় আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিট কমান্ডার মোজাফ্ফর আহমদ, মুক্তিযুদ্ধের বিজয় মেলা পরিষদের মহাসচিব বীরমুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইউনুচ, রাউজান উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এহসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ চট্টগ্রাম মহানগর ইউনিটের ডেপুটি কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা শহীদুল হক চৌধুরী সৈয়দ, সহকারী কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা সাধন চন্দ্র বিশ্বাস, বীর মুক্তিযোদ্ধা এফ.এফ আকবর খান, মরহুম এম.এ আজিজের সন্তান মহানগর আওয়ামীলীগের সদস্য সাইফুদ্দিন খালেক চৌধুরী বাহার, চট্টগ্রাম মহানগর যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক শহীদ মুক্তিযোদ্ধার সন্তান আলহাজ্ব ফরিদ মাহমুদ, মরহুম জহুর আহমদ চৌধুরী পুত্র মুক্তিযোদ্ধা পরিবার বর্গের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন চৌধুরী, জহুর আহমদ চৌধুরী কনিষ্ট পুত্র শরফুদ্দিন আহমদ চৌধুরী রাজু, আলহাজ্ব এ.বি.এম মহিউদ্দিন চৌধুরী পুত্র বোরহান উদ্দিন চৌধুরী সালেহিন, মুক্তিযোদ্ধ সংসদ সন্তান কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সরওয়ার আলম চৌধুরী মনি, মুক্তিযোদ্ধা পরিবার বর্গের সাধারণ সম্পাদক উত্তম বড়–য়া, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম জেলার সদস্য সচিব কামরুল হুদা পাভেল। মরহুম জহুর আহমদ চৌধুরী’র জীবনের উপর প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড চট্টগ্রাম মহানগরের সদস্য সচিব কাজী রাজেশ ইমরান। সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বীর মুক্তিযোদ্ধা আশরাফুল আলম, বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ ইলিয়াছ মিয়া, বীর মুক্তিযোদ্ধা নুরুল হক বীর প্রতিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা পান্টুলাল সাহা, মহানগর যুবলীগের সদস্য শেখ নাসির আহমদ, দেলোয়ার হোসেন দেলু, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ড জেলার আহবায়ক ইঞ্জিনিয়ার মশিউজ্জামান সিদ্দিকী পাভেল, মহানগর সদস্য মোহাম্মদ আশরাফুল হক চৌধুরী, রিপন চৌধুরী, বিবি গুল জান্নাত, মেজবাহ উদ্দিন আজাদ প্রমুখ।
সভায় বক্তারা আরো বলেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কোটা বাতিলের ঘোষনা দেয়ার পরও এ আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করে সরকারকে বেকায়দায় ফেলার পাঁয়তারা করছে। পরিকল্পিতভাবে আবার শিক্ষাঙ্গণে অস্থিরতা সৃষ্টির চেষ্টা চালাচ্ছে। কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতৃত্বে যারা যুক্ত, তাদের বেশীর ভাগ অতীতে শিবিরের রাজনীতির সাথে যুক্ত। কোটা সংস্কার আন্দোলনের সময় এবং বর্তমানে যারা শিক্ষার্থীদের উস্কানিমূলক মিথ্যা তথ্য দিয়ে দেশব্যাপী আবারো নৈরাজ্যের অপচেষ্টা চালাচ্ছে এসব উস্কানিদাতা, মদদদাতা, পৃষ্টপোষকদের খুঁজে বের করার দাবী জানান।


আরোও সংবাদ