অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করতে হবে-মোশারফ

প্রকাশ:| রবিবার, ২৯ মার্চ , ২০১৫ সময় ১০:১৮ অপরাহ্ণ

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশারফ হোসেন এম.পি সকাল ১১ ঘটিকায় চউক সভাকক্ষে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান, বোর্ড সদস্য ও উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে এক সভায় মিলিত হন। মাননীয় মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে পরিকল্পিত ও সুন্দর চট্টগ্রাম মহানগরী গড়ার লক্ষ্যে সকলকে সম্বলিতভাবে কাজ করে জরুরী ভিত্তিতে অপরিকল্পিত অনুমোদন বিহীন অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি চট্টগ্রামবাসীকে একটি পরিকল্পিত, পরিচ্ছন্ন ও সুন্দর নগরী উপহার দেয়ার লক্ষ্যে চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ সহ সেবা প্রদানকারী সকল সরকারী সংস্থাকে সমন্বয় করে কার্যক্রম গ্রহণের উপর গুরুত্বারোপ করেন। মাননীয় মন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে গত ৬ বৎসরে চট্টগ্রামের উন্নয়নে সিডিএ যে সমস্ত কার্যক্রম গ্রহণ করেছে তার ভূয়সী প্রশংসা করে চট্টগ্রামকে প্রাচ্যের রাণী ও একটি আধুনিক নগরী হিসাবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে পতেঙ্গা সমুদ্র তীরে সীবিচ হতে সাগরিকা পর্যন্ত সীভিউ স্মার্ট সিটি প্রকল্প, কর্ণফুলী ব্রীজ হতে কালুরঘাট ব্রীজ পর্যন্ত তীরবর্তী রিভার ভিউ প্রকল্প, ফৌজদারহাট-বায়েজিদ বোস্তামী সংযোগ সড়কের উভয় পাশে গ্রীণ সিটি প্রকল্প গ্রহণের পরামর্শ প্রদান করেন এবং ফতেয়াবাদ নিউ টাউনশীপ প্রকল্পের কার্যক্রম গ্রহণেরও নির্দেশ প্রদান করেন।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষণা অনুযায়ী চট্টগ্রামের জন্য অতি গুরুত্বপূর্ণ বর্তমানে নির্মাণাধীন মুরাদপুর হতে লালখান বাজার পর্যন্ত ফ্লাইওভারটি হযরত শাহ্ আমানত ইন্টারন্যাশনাল এয়ারপোর্ট পর্যন্ত সম্প্রসারণের নির্মাণ কাজ দ্রুত শুরু করার লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণের নির্দেশনা প্রদান করেন। চউক চেয়ারম্যান মাননীয় মন্ত্রীর আগমনকে স্বাগত জানিয়ে বলেন- চট্টগ্রাম শহরের অবকাঠামো উন্নয়নে মন্ত্রীর নির্দেশনা যথাযথভাবে পালন করে চট্টগ্রামকে একটি আধুনিক শহরে রূপান্তিরত করার সকল কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে। চেয়ারম্যান তার বক্তব্যে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর আন্তরিকতায় গত ৬ বৎসরে চট্টগ্রামে যে বিশাল উন্নয়ন কার্যক্রম সূচিত হয়েছে তার ধারাবাহিকতা রক্ষাকল্পে মন্ত্রী মহোদয়ের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেন এবং চট্টগ্রামের উন্নয়নে বিভিন্ন প্রকল্প গ্রহণের পরামর্শ ও চউকের কার্যক্রমের বিষয়ে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করায় মাননীয় মন্ত্রীকে চউক এর পক্ষ হতে আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জানান। উক্ত সভায় চউক বোর্ড সদস্য মোঃ ইউনুস গণি চৌধুরীও বক্তব্য প্রদান করেন।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান আবদুচ ছালাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন চউকের বোর্ড সদস্য মোঃ জসিম উদ্দিন, আ.ম.ম টিপু সুলতান চৌধুরী, চউক সচিব তাহেরা ফেরদৌস বেগম, প্রধান প্রকৌশলী মোহাম্মদ জসীম উদ্দীন চৌধুরী, উপ-প্রধান নগর পরিকল্পনাবিদ শাহীনুল ইসলাম খাঁন, তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী কাজী হাসান বিন শামস্, উপসচিব অমল গুহ, অর্থ ও হিসাব রক্ষণ কর্মকর্তা মোঃ নাজের, নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট মোঃ আবুল হাশেম অথরাইজড অফিসার মোঃ মনজুর হাসান, মোঃ শামীম সহ চউকের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।