অবৈধ অভিবাসী শ্রমিক বিরোধী অভিযানে ৩৮৭ জন বাংলাদেশি আটক

প্রকাশ:| সোমবার, ২ সেপ্টেম্বর , ২০১৩ সময় ১০:৪৭ অপরাহ্ণ

৩৮৭ জন  বাংলাদেশি আটকমালয়শিয়াজুড়ে শুরু হওয়া অবৈধ অভিবাসী শ্রমিক বিরোধী অভিযানের প্রথম দিনে রোববার ২ হাজার ৪৩৩ জনকে আটক করা হয়েছে, যাদের মধ্যে ৩৮৭ জন বাংলাদেশিও আছেন।মালয়শিয়ায় ৩৮৭ বাংলাদেশি আটক
মালয়শিয়াজুড়ে অবৈধ অভিবাসী শ্রমিক বিরোধী অভিযানের প্রথম দিনে মোট ২,৪৩৩ জনকে আটক করা হয়েছে। ছবি: দ্য স্টার

সোমবার সকালে এক প্রতিবেদনে মালয়শিয়ার গণমাধ্যম দ্য স্টার অনলাইন এ তথ্য জানিয়েছে।

মালয়শিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি ড. আহমদ জাহিদ হামিদির বরাত দিয়ে প্রতিবেদনটিতে বলা হয়েছে, রোববার মালয়শিয়ার ৪০টি এলাকায় অভিযান চালিয়ে মোট ৮ হাজার ১০৫ জন সন্দেহভাজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। এদের মধ্যে ২ হাজার ৪৩৩ জন বৈধ কাগজপত্র দেখাতে না পারায় তাদের আটক করা হয়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাতুক সেরি সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে জানান, আটককৃতদের মধ্যে ৭১৭ জন ইন্দোনেশিয়ার, ৫৫৫ জন মিয়ানমারের, ৩৮৭ জন বাংলাদেশের ও ২২৯ জন নেপালের নাগরিক। বাকিরা কম্বোডিয়া, ভিয়েতনাম, ভারত, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, চীন, নাইজেরিয়া ও থাইল্যান্ডের নাগরিক।

মালয়শিয়াজুড়ে রোববার শুরু হওয়া অবৈধ অভিবাসী শ্রমিক বিরোধী অভিযানে দেশটির বিভিন্ন সংস্থার দুই হাজার ২০৭ জন কর্মকর্তা অংশ নিয়েছেন- উল্লেখ করে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, এসব সংস্থার মধ্যে রয়েছে ইমিগ্রেশন বিভাগ, পুলিশ, সশস্ত্র বাহিনী, রেলা, বেসামরিক প্রতিরক্ষা ও জাতীয় নিবন্ধন বিভাগ।

চলতি বছরের শেষ পর্যন্ত এ অভিযান চলবে বলেও সংবাদ সম্মেলনে জানান দাতুক সেরি।

মালয়শিয়াভিত্তিক একটি গবেষণা সংস্থা ক্যারাম এশিয়া বলছে, দেশটিতে অবৈধ শ্রমিকদের মধ্যে বাংলাদেশ এবং ইন্দোনেশিয়ার লোকদের সংখ্যাই বেশি।

বাংলাদেশ সরকারের হিসেব মতে, মালয়শিয়ায় মোট পাঁচ লাখের মত বাংলাদেশি শ্রমিক কর্মরত আছেন, যাদের বড় একটি অংশ বৈধতার জন্য সেদেশের সরকারের দেওয়া সুযোগ ইতিমধ্যেই কাজে লাগিয়েছেন। বাকি আনুমানিক ৩০ থেকে ৪০ হাজারের মতো শ্রমিক এই সুযোগ নিতে ব্যর্থ হয়ে এখনো অবৈধ অবস্থায় দেশটিতে রয়েছেন বলে জানিয়েছে মালয়শিয়ায় বাংলাদেশ হাই কমিশন।

মালয়শিয়ার স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্প্রতি সংবাদমাধ্যমে এক বিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে, বৈধ কাগজপত্র ছাড়া কোনো শ্রমিককে তারা দেশটিতে কর্মরত চান না। এরই অংশ হিসেবে রোববার অবৈধ অভিবাসী শ্রমিক বিরোধী অভিযান শুরু হয়েছে।

এই অভিযানে আটককৃতদের ১৪ দিন সময় দেওয়া হবে বৈধ কাগজ হাজির করতে। না পারলে তাদের জায়গা হবে দেশটির ১২টি ডিটেনশন সেন্টারে।

এ প্রসঙ্গে মালয়শিয়ায় বাংলাদেশ হাইকমিশনের লেবার কাউন্সিলর মন্টু কুমার বিশ্বাস বলেন, ডিটেনশন সেন্টারে যাওয়ার আগ পর্যন্ত তাদের তেমন কিছু করার নেই। তবে তারপর থেকে তাদের দেশে ফিরতে সহায়তা করতে পারেন তারা।

দেশটিতে অবৈধভাবে বাংলাদেশি শ্রমিকদের প্রবেশ ঠেকাতে সাম্প্রতিক সময়ে বাংলাদেশ ও মালয়শিয়া সরকার এক সমঝোতায় পৌছায়, যার আওতায় বাংলাদেশ সরকার এখন শুধুমাত্র সরকারিভাবেই মালয়েশিয়ায় শ্রমিক পাঠাচ্ছে।