অরাজনৈতিক কোকো রোষানল থেকে রক্ষা পায়নি -চবি ছাত্রদল

প্রকাশ:| রবিবার, ২৪ জানুয়ারি , ২০১৬ সময় ১১:১৩ অপরাহ্ণ

চবি ছাত্রদলজাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি নেছারুল ইসলাম নাজমুলের তত্ত্বাবধানে তিন তিন বারের প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও স্বাধীনতা যুদ্ধের মহানায়ক শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কণিষ্ট পুত্র আরাফাত রহমান কোকো’র প্রথম মৃত্যুবাষিকী উপলক্ষে ২৪ জানুয়ারি চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন মদন ফকিরের মাজার ও এতিম খানায় কোরআন খতম, দোয়া ও মুনাজাত করা হয়। উক্ত মুনাজাত পরিচালনা করেন হাফেজ মাওলানা সাখাওয়াত হোসেন। মোনাজাতে আরাফাত রহমান কোকো’র বিদেহী আত্মার মাগফেরাত, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও আগামী দিনের রাষ্ট্র নায়ক জননেতা তারেক রহমানসহ জিয়া পরিবারের সকল সদস্যদের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়।
পরে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় শাখার উদ্যোগে আরাফাত রহমান কোকো’র মৃত্যু বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন চবি ছাত্রদলের সিনিয়র সহ-সভাপতি নেছারুল ইসলাম নাজমুল। উক্ত আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী ইউনিয়ন এর সাবেক সভাপতি ও হাটহাজারী স্বেচ্ছাসেবক দলের সিনিয়র সহ-সভাপতি সৈয়দ নাজিম উদ্দিন, চবি ছাত্রদল নেতা জাহেদুল ইসলাম, ইকবাল হোসেন, শরিফ আহমদ সুমন, মিনু মিয়া, নাজিম উদ্দিন, সায়েফ আলী, জুয়েল, শিমুল, শামীম, হিরন, নিং মারমা, জাহাঙ্গীর, তপন, দিয়ান, সোহান, সোয়েব, গোলাম নবী প্রমুখ নেতৃবৃন্দ।
নেতৃবৃন্দ বলেন, আরাফাত রহমান কোকো একজন ক্ষণাজন্মা ব্যক্তি ছিলেন, রাজনীতিবিদের সন্তান হয়েও তিনি ছিলেন একজন নির্লোভ অরাজনৈতিক। রাজনীতির উর্ধ্বে উঠে দেশের কল্যাণের জন্য কাজ করে গেছেন। বিশেষ করে একজন ক্রীড়ানুরাগী ব্যক্তি হিসেবে বাংলাদেশের ক্রিকেটকে আজকের পর্যায়ে নিয়ে গেছেন। কিন্তু সরকারের রোষানলের শিকার হয়ে অসংখ্য মিথ্যা মামলা নিয়ে নির্বাসিত ছিলেন। তিনি যদি সরকারের মিথ্যা ষড়যন্ত্রের শিকার না হতেন তাহলে তিনি আরও দীর্ঘদিন তার মেধা ও সদিচ্ছা দ্বারা দেশের মানুষের জন্য আরও কিছু কাল কাজ করে যেতেন। নেতৃবৃন্দ গণতন্ত্রের মুক্তির জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য উদাত্ত্ব আহ্বান জানান।