আকরাম খানের হাতে শুভেচ্ছা স্মারক দিল প্রেসক্লাব

প্রকাশ:| শুক্রবার, ৬ অক্টোবর , ২০১৭ সময় ১০:২৬ অপরাহ্ণ

বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক ও জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক আকরাম খান বলেছেন, চট্টগ্রামে এখন প্রধান সমস্যা হচ্ছে মাঠ। নগরীর এমএ আজিজ স্টেডিয়াস্থ আউটার স্টেডিয়ামটা এখন খেলার অনুপযোগী হয়ে গেছে। এ স্টেডিয়ামে সব ধরনের খেলা আয়োজন করতে হয় জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে।

তিনি বলেন, জহুর আহমদ চৌধুরী স্টেডিয়াম একমাত্র ক্রিকেট ভেন্যু। তাই চট্টগ্রামে খেলার মাঠ বাড়ানোর বিকল্প নেই। এজন্যে আমার কাছে যতটা সুযোগ আছে বা থাকবে তার সিংহভাগই আমি চট্টগ্রামের ক্রিকেটের উন্নয়নে কাজে লাগাতে চাই।

শুক্রবার (০৬ অক্টোবর) চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব-মার্কেন্টাইল ব্যাংক বার্ষিক ক্রীড়ার পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেক মিলনায়তনে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ারের সভাপতিত্বে ও ক্রীড়া সম্পাদক নজরুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন প্রেসক্লাব সাধারণ সম্পাদক শুকলাল দাশ।

বিশেষ অতিথি ছিলেন মার্কেন্টাইল ব্যাংকের ডিএমডি অ্যান্ড সিএসবিও আদিল রায়হান। শুভেচ্ছা বক্তব্য দেন বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) সহসভাপতি শহীদ উল আলম, চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) সভাপতি রিয়াজ হায়দার চৌধুরী, প্রেসক্লাবের যুগ্ম সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ।

আকরাম খান বলেন, আমাদের সময়ে অনেক প্রতিকূলতার মাঝে আমরা অনুশীলন করে জাতীয় পর্যায়ে খেলতে সক্ষম হয়েছি। পরবর্তীতে নাফিস, নাজিম, আফতাব, তামিমরা চট্টগ্রাম থেকে উঠে এসেছে। এরপর মাঝখানে আবার একটা শূন্যতা দেখা দিয়েছে। তবে আশার কথা হচ্ছে আমাদের বেশ কয়েকজন ক্রিকেটার এখন কড়া নাড়ছে জাতীয় দলের দরজায়।

বিসিবি পরিচালক বলেন, চার বছর ধরে আমি বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছি। চেষ্টা করেছি সব সময় চট্টগ্রামের ক্রিকেট ক্রিকেটকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার পথে সহায়তার হাত বাড়িয়ে দিতে। চট্টগ্রাম থেকে যাতে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ের খেলোয়াড় তৈরি করা যায় সে ব্যাপারে বরাবরই চেষ্টা করে যাচ্ছি। চট্টগ্রাম বিভাগীয় দলটিকে দাঁড় করানোর চেষ্টা ছিল শুরু থেকেই। বিশেষ করে তরুণদের নিয়ে দল গড়তে চাই।

তিনি বলেন, শিশুদের জন্য মাঠ কমে গেছে। তাদের জন্য খেলার যথেষ্ট সুযোগ নেই। ফিটনেস বাড়ানোর জন্য শিশু-কিশোরদের খেলাধুলার সুযোগ তৈরির জন্য সাংবাদিকদের সহযোগিতা প্রয়োজন।


আরোও সংবাদ