অবৈধ সম্পদ অর্জনকারীদের তালিকা করার নির্দেশ

প্রকাশ:| বুধবার, ২৬ অক্টোবর , ২০১৬ সময় ১০:১০ অপরাহ্ণ

কায়সার হামিদ মানিক, উখিয়া:
উখিয়া ও টেকনাফ আসনের এমপি আব্দুর রহমান বদি বলেছেন,সর্বোচ্চ নিরপক্ষতা বজায় রেখে সংশ্লিষ্ঠ এলাকায় কারা ইয়াবা পাচারের সাথে জড়িত এবং কারা ইয়াবা সহ মাদক পাচার বানিজ্যের মাধ্যমে অবৈধ অর্থ বিত্তের মালিক হয়েছেন তাদের তালিকা করে থানা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট জমা দিতে হবে। এসব তালিকা ২ উপজেলার ইউএনও এবং থানার ওসিকে দুর্নীতি দমন কমিশন সহ সরকারের সংশ্লিষ্ট দপ্তরে প্রেরণের জন্য নির্দেশ দেন তিনি।এছাড়া সরকারী উন্নয়ন কর্তব্য কাজে অবহেলাকারী সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কর্মচারী ও ইয়াবা সহ মাদক পাচারকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ গ্রহনের জন্য আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতি আহবান জানান এমপি বদি। গত মঙ্গলবার উখিয়া উপজেলা পরিষদ সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত মাসিক চোরাচালান প্রতিরোধ, আইন শৃংখলা উন্নয়ন ও মাসিক উন্নয়ন সম্বয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন উখিয়া থানার ওসি মোঃ আবুল খায়ের, সহকারী কমিশনার (ভূমি) নুরুদ্দিন মোঃ শিবলি নোমান, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডাক্তার আব্দুল মাবুদ, উপজেলা কৃষি অফিসার শরিফুল ইসলাম, আওয়ামীলীগ নেতা আদিল চৌধুরী, উখিয়া কলেজ অধ্যক্ষ ফজলুল করিম, ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর কবির চৌধুরী প্রমুখ। উল্লেখ্য,উখিয়া টেকনাফে সম্প্রতি ইয়াবা বানিজ্য মারাত্বক আকার ধারন করেছে, এ মরনঘাতি বানিজ্যের মাধ্যমে কোটিপতির খাতায় নাম লিখিয়েছে এককালের লেবার থেকে শুরু করে শ্রমিকরা পর্যন্ত। বিশেষ করে টেকনাফের হৃীলায় র‌্যাবের ক্রয়ফায়ারে নিহত নুর মোহাম্মদের ভাই নুরুল হুদা,নুর মুহাম্মদের ছেলে নুরুল আমিন ফাহিম,লেদা পশ্চিম পাড়ার জহুর আলম,উখিযার বালুখালীর এনাম,হিজলিয়ার বাবুল মিয়া,খয়রাতির মাহমুদুল হক,লম্বাখোনার মাহমুদুল করিম খোকা,মরিচ্যার মোস্তাক সহ সহাস্রাধিক ব্যাক্তি গত কয়েকবছরে ইয়াবা বানিজ্য করে শত কোটি টাকার মালিক বনে গেছে।নামে বেনামে গড়ে তুলেছে একাধিক সম্পদ।স্থানীয় প্রশাসনের গুটিকয়েক দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাকে ম্যানেজের মাধ্যমে তারা এলাকায় ইয়াবা তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছে।