অপহৃত মারমা কিশোরীকে উদ্বার করেছে পুলিশ

প্রকাশ:| রবিবার, ১৬ আগস্ট , ২০১৫ সময় ০৯:০৫ অপরাহ্ণ

মারমা কিশোরী উদ্ধার
শফিউল আলম, রাউজান ঃ কাউখালী থেকে অপহৃত মারমা কিশোরী রাউজান থেকে উদ্বার করেছে পুলিশ । পার্বত্য চট্টগ্রামের রাঙ্গামাটি জেলার কাউখালী উপজেলার হীরাগাজী এলাকার চাতি ও মারমার কিশোরী কন্যা সিমু মারমা (১৯) এর প্রেমের সর্ম্পকের জের ধরে রাউজানের ডাবুয়া ইউনিয়নের আরব নগর এলাকার মৃত হামদু মিয়ার পুত্র সিএনজি চালক মোঃ ইলিয়াছ (২৫) এর সাথে পালিয়ে চলে আসেন । পালিয়ে চলে আসে মারমা কিশোরী সিমু মারমা গত ৮ জুন আদালতে উপস্থিত হয়ে পুর্বের ধর্ম ত্যাগ করে মুসলিম ধর্ম গ্রহন করেন । বৌদ্ব ধর্ম ত্যাগ করার পর সীমু মারমা তার নাম জান্নাতুল ফেরদৌস রখেন । একই সময়ে মুসলিম নিয়ম অনুযায়ী ইলিয়াছকে বিবাহ করেন ধর্ম ত্যগী জান্নাতুল ফেরদৌস । বিবাহের পর ইলিয়াছ তার স্ত্রী জান্নাতুল ফেরদৌসকে নিয়ে রাউজানের আরব নগরে স্বামী স্ত্রী হিসাবে বসবাস করে আসছেন । মারমা কিশোরী সীমু মারমা ধর্ম ত্যাগ করে ইলিয়াছকে বিবাহ করার পর থেকে হিজাব পড়ে চলাফেরা করতো বলে এলাকার লোকজন জানান । সীম মারমা পালিয়ে চলে আসার পর সীমুর পিতা চাতি ও মারমা কাউখালী থানায় গত ২৯ জুন নারী ও শিশু নির্যাতন আইনের ২০০৩ এর ৭/৩০ ধারায় মামলা করেন । কাউখালী থানার মামলা নং- ১১ । কাউখালী থানার মামলার গ্রেফতারী পরোয়ানা রাউজান থানায় আসলে কয়েকদিন ধরে মারমা কিশোরী সীমু মারমাকে উদ্বার ও অপহরনকারীকে গ্রেফতার করার প্রচেষ্টা চালায় পুলিশ । আজ ১৬ আগষ্ট রবিবার সন্দ্ব্যা সাড়ে সাতটার সময় রাউজানের ফকির হাট বাজারের আলো শাড়িজের দোকানে ইলিয়াছ তার বিবাহিত স্ত্রী সীমু মারমা বর্তমান নাম জান্নাতুল ফেরদৌস কেনাকাটা করতে আসলে রাউজানর থানার এ এস আই পরিতোষ দাশ গোপনে সংবাদ পেয়ে তাদের দুইজনকে আটক করে রাউজান থানায় নিয়ে আসেন । পরে তাদের দুইজনকে কাউখালী থানার এস আই বিপ্লবের কাছে সোর্পদ করেন । রাউজান থানায় আটক হওয়ার পর মোঃ ইলয়িাছ জানায় প্রেমের সর্ম্পকের কারনে সীমু মারমা আমার সাথে পালিয়ে এসে মুসলিম ধর্ম গ্রহন করে আমাকে বিবাহ করেছেন । সীমু মারমা বর্তমানে জান্নাতুল ফেরদৌস ডলি রাউজান থানায় পুলিশের হেফাজতে থাকা অবস্থায় বোরকা পড়া অবস্থায় বসে থাকতে দেখা যায় । সীমু মারমা বর্তমান জান্নাতুল ফেরদৌস জানান তাকে ইলিয়াছ অপহরন করেনি প্রেমের সর্ম্পকের কারনে ইলিয়াছের সাথে পালিয়ে এসে মুসলিম ধর্ম গ্রহন করে মুসলিম ধর্মীয় বিধান অনুসারে বিবাহ করেছি ।