অবশেষ ৩ বাংলাদেশীর মরদেহ বিজিবি’র কাছে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

প্রকাশ:| সোমবার, ৭ এপ্রিল , ২০১৪ সময় ১০:১০ অপরাহ্ণ

দু’দফা সময় ও স্থান পরিবর্তন শেষে সোমবার ভারতীয় নাগরিকদের গনপিটুনীতে নিহত ৩ বাংলাদেশীর মরদেহ বিজিবি’র কাছে ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। ৬ এপ্রিল ভোরে ত্রিপুরা রাজ্যের গৌড়নগর এলাকার মজুমদারবাড়ী গ্রামে গাজীপুর ইউনিয়নের হাপ্টারহাওর গ্রামের মৃত সুন্দর আলীর পুত্র ছিদ্দিক আলী (৫৫), একই ইউনিয়নের মানিকভান্ডার গ্রামের খুর্শেদ আলীর পুত্র আনোয়ার (৪০) ও উসমানপুর গ্রামের আঃ মতিনের পুত্র সুন্দর আলী (৪৫)কে পিটিয়ে হত্যা করে ভারতীয় সন্ত্রাসীরা। এ হত্যাকান্ডের পর সীমান্তরক্ষী বিজিবি কড়া প্রতিবাদ জানিয়ে দ্রুততম সময়ে মধ্যে লাশ ফেরতের দাবী জানায়। বিএসএফ সোমবার সকাল ১০টায় লাশ ফেরত দিবে বলে পত্রের মাধ্যমে জানিয়ে দেয় বিজিবিকে। পত্র পেয়ে বিজিবি নিহত ব্যক্তির আত্মীয়দের নিকট থেকে লাশ ফেরতের আনার ‘পাওয়ার অব এটর্নি ’ আদায় করে পাঠায় বিএসএফ’র কাছে। এরপর বাল্লা চেকপোষ্ট বরাবর বিকাল সাড়ে ৪টায় লাশ ফেরত দেয়া হচ্ছে বলে জানিয়ে দেয় বিএসএফ। সে মোতাবেক বিজিবি ১৪ ব্যাটালিয়ান এর কমান্ডিং অফিসার লেঃ কর্নেল সাইফ উদ্দিন কাওসার, চুনারুঘাট থানার ওসি অমুল্য কুমার চৌধুরী, গাজীপুর ইউপি চেয়ারম্যান মাওলানা তাজুল ইসলাম, সাংবাদিকসহ বিপুল সংখ্যক আইন –শৃংখলা বাহিনীর সদস্য বাল্লা চেকপোষ্টে উপস্থিত হন। এ সময় দু’দেশের আইন-শৃংখলা বাহিনী আনুষ্টানিকতা সম্পন্ন করে কিন্ত বিকাল ৫ টায় হঠাৎ বিএসএফ লাশ ফেরতের স্থান ও সময় পরিবর্তন করে তা ১৯৬৬ নম্বর মেইন পিলার বরাবর কেদারাকোট নামক স্থান দিয়ে সন্ধ্যা সোয়া ৭টায় লাশ ফেরত দেয়ার ঘোষনা দেয়। বিএসএফ’র এহেন কর্মকান্ডে ব্যাপক ক্ষোভ দেখা দেয় উপস্থিত লোকজনের মাঝে। এরপর রাত ৮টায় রাতের আঁধারে কেদারাকোট দিয়ে নিহত ব্যক্তিদের মরদেহ বিজিবি’র কাছে হস্তান্তর করে বিএসএফ।